টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

রাঙামাটির হোটেল মোটেলে চারদিনের সরকারি নিষেধাজ্ঞা

চট্টগ্রাম, ২৮ ডিসেম্বর (সিটিজি টাইমস): রাঙামাটি পৌরসভা নির্বাচন যাতে অবাধ ও সুষ্ঠু হয় সেই লক্ষ্যে সকল হোটেল মোটেল থেকে সোমবার দুপুরের মধ্যে বহিরাগতদেরকে হোটেল ত্যাগের নির্দেশ দিয়েছে রাঙামাটি জেলা প্রশাসন।

জেলা রিটার্নিং অফিসার মোঃ মোস্তফা জামান এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

সোমবার বিকেলে রাঙামাটি জেলা প্রশাসক সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত এক বিশেষ সভায়, পৌর নির্বাচনকে অবাধ ও সুষ্ঠু করার লক্ষ্যে শহরে অবস্থানরত পর্যটকবৃন্দসহ বহিরাগত সকলকে সোমবার দুপুর ১২ টার মধ্যে হোটেল ত্যাগের নিদের্শ প্রদান করে এই নির্দেশনা বাস্তবায়নের জন্য রাঙামাটির হোটেল-মোটেল মালিকদের অনুরোধ জানিয়েছেন রাঙামাটি জেলা প্রশাসক মোঃ সামসুল আরেফিন।

রাঙামাটি জেলা রিটার্নিং অফিসার ও অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মোঃ মোস্তফা জামান জানিয়েছেন, সোমবার ২৮ শে ডিসেম্বর দুপুর ১২ টা থেকে পরবর্তী নির্দেশনা না দেওয়া পর্যন্ত রাঙামাটি শহরের স্থায়ী বাসিন্দা ব্যতিত অন্য কোনো ব্যক্তি হোটেল মোটেলে অবস্থান করতে পারবে না।

এ লক্ষ্যে বহিরাগতদের হোটেল ত্যাগ নিশ্চিত করতে শহরের সকল হোটেল-মোটেল মালিকসহ সংশ্লিষ্ট সকলকে প্রয়োজনীয় নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

রিটার্নিং অফিসার জানান, প্রধান নির্বাচন কমিশন কার্যালয় থেকে জারিকৃত নির্দেশনা অনুযায়ী এই ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। এটি সারাদেশে যে সকল পৌরসভায় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হচ্ছে, সেইসকল পৌর এলাকার জন্য প্রযোজ্য।

তিনি জানান পর্যটন শহর রাঙামাটিতে আগত পর্যটক ও এর সাথে জড়িত সংশ্লিষ্ট সকলের সাময়িক ক্ষতির জন্য আমরা আন্তুরিকভাবে দুঃখ প্রকাশ করছি। কিন্তু বৃহত্তর স্বার্থে এই সাময়িক কষ্ট মেনে নিতে হবে।

এদিকে, রাঙামাটি হোটেল মোটেল মালিক সমিতির যুগ্ম সম্পাদক হোটেল প্রিন্স এর স্বত্তাধিকারী নেসার আহম্মেদ জানিয়েছেন, জেলা প্রশাসক মহোদয় আমাদের সকল হোটেল মালিকদের ডেকে বৈঠকের মাধ্যমে জানিয়ে দিয়েছেন যে, এবং সোমবার দুপুর থেকে পরবর্তী নির্দেশনা না দেওয়া পর্যন্ত শহরের হোটেল-মোটেলগুলোতে কোনো প্রকার বহিরাগতরা যাতে অবস্থান করতে না পারে এবং এই নিষেধাজ্ঞা চলাকালীন সময়ে কাউকে যাতে অবস্থানের সুযোগ দেওয়া না হয় সে বিষয়টি নিশ্চিত করতে হবে।

তিনি জানান, এই নিষেধাজ্ঞা পাওয়ার পর আমরা সকল বুকিং বাতিল করেছি। এতে করে এই কয়দিনে আমাদের অন্তত কোটি টাকার ক্ষতি হবে।

মতামত