টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

জঙ্গি দমনে নতুন পরিকল্পনা আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর

jangiচট্টগ্রাম, ১ জানুয়ারি (সিটিজি টাইমস) :জঙ্গিসন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ মোকাবিলায় নতুন বছরে নতুন উদ্যোমে মাঠে নামছে পুলিশসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীগুলো। এজন্য ‘কাউন্টার টেররিজম অ্যান্ড ট্রান্স ন্যাশনাল ক্রাইম’ নামের নতুন একটি ইউনিটও গঠন করা হয়েছে। একইসঙ্গে ‘ন্যাশনাল টেলিকমিউনিকেশন মনিটরিং সেন্টারের (এনটিএমসি)’ আধুনিকায়নেও কাজ করবে সরকার। যেন প্রযুক্তিনির্ভর সন্ত্রাসী দল ও জঙ্গিগোষ্ঠী দমনে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীগুলোর কাজ সহজতর হয়। সংশ্লিষ্ট সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়, আন্তর্জাতিক জঙ্গি ও সন্ত্রাসী সংগঠনগুলোর যোগসাজশে কিছু অপশক্তি দেশের ভেতরে অস্থিতিশীল পরিস্থিতি সৃষ্টির চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। সম্প্রতি তাদের অপতৎপরতাও দেখা যাচ্ছে। গেল বছরে ওই অপশক্তি বিদেশি, পুলিশ, লেখক ও মুক্তমনা লেখকদের হত্যা ছাড়াও ধর্মীয় উপাসনালয়েও হামলা চালিয়েছে। সেসব অপশক্তি মোকাবিলায় নতুন বছরে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীগুলো যেন আরও গতিশীলতার সঙ্গে কাজ চালিয়ে যেতে পারে, সে জন্য স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে বেশ কিছু উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।

এসব উদ্যোগের মধ্যে কাউন্টার টেররিজম ইউনিট গঠন ও এনটিএমসির আধুনিকায়নের বিষয়টি অন্যতম। এ মাস থেকেই আপাতত ছোট পরিসরে হলেও কাউন্টার টেররিজম ইউনিট কাজ শুরু করবে। অন্যদিকে ২০১৪ সালের ফেব্রুয়ারিতে এনটিএমসি কাজ শুরু করলেও সন্ত্রাসী ও জঙ্গি গোষ্ঠীগুলোর আধুনিক প্রযুক্তির কাছে বেশিরভাগ সময়েই আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে হিমশিম খেতে হচ্ছে।

আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় নিয়োজিত সবচেয়ে বড় বাহিনী হিসেবে পরিচিত পুলিশের সক্ষমতা বাড়াতে জনবল নিয়োগ প্রক্রিয়াও অব্যাহত রয়েছে। ৫০ হাজার জনবল নিয়োগের অংশ হিসেবে আরও ২০ হাজার জনবল এ বছরেই নিয়োগ করা হবে বলে জানিয়েছে সূত্রটি। গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ ইউনিট গঠন এবং আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়নের জনবল বাড়ানোর প্রস্তাব প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। সাইবার ক্রাইম দমন ও সংশ্লিষ্ট অফরাধ তদন্তে তথ্য প্রযুক্তি ব্যবহারের লক্ষ্যে দক্ষিণ কোরিয়া সরকারের সহায়তায় একটি প্রকল্প বাস্তবায়নাধীন রয়েছে। সিআইডিতে সাইবার ক্রাইম ল্যাব স্থাপনের কাজ চলছে।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র তথ্য কর্মকর্তা শরীফ মাহমুদ অপু জানান, উন্নত তথ্য-প্রযুক্তিনির্ভর সব সন্ত্রাসী দল বা জঙ্গিগোষ্ঠীকে নির্মূল করতে এনটিএমসিকে আধুনিক ও উন্নততর তথ্য-প্রযুক্তিনির্ভর একটি প্রতিষ্ঠান হিসেবে গড়ে তোলার জন্য কাজ শুরু করেছে মন্ত্রণালয়।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল বলেন, সরকার দেশের নিরাপত্তার বিষয়ে বদ্ধপরিকর। রাষ্ট্রীয় আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি সহনীয় পর্যায়ে রাখা ও শান্তিশৃঙ্খলা প্রতিষ্ঠায় নিয়োজিত আইন প্রয়োগকারী ও গোয়েন্দা সংস্থাগুলোকে আইনগত বাধা উত্তরণে সার্বিক সহায়তা দেবে এনটিএমসি।

অন্যদিকে, সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ বর্তমানে যে পর্যায়ে রয়েছে, তা মোকাবিলা করতেই এই বিশেষায়িত ইউনিট ‘কাউন্টার টেররিজম অ্যান্ড ট্রান্স ন্যাশনাল ক্রাইম’ ইউনিট গঠন করা হয়েছে। তিনি বলেন, শুরুতে ইউনিটটি স্বল্প পরিসরে কাজ করলেও যেসব পুলিশ কর্মকর্তা বিদেশ গিয়ে প্রশিক্ষণ নিয়ে আসছেন, তাদেরও এ ইউনিটে যুক্ত করা হবে। সাইবার অপরাধ ও জঙ্গি দমনে তারা কাজ করবেন।

সুত্রঃ  বাংলা ট্রিবিউন

সিটিজি টাইমসে প্রকাশিত সংবাদ সম্পর্কে আপনার মন্তব্য

মতামত