টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

রাঙ্গুনিয়া বাসী কেমন মেয়র চাই ?

Vot-motamot-pic-1চট্টগ্রাম, ২৯ ডিসেম্বর (সিটিজি টাইমস):কাল ৩০ ডিসেম্বর রাঙ্গুনিয়া পৌরসভা নির্বাচন। কেমন মেয়র চাই। নতুন মেয়রের কাছে প্রত্যাশা। বর্তমান মেয়রের সফলতা ব্যর্থতা ও ভোটের অনূভুতি  ব্যর্থ করেছেন ভোটাররা। ভোটারের মতামতের চুম্বক অংশ নিয়ে প্রতিবেদন তৈরি করেছেন রাঙ্গুনিয়া প্রতিনিধি আব্বাস হোসাইন আফতাব

উন্নয়নে আন্তরিকতা থাকতে হবে শতভাগ

শুধু নেই নেই করে চিৎকার করলে হবে না। বরাদ্দের প্রতিও নজর দিতে হবে। একজন মেয়র তখন ভালো কিছু করতে পারবেন যখন তিনি স্থানীয় সরকার বিভাগ থেকে ভালো বরাদ্দ পাবেন। তবে আমি আশাবাদী মানুষ। আমি মনেকরি যেটা আজ হচ্ছে না সেটা কাল হবে। এ জন্য প্রয়োজন একজন জনমুখী ও শিক্ষিত মেয়র। পৌর এলাকার উন্নয়নের জন্য তাঁর আন্তরিকতা থাকতে হবে শতভাগ। তাই মেয়র নির্বাচনে ভোটারদের সচেতন হতে হবে। পরিবর্তন নিজের মধ্য থেকেই আসতে হবে। সব বিবেচনা করে ভোট দেব।

আশরাফ উল্লাহ রুবেল
সাংবাদিক

অবাধ নিরপেক্ষ ও সুষ্ঠু নির্বাচন আশা করছি-

পৌরবাসীর প্রত্যাশা পূরনে একটি অবাধ নিরপেক্ষ ও সুষ্ঠু নির্বাচন দরকার । সুষ্ঠু নির্বাচন হলে সঠিক প্রার্থীকে আমরা বেঁচে নেওয়ার সুযোগ পাব। নির্বাচনের মাধ্যমে নির্বাচিত প্রতিনিধি ক্ষমতা গ্রহণ করলে পৌরবাসী বিভিন্নমুখী সংকট থেকে রাতারাতি পরিত্রাণ পাবেন এমন কোন ধারণা ভোটাররা করে বলে আমার মনে হয় না। তবে নিয়মতান্ত্রিক নির্বাচনের মাধ্যমে নির্বাচিত জনপ্রতিনিধি পর্যায়ক্রমে সংকট মোচনে সচেষ্ট হবেন, অনিয়ম দুর্নীতি বন্ধ করার সুষ্ঠু পদ্ধতি চালু করে সত্যিকারের পৌরসভার সাধ জনগণের কাছে পৌছে দেবেন। গনতান্ত্রিক নির্বাচনের মধ্যে দিয়ে সৎ ও যোগ্য প্রার্থী নির্বাচিত হবেন এমনটাই প্রত্যাশা। নুরুল হুদা
সিনিয়র শিক্ষক, পোমরা উচ্চ বিদ্যালয়

সংসার খরচ চাইনা, চাই উন্নয়ন ও সুশাসন

ভোট তো দিতে হবে , নির্বাচিত হলে সাধারণ জনগন কাকে কাছে পাবেন। কাকে মন খুলে সমস্যা বা চাহিদার কথা বলতে পারবেন। কোন প্রার্থী অতীতে কেমন ছিল, নির্বাচিত হলে জনগনের সাথে কে কি রকমের স্বভাব বা আচরন করতে পারে ভোটাররা সব কিছু দেখবেন। নির্বাচিত হওয়ার আগে অনেক প্রার্থীরা মানুষের মন জয় করতে হাঁটু পরিমান কাঁদায় নেমে যায়। নির্বাচিত হয়ে গেলে তখন তারা খুব ব্যস্ত হয়ে যান। খুঁজে পাওয়া যায়না জনপ্রতিনিধিকে। না হয় তারা অন্য কাউকে দায়িত্ব দিয়ে দেন। জনপ্রতিনিধির কাছে সাধারন মানুষ প্রতিদিন নিজের সংসার খরচ চাইনা। চাই এলাকার উন্নয়ন ও সুশাসন। বর্তমান সময়ে একজন নির্বাচিত মেয়রের কাছে সাধারন পৌরবাসীর প্রত্যাশা হচ্ছে রাঙ্গুনিয়া থানার আশে পাশেও পৌর এলাকায় শতভাগ মাদক মুক্ত করা। যোগাযোগ ও পয়:নিষ্কাশন ব্যবস্থা ঠিক রাখা। পৌর এলাকার আভ্যন্তরীন সব রাস্তা প্রশস্ত , পাকাকরন ও সাথে সাথে উন্নত ড্রেনেজ ব্যবস্থা রাখা, পৌরএলাকার কাপ্তাই সড়কে যানজটমুক্ত করতে প্রতিটি বাজারে প্রয়োজনীয় উন্নত ও আধুনিক ব্যবস্থা গ্রহন, প্রতিটি ওয়ার্ডে বা যেখানে খুবই জরুরী সেখানে ডাস্টবিন ও গণশৌচাগার নির্মান, থানা বা আদালতের চাপ কমাতে পৌরসভায় সুশাসন প্রতিষ্ঠায় বিচারালয় স্থাপন, কাউন্সিলরদের কাছে পেতে প্রতিটি ওয়ার্ডে কাউন্সিলর অফিস স্থাপন। পৌরকর, অনুমতিপত্র, বিভিন্ন লাইসেন্স, নামে বেনামে টাকা আদায় এর নামে অতিরিক্ত চাঁদা আদায় বন্ধ করা, পৌরসভাকে দুর্নীতি ও স্বজনপ্রীতি মুক্ত রাখা, জনপ্রতিনিধির ক্ষমতার অপব্যবহার কিংবা তার দলীয়, আত্মীয় পরিচয়ে পৌর নাগরিককের হয়রানী না করা।

মো. কাউসার হোসাইন
ব্যবসায়ী

বিউটিফুল পৌরসভায় রুপান্তর করতে নানামুখী পদক্ষেপ গ্রহন করতে হবে

নতুন মেয়রের কাছে পৌর এলাকাকে একটি আধুনিক ও পরিচ্ছন্ন করতে পৌর এলাকার সাধারণ নাগরিকের অনেক চাহিদা থাকে। তার মধ্যে মেযরের মৌলিক সেবা অন্যতম। পৌর এলাকাকে বিউটিফুল পৌরসভায় রুপান্তর করতে নানামুখী পদক্ষেপ গ্রহন করতে হবে। রাঙ্গুনিয়া পৌরসভাকে ২য় গ্রেড থেকে ১ম গ্রেডে দেখতে চাই। বিগত সময়ে পরিপূর্ন নাগরিক সুবিধা বঞ্চিত ছিল সাধারন মানুষ। পৌর এলাকার আভ্যন্তরীন যোগাযোগ ব্যবস্থা আধুনিকায়ন করতে মেয়রের সময়োপযোগী পদক্ষেপ গ্রহন করা দরকার ।

— রাবেয়া আকতার রাবু
বিউটিশিয়ান ও পরিচারক ওমেন্স ওয়াল্ড বিউটি পার্লার, রোয়াজার হাট

পৌর এলাকার উন্নয়নে বৈষম্য নয়
দীর্ঘদিন ধরে পরিপূর্ন নাগরিক সুবিধা থেকে বঞ্চিত রয়েছে এলাকার মানুষ। পৌরসভাকে এ গ্রেডে উন্নীতকরনে নতুন মেয়রকে আগে উদ্যোগ নিতে হবে। রাঙ্গুনিয়া পৌরসভাকে আধুনিক মানের পৌরসভা হিসেবে দেখতে চাই। বিগত সময়ে পৌর এলাকায় সড়কের ড্রেনেজ ব্যবস্থা ভাল ছিলনা। পৌরসভায় বর্জ্য ব্যবস্থাপনা ও তেমন ভাল নয়। যোগাযোগ ব্যবস্থা উন্নত করতে সড়কের দ্ইু পাশে উন্নত ড্রেনেজ ব্যবস্থা ঠিক রাখতে হবে। পৌর এলাকার উন্নয়নে রাজনৈতিক সহাবস্থান ও বৈষম্য মুক্ত হওয়া প্রয়োজন।

– মাহাবুব ছাফা
রাজনৈতিক নেতারাঙ্গুনিয়া পৌরসভা

ইন্টারনেট থ্রিজি’র হাই স্পীড দেখতে চাই

আধুনিক ও তথ্য প্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে পৌরসভাকে উন্নতমানের করতে বিভিন্ন পদক্ষেপ নিতে হবে। রাঙ্গুনিয়া পৌরসভায় এ গ্রেডে উন্নীতকরনের পাশাপাশি ইন্টারনেট থ্রিজি’র হাই স্পীড দেখতে চাই। বিগত সময়ে নাগরিক সুবিধা মোটামুটি ছিল। যোগাযোগ ব্যবস্থাকে আরো আধুনিকায়ন করতে অন্যান্য সেক্টর থেকে বরাদ্দ বাড়িয়ে যোগাযোগ ব্যবস্থা উন্নয়ন সম্ভব।

সুশাসন প্রতিষ্ঠা হোক

নতুন মেয়রের কাছে আমার প্রত্যাশা এলাকায় সুশাসন প্রতিষ্ঠা। রাঙ্গুনিয়া পৌর এলাকার উন্নয়নে ও এলাকার মানুষের ভাগ্য পরিবর্তনে পৌরসভা অবশ্যই এ গ্রেডে উন্নীত করা দরকার। বিগত সময়ে পৌর এলাকার উন্নয়ন কাজে বৈষম্য ছিল। সব এলাকায় সমানভাবে কাজ হয়নি। আভ্যন্তরীন যোগাযোগ ব্যবস্থা তেমন ভাল নেই। অতিরিক্ত বর্ষনে সড়কে যাতে পানি না জমে সেজন্য উপযোগী পদক্ষেপ নিতে হবে।

– তিমির পদ বডুয়া
আইনজীবি

একটি আদর্শ ও মডেল পৌরসভা হোক

ইভ্টিজিং মাদকমুক্ত পৌরসভা গড়তে নতুন মেয়র বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহন করবেন এটাই প্রত্যাশা করি। রাঙ্গুনিয়া পৌরসভা একটি আদর্শ ও মডেল পৌরসভা হোক। বিগত সময়ে দায়সারা গোছের পৌরসভা চলছিল। এক ওয়ার্ড থেকে অন্য ওয়ার্ডে যাতায়ত ব্যবস্থার উন্নয়ন ও সড়কগুলি পাকাকরন ও প্রশস্থ করতে হবে।

-মুহিদুল ইসলাম লিটন
কম্পিউটার ব্যবসায়ী

যোগাযোগ ব্যবস্থা উন্নত করা দরকার
নতুন মেয়রের কাছে প্রত্যাশা পৌর এলাকার যোগাযোগ ব্যবস্থা আরো উন্নত করা প্রয়োজন। মুরাদ নগর ওয়ার্ডের সড়কটি অবস্থা খুবই নাজুক। ড্রেনেজ ব্যবস্থা উন্নত না হওয়ায় সড়কে পানি জমে সড়ক নষ্ট হয়ে যায়। ড্রেনেজ ব্যবস্থা উন্নত করতে হলে ভাল মানের নির্মান কাজ করতে হবে। একজন সৎ নীতিবান মানুষ মেয়র নির্বাচিত হলে ভাল লাগবে। আমি রাঙ্গুনিয়া পৌরসভাকে প্রথম পর্যায়ে দেখতে চাই।

– কুলছুমা বেগম
চাকুরীজীবি

পর্যাপ্ত লাইটিং নেই পৌর এলাকায়

আধুনিক পরিচ্ছন ও সুন্দর পৌরসভা গড়তে একজন সৎ ও যোগ্য প্রার্থী প্রয়োজন । আধুনিক পৌরসভা করতে হলে পৌরসভা এ গ্রেডে উন্নীত হতে হবে। পরিপূর্ন নাগরিক সুবিধা পৌরবাসীরা পাচ্ছেনা। পৌর এলাকার আভ্যন্তরীন সড়কে পর্যাপ্ত লাইটিং নেই। লাইটিং থাকলেও লাইট সব সময় নষ্ট থাকে। পৌর কর্তৃপক্ষের অবহেলায় আলোকিত পৌর এলাকা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে।

– উৎপল বড়ুয়া
চিকিৎসক

যানজটমুক্ত পৌর এলাকা চাই
সৎ নীতিবান একজন পৌর মেয়র চাই। যিনি এলাকার সুখে দুখে পাশে থাকবেন।
পৌর এলাকার কাপ্তাই সড়কে সব সময় যানজট লেগে থাকে। পর্যাপ্ত ট্রাফিক ব্যবস্থা ও ফুটপাত দখলমুক্ত করে পৌর এলাকাকে যানজটমুক্ত করতে হবে। সিএনজি রাখার একটি আলাদা টার্মিনাল নির্মান করলে যানজট নিরসন হবে।

– মো. আলমগীর, অটো রিক্সা চালক

মশক নিধনে কার্যকরী উদ্যোগ চাই

পৌরবাসীর স্বাস্থ্য রক্ষা ও মশক মুক্ত পৌর এলাকা গড়তে মশক নিধনে কার্যকরী পদক্ষেপ নিতে হবে। নতুন মেয়রের কাছে নাগরিকের বিভিন্ন প্রত্যাশা থাকলেও নাগরিকদের মৌলিক চাহিদা বাস্তবায়নে মেয়রের আন্তরিক সহযোগিতা থাকা দরকার। বিগত সময়ে নাগরিক সুবিধা বঞ্চিত ছিল এলাকার মানুষ । নতুন মেয়র নব উদ্যমে পৌরবাসীকে নাগরিক সেবা দিতে সক্ষম হবে আশা করি।

-এহসান হাবীব
প্রবাসী

ইভ্টিজিং মুক্ত পৌর এলাকা চাই
পৌরসভার উন্নয়নে নতুন মেয়র নতুন নতুন উন্নয়নকাজ করবেন এটা পৌরবাসী আশা করে। স্কুল কলেজে যাতায়তে শিক্ষার্থীরা নানামুখী সমস্যায় পড়ে। বিশেষ করে ইভটিজিং মুক্ত পৌর এলাকা করতে হলে নতুন মেয়রকে সাহসী পদক্ষেপ নিতে হবে। স্কুল কলেজে যাতায়তে সুস্থ পরিবেশ ফিরিয়ে আনতে সময়োপযোগী পদক্ষেপ গ্রহন করতে হবে।

– নিলু আকতার, কলেজ ছাত্রী

পৌর শৌচাগার ও ডাস্টবিন চাই

পৌরসভার বিভিন্ন এলাকায় নিষ্কাষনের জন্য বর্জ্য ব্যবস্থাপনা নেই। বিশেষ করে রোয়াজার হাট এলাকার মতো গুরুত্বপূর্ন স্থানে নির্দিস্ট কোনো ডাস্টবিন নেই। নাগরিকদের পৌর সুবিধা নিশ্চিত করতে হলে আবর্জনামুক্ত পৌরসভা গড়তে হবে। পৌর এলাকার গুরুত্বপূর্ন স্থানে শৌচাগার নির্মান করতে সময়োপযোগী পদক্ষেপ নিতে হবে।

—আবদুস সালাম ব্যবসায়ী নেতা

মতামত