টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

মিরসরাই ও বারইয়ারহাটে প্রতি কেন্দ্রে ১৯ সদস্যের নিরাপত্তা বলয়

এম মাঈন উদ্দিন
মিরসরাই  প্রতিনিধি 

চট্টগ্রাম, ২৯ ডিসেম্বর (সিটিজি টাইমস): প্রচার-প্রচারনা শেষ করে আগামীকাল বুধবার অনুষ্ঠিত হচ্ছে মিরসরাই ও বারইয়ারহাট পৌরসভা নির্বাচন। মঙ্গলবার বিকালে উপজেলা রির্টানিং কর্মকর্তার উপস্থিতিতে দুই পৌরসভার ১৮টি কেন্দ্রে ভোট গ্রহনের সরঞ্জাম বিতরণ করে ভোট গ্রহণের সর্বশেষ প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে।

উপজেলা রির্টানিং কর্মকর্তা জিয়া আহম্মদ সুমন জানান, দুই পৌরসভার ১৮ কেন্দ্রের সবগুলোকে গুরুত্বপূর্ন (ঝুঁকিপূর্ণ) বিবোচনা করে কঠোর নিরাপত্তার ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। প্রতি কেন্দ্রে ১ জন উপ-পরিদর্শক (এসআই) ৪ জন পুলিশ সদস্য ও ১৪ জন আনসার সদস্য নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকবে। এছাড়া মিরসরাই ও বারইয়ারহাটে এক প্লাটুন করে বিজিবি ও র‌্যাবের দুইটি টিম স্ট্রাইকিং র্ফোস টহলে থাকবে। মিরসরাইয়ে ৪ জন ও বারইয়ারহাটে ৫ জন নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট দায়িত্বে নিয়োজিত থাকবেন। ভোট গ্রহণের জন্য ১৮ জন প্রিসাইডিং ও ৪৭ জন সহকারি প্রিসাইডিং অফিসার আজ (বুধবার) সকাল ৮টা থেকে মিরসরাইয়ের ২০টি ও বারইয়ারহাটের ২৭টি বুথে ভোট গ্রহন শুরু করবেন। তবে সব ভোটারদের মধ্যে উৎসাহ-উদ্দীপনার পাশাপাশি উদ্বেগ উৎকষ্ঠাও বিরাজ করছে। সুষ্ঠভাবে তারা ভোটাধিকার প্রয়োগ করতে পারবেন কিনা। জল্পনা-কল্পনা চলছে কে হচ্ছেন মিরসরাই ও বারইয়ারহাট পৌরসভার নতুন নগর পিতা।

মিরসরাই পৌরসভা মেয়র পদে প্রতিদ্ব›িদ্ধতা করছেন আওয়ামীলীগ মনোনীত প্রার্থী পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. গিয়াস উদ্দিন (নৌকা প্রতীক), বিএনপি মনোনীত প্রার্থী এ জেড এম রফিকুল ইসলাম পারবেজ (ধানের শীষ প্রতীক), ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ মনোনীত প্রার্থী আরিফ মাঈন উদ্দিন (হাতপাখা প্রতীক)। এখানে সাধারন ওয়ার্ড কাউন্সিলর হিসেবে প্রতিদ্ধ›িদ্ধতা করছেন মোট ৩১ প্রার্থী। সংরক্ষিত ওয়ার্ডে ১২ জন।

বারইয়ারহাট পৌরসভায় মেয়র পদে প্রতিদ্ধ›িদ্ধতা করছেন ২ জন প্রার্থী। তারা হলেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী মো. নিজাম উদ্দিন প্রকাশ ভিপি নিজাম (নৌকা প্রতীক) বিএনপি মনোনীত প্রার্থী মঈন উদ্দিন লিটন (ধানের শীষ প্রতীক)। এখানে সাধারন ওয়ার্ড কাউন্সিলর পদে প্রতিদ্ধ›িদ্ধতা করছেন মোট ৩৮ জন প্রার্থী। সংরক্ষিত ওয়ার্ডে ৭ জন।

মিরসরাই উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা সাংবাদিকদের জানান, মিরসরাই পৌরসভার ৯ টি কেন্দ্রের ২৬ টি ভোট কক্ষে মোট ভোটার ১১ হাজার ৭৬ জন। বারইয়ারহাট পৌরসভায় ১৮ টি কেন্দ্রের ১৯টি কক্ষে মোট ভোটার ৭ হাজার ৫শ ৭২জন। মিরসরাই পৌরসভায় ভোট গ্রহনের জন্য ৯ জন প্রিজাইডিং অফিসার ও ৫৪জন পোলিং অফিসার নিয়োগ দেয়া হয়েছে। বারইয়ারহাট পৌরসভা নির্বাচনে ভোট গ্রহনের জন্য ৯ জন প্রিজাইডিং অফিসার, ২০ জন সহকারী প্রিজাইডিং অফিসার ও ৪০জন পোলিং অফিসার নিয়োগ দেয়া হয়েছে।

এখানে মেয়র পদে দেশের দুই প্রধান দল আওয়ামী লীগ ও বিএনপি মনোনীত মেয়র প্রার্থীর মধ্যে লড়াই হবে। এতদিন আওয়ামী লীগ চালিয়েছে বিরতিহীন প্রচার প্রচারণা আর গনসংযোগ। বিএনপি মনোনীত প্রার্থীদের সময় কেটেছে অভিযোগ আর অনুযোগের মধ্য দিয়ে। গত সোমবারও মিরসরাই পৌরসভার বিএনপি মনোনীত মেয়র প্রার্থী রফিকুল ইসলাম পারভেজ উপজেলা রিটার্নিং অফিসারের কাছে অভিযোগ করেছেন। তিনি বলেছেন, আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থীর লোকজন বাড়ি বাড়ি গিয়ে বিএনপি কর্মী সমর্থকদের হুমকি ধমকি দিয়ে বেড়াচ্ছে। অপরদিকে আওয়ামী লীগের তরফ থেকে অভিযোগ অস্বীকার করা হয়েছে। এর আগে নির্বাচন কমিশন (ইসি) এখানকার দুটি পৌরসভার মোট ১৮টি কেন্দ্রের সবকটিকেই ঝুঁকিপূর্ণ বলে চি‎িহ্নত করেছে। তাই ভোটকেন্দ্রে গোলযোগ এড়াতে এখানে তিন স্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থাও জোরদার করেছে প্রশাসন।

উপজেলা রিটার্নিং অফিসার জিয়া আহাম্মেদ সুমন জানান,“ভোটকেন্দ্রে ব্যাপক নিরাপত্তার প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে। মিরসরাই ও বারইয়ারহাট পৌরসভা নির্বাচনী এলাকায় ২ প্লাটুন বিজিবি ও র‌্যাবের ২ টি টিম মোতায়েন থাকবে।”

মিরসরাই থানার ওসি ইমতিয়াজ ভূঁইয়া জানান, ‘মিরসরাই পৌরসভা নির্বাচনে প্রায় ৩০০ পুলিশ সদস্য নির্বাচনে দায়িত্ব পালন করবে। প্রতিটি কেন্দ্রে একজন করে উপ-পরিদর্শক নিয়োজিত থাকবেন। এছাড়া পুলিশের মোবাইল টিম ও স্ট্রাইকিং ফোর্স কেন্দ্র এলাকায় নিরাপত্তা জোরদারে কাজ করবে।’
জোরারগঞ্জ থানার ওসি জাহিদুল কবির জানান, ‘বারইয়ারহাট পৌরসভা নির্বাচনে মোট ১০০ পুলিশ সদস্য নিয়োজিত থাকবেন। প্রতিটি কেন্দ্রে ৫ জন পুলিশ সদস্য, ১জন উপ-পরিদর্শক ও ১৪জন আনসার সদস্য দায়িত্ব পালন করবেন। এছাড়া পুলিশের মোবাইল টিম ও স্ট্রাইকিং ফোর্স কেন্দ্র এলাকায় নিরাপত্তা জোরদারে কাজ করবে।’

সিটিজি টাইমসে প্রকাশিত সংবাদ সম্পর্কে আপনার মন্তব্য

মতামত