টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

চট্টগ্রামে ১১৯ কেন্দ্রই ঝুঁকিপূর্ণ

চট্টগ্রাম, ২৯ ডিসেম্বর (সিটিজি টাইমস):  আসন্ন পৌর নির্বাচনে সরকার দলীয় লোকজনের হামলা, হুমকি-ধামকি ও পুলিশী হয়রানির মধ্যেই চট্টগ্রামে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে ভোট গ্রহণ।

চট্টগ্রামের মানুষ ভোট উৎসবের অপেক্ষা করলেও সবার মাঝে বিরাজ করছে এক ধরণের চাপা আতঙ্ক। নির্বাচনী প্রচারণার শেষে সোমবার সাতকানিয়ায় বিএনপি সমর্থিত প্রার্থীর গাড়িবহরে সরকার দলীয় ক্যাডারদের হামলা বাড়িয়েছে আরো আতঙ্ক। পৌর নির্বাচনকে কেন্দ্র করে আইনশৃঙ্খলা রক্ষ্কাারী বাহিনী ব্যাপক প্রস্তুতি নিলেও আতঙ্ক কাটছেনা সাধারণ মানুষ ও বিরোধী দলীয় নেতাকর্মীদের মাঝে। চট্টগ্রামের ১০টি পৌরসভায় মোট ১৩৩টি ভোট কেন্দ্রের মধ্যে ১১৯টিই ঝুঁকিপূর্ণ ।

গতকাল সোমবার মধ্যরাত থেকে বন্ধ হয়ে গেছে নির্বাচনী সকল প্রচার-প্রচারণা।এরই মধ্যে চট্টগ্রামের দশ পৌরসভায় ভোটগ্রহণের সব ধরনের প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে। নির্বাচনী এলাকায় পৌঁছে গেছে ভোটগ্রহণের সরঞ্জাম। আজ ভোট গ্রহণ কর্মকর্তারা পুলিশ প্রহরায় কেন্দ্রে কেন্দ্রে নিয়ে যাবেন ব্যালট পেপারসহ সকল নির্বাচনী সামগ্রী। এদিকে বিজিবি-পুলিশ ও র‌্যাবের সমন্বয়ে নিরাপত্তার প্রস্তুতিও সম্পন্ন হয়েছে।

চট্টগ্রামের আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা মো. আব্দুল বাতেন জানান, সুষ্ঠু ও সুন্দরভাবে ভোটগ্রহণের জন্য আমরা সব ধরনের প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছি। পুলিশ প্রহরায় আজ কেন্দ্রে কেন্দ্রে নির্বাচনী সামগ্রী নিয়ে যাওয়া হবে। সুষ্ঠূ নির্বাচনের ব্যাপারে তিনি আশাবাদী বলে জানান।

চট্টগ্রামের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (বিশেষ শাখা) কাজী আব্দুল আউয়াল জানান, বুধবার পৌর নির্বাচনকে কেন্দ্র করে অতিরিক্ত পুলিশ ও বিজিবি,র‌্যাব এবং আনসার পৌরসভাগুলোতে টহল শুরু করেছে। কোন ধরনের বিশৃঙ্খলা যাতে না ঘটে সেই ব্যাপারে পর্যাপ্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। চট্টগ্রামের ১০ পৌরসভায় নির্বাচনী দায়িত্ব পালন করবেন ৪ হাজারের মতো আনসার পুলিশ। ২১শ’ অস্ত্রধারী পুলিশ এবং ১৯শ’ আনসারের পাশাপাশি ১৩ প্লাটুন বিজিবি সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে। এর মধ্যে সাতটি পৌরসভায় এক প্লাটুন করে এবং তিনটি পৌরসভায় দুই প্লাটুন করে বিজিবি সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে।

তিনটি কেন্দ্র মিলে থাকবে একজন ম্যাজিস্ট্রেটসহ টহল টিম। পাঁচটি কেন্দ্র মিলে থাকবে স্ট্রাইকিং ফোর্স। থানায় স্ট্যান্ডবাই ফোর্সও রাখা হবে। মোবাইল কোর্ট থাকবে। মোবাইল কোর্ট যে কাউকে জরিমানা করতে পারবে।

নির্বাচন কমিশন সূত্রে জানা যায় , চট্টগ্রামের ১০ পৌরসভায় মোট ৪৪৯জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এদের মধ্যে মেয়র পদে ৩৪ জন, সাধারণ কাউন্সিলর পদে ৩৩৮ জন ও সংরক্ষিত কাউন্সিলর পদে ৭৭ জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। মেয়র পদে ছয়জন প্রার্থী সীতাকুণ্ডে, মীরসরাইয়ে মেয়র পদে চারজন, বারইয়ারহাটে ৩ জন, সন্দ্বীপে ২ জন, রাউজানে ৩ জন,রাঙ্গুনিয়ায় ৪ জন, পটিয়ায় ৪ জন, চন্দনাইশে ৪ জন, সাতকানিয়ায় ৩ জন ও বাঁশখালীতে ২ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

১০ পৌরসভায় মোট ভোটার সংখ্যা ৪ লক্ষ ৭ হাজার ২১৫ জন। ভোটকেন্দ্রের সংখ্যা ২০৯ টি, ভোট কক্ষের সংখ্যা ১২৩৪টি, অস্থায়ী ভোট কেন্দ্রের সংখ্যা ২টি,অস্থায়ী ভোটকক্ষের সংখ্যা ৫০টি।

১০ পৌরসভায় ৪০ জন ম্যাজিস্ট্রেট দায়িত্ব পালন করছেন : চট্টগ্রামে যে ১০টি পৌরসভায় নির্বাচন হচ্ছে সেই পৌর এলাকায় আইনশৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণে রাখতে গত ১৩ ডিসেম্বর থেকে মাঠে নেমেছিলেন ১০ ম্যাজিস্ট্রেট। তাদের সাথে গত রোববার থেকে মাঠে নেমেছেন আরও ৩২ ম্যাজিস্ট্রেট। সবমিলিয়ে ১০ পৌরসভায় দায়িত্ব পালন করছেন ৪২ জন ম্যাজিস্ট্রেট।

সিটিজি টাইমসে প্রকাশিত সংবাদ সম্পর্কে আপনার মন্তব্য

মতামত