টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

চট্টগ্রাম কলেজ: শিবিরের ১৪ নেতাকর্মীকে কারাগারে প্রেরণ

চট্টগ্রাম, ১৭ ডিসেম্বর (সিটিজি টাইমস):  চট্টগ্রাম সরকারি কলেজ থেকে আটক ছাত্রশিবিরের ১৪ নেতাকর্মীকে কারাগারে পাঠিয়েছে আদালত।

অস্ত্র ও বিস্ফোরক আইনে দায়ের হওয়া দু’টি মামলায় গ্রেপ্তার দেখিয়ে বৃহস্পতিবার বিকেলে তাদের চট্টগ্রাম মহানগর হাকিম নওরিন আক্তার কাকনের আদালতে হাজির করে পুলিশ।

রিমাণ্ডের আবেদন না থাকায় মহানগর হাকিম তাদের কারাগারে পাঠানোর আদেশ দিয়েছেন বলে নগর পুলিশের সহকারি কমিশনার (প্রসিকিউশন) নির্মলেন্দু বিকাশ চক্রবর্তী।

বুধবার বিজয় দিবসে চট্টগ্রাম কলেজে শহীদ মিনারে ফুল দেয়া নিয়ে শিবিরের সাথে ছাত্রলীগের সংঘর্ষ হয়।

প্রায় দুই ঘণ্টাব্যাপী সংঘাতের এক পর্যায়ে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা গেট ভেঙ্গে চট্টগ্রাম কলেজের ভেতরে ঢুকে যায়। সেখানে বিভিন্ন ভবনে তারা ইট-পাটকেল নিক্ষেপ করে ভাংচুর চালায়। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে শিবির কর্মী সন্দেহে দুপুর পর্যন্ত অন্তত ৬৬ জনকে আটক করে, তবে তাদের বেশিরভাগই ছিল ছাত্রলীগের নেতাকর্মী। এরপর রাতে চট্টগ্রাম কলেজ ও এর সামনাসামনি মহসিন কলেজের সব হোস্টেল বন্ধ ঘোষণা করা হয়।

এরপর অস্ত্র-বিস্ফোরক উদ্ধারের ঘটনায় নগরীর চকবাজার থানায় ছাত্রশিবিরের নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে দু’টি মামলা দায়ের করা হয়। দু’টি মামলায় মোট শিবিরের ১১৩ জন নেতাকর্মীকে আসামি করা হয়েছে।

বুধবার গভীর রাতে থানার উপ-পরিদর্শক (এস আই) মো.কামাল হোসেন বাদি হয়ে মামলা দু’টি দায়ের করেন।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, ১৯০৮ সালের অস্ত্র আইনে এবং ১৯৪৭ সালের বিস্ফোরক আইনে মামলা দু’টি দায়ের করা হয়েছে। মামলা নম্বর ৩ ও ৪।

বিস্ফোরক আইনের মামলায় আটক থাকা ১৪ জনকে আসামি করা হয়েছে। এছাড়া অজ্ঞাতনামা আরো ৯০ থেকে ৯৫ জনকে আসামি করা হয়েছে।

বিস্ফোরক আইনের ১৬ (২) ধারার সঙ্গে মামলার বাদি এজাহারে দন্ডবিধির ১৪৭, ১৪৮, ১৪৯ ও ৪২৭ ধারাও সংযুক্ত করেছেন।

হোস্টেল থেকে চারটি কিরিচ, ৬টি হকিস্টিক, তিনটি পিস্তলের গুলির খোসা উদ্ধারের দাবি করে অস্ত্র আইনের ১৯ (১) ধারার মামলায় আটক থাকা চারজনকে আসামি করা হয়েছে।

বুধবার চট্টগ্রাম কলেজ থেকে ৬৬ জনকে আটক করা হলেও ১৪ জন ছাড়া বাকি সবাইকে আওয়ামী লীগ নেতারা রাতে ছাড়িয়ে নিয়ে গেছেন বলে পুলিশ জানিয়েছে।

সিটিজি টাইমসে প্রকাশিত সংবাদ সম্পর্কে আপনার মন্তব্য

মতামত