টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

গৃহকর্মী সুরক্ষা নীতিমালা মন্ত্রিসভায় অনুমোদন

চট্টগ্রাম, ২১ ডিসেম্বর (সিটিজি টাইমস):  বাংলাদেশের প্রায় ৩০ লাখ গৃহকর্মীকে আইনি সুরক্ষা দিতে ‘গৃহকর্মী সুরক্ষা ও কল্যাণ নীতি ২০১৫’ অনুমোদন করেছে সরকার।

সোমবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে মন্ত্রিসভার বৈঠকে এ অনুমোদন দেওয়া হয়।

মন্ত্রিসভার বৈঠক শেষে ব্রিফকালে এ তথ্য জানান মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম।

তিনি জানান, গৃহকর্মীদের সুরক্ষা নীতিমালা অনুমোদনের ফলে গৃহকর্ম শ্রম হিসেবে স্বীকৃতি পাবে এবং চার মাসের মাতৃত্বকালীন ছুটিও পাবেন গৃহকর্মীরা।

মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, এই নীতিমালা অনুমোদন পাওয়ায় শ্রম আইন অনুযায়ী গৃহকর্মীরা বিভিন্ন সুযোগ-সুবিধা পাবেন।

তিনি বলেন, সর্বনিম্ন ১৪ বছরের কাউকে গৃহকর্মী নিয়োগ দেওয়া যাবে। গৃহকর্মীদের শ্রমঘণ্টা এবং বেতন আলাপ-আলোচনার মাধ্যমে ঠিক করতে হবে।

নীতিমালায় গৃহকর্মীদের বিশ্রামের পাশাপাশি বিনোদনের সময় দেওয়ারও নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে বলে জানান শফিউল।

তিনি বলেন, গৃহকর্মীদের নির্যাতন করলে প্রচলিত আইন অনুযায়ী সরকার ব্যবস্থা নেবে।

নতুন নীতিতে শ্রম আইনের আওতায় আসতে যাচ্ছেন সারা দেশের ৩০ লাখ গৃহকর্মী।

শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, গৃহকর্মীদের সুরক্ষা ও কল্যাণের জন্য নীতি প্রণয়নের উদ্যোগ বেশ পুরনো। নানা কারণে এটি আটকে ছিল। সম্প্রতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এতে সম্মতি দেন। এরপর দ্রুত গতিতে নীতিটির খসড়া তৈরি করা হয়।

বাংলাদেশে গৃহকর্মীর সংখ্যা প্রায় ৩০ লাখ। তাদের সুরক্ষার জন্য কোনো নীতি বা আইন ছিল না। তাদের মজুরি, কল্যাণ ও অন্যান্য সুবিধার বিষয়টি নিয়োগকর্তার ইচ্ছার ওপর নির্ভর করে। গৃহকর্মীদের নির্যাতনের ঘটনাও অহরহ ঘটে। খুব কম ঘটনাই আলোচনায় আসে। তাদের সুরক্ষা দেয়ার জন্য সরকারের তদারকি, নজরদারি ছিল না।

সোমবারের মন্ত্রিসভা বৈঠকে জাতীয় সংসদে ২০১৬ সালের প্রথম অধিবেশনে রাষ্ট্রপতির ভাষণের খসড়ার অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।

এছাড়া বাংলাদেশ বিনিয়োগ কর্তৃপক্ষ আইনের খসড়া এবং বাংলাদেশ ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প করপোরেশন আইনের খসড়াও অনুমোদন পেয়েছে মন্ত্রিসভায়।

সিটিজি টাইমসে প্রকাশিত সংবাদ সম্পর্কে আপনার মন্তব্য

মতামত