টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

আমাদের ধৈর্যের সীমা আছে, রাশিয়াকে তুরস্ক

চট্টগ্রাম, ১৫ ডিসেম্বর (সিটিজি টাইমস): তুরস্কের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মেভলুত কাভাসগলু বলেছেন, রাশিয়া যে ধরনের আচরণ করছে, তাতে তার দেশের ধৈর্যচ্যুতি ঘটছে। 

রবিবার রুশ যুদ্ধজাহাজ থেকে তুরস্কের একটি মাছ ধরার নৌযানকে গুলি ছুড়ে সতর্ক করার ঘটনার প্রতিক্রিয়া জানাতে এ কথা বলেন তুর্কি পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

গত মাসে তুর্কি গোলায় রুশ যুদ্ধবিমান বিধ্বস্ত হওয়া ও এর জেরে দেশটির ওপর রাশিয়ার অবরোধ আরোপ নিয়ে ইতিমধ্যেই দুই পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা চলছে।

ইতালির বহুল প্রচারিত দৈনিক পত্রিকা কোরিয়েরে দেলা সেরাকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে গতকাল সোমবার নৌযানে গুলি করার ঘটনাকে ‘বাড়াবাড়ি’ বলে আখ্যায়িত করেন তুরস্কের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মেভলুত কাভাসগলু।

রবিবার রাশিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় জানায়, ইজিয়ান সাগরে থাকা তাদের একটি যুদ্ধজাহাজ তুরস্কের একটি মাছ ধরা নৌযানকে সতর্ক করে দিতে গুলি ছুড়েছে। তুরস্কের নৌযানটি খুব কাছে এসে পড়েছিল। সংঘর্ষ এড়াতেই তাকে সতর্ক করে দেওয়া হয়। প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের বিবৃতিতে বলা হয়, রুশ ডেস্ট্রয়ার স্মেৎলিভির কর্মীদের বারবার সতর্কতার পরও তুর্কি নৌযানের কর্মীরা বেতার যোগাযোগ করেননি।

ওই ঘটনার প্রতিক্রিয়ায় তুর্কি পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘আমাদের নৌযানটি ছিল মাছ ধরার। এ ঘটনায় রাশিয়া যে প্রতিক্রিয়া দেখিয়েছে, তা আমার কাছে অতিরিক্ত মনে হয়েছে।’

কাভাসগলু বলেন, রাশিয়া ও তুরস্কের মধ্যে আস্থার যে সম্পর্ক ছিল, তা পুনঃস্থাপন করতে হবে। তবে আমাদের ধৈর্যেরও সীমা আছে।’

তুর্কি পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন অভিযোগ করেছেন, জঙ্গি সংগঠন ইসলামিক স্টেটকে (আইএস) তেল সরবরাহ নিশ্চিত করতেই তুরস্ক রাশিয়ার যুদ্ধবিমান বিধ্বস্ত করেছে। এ কথা বলে রাশিয়া নিজেদের একটি হাস্যকর অবস্থানে নিয়ে গেছে। কেউ এ কথা বিশ্বাস করে না।’

কাভাসগলু সিরিয়ায় রাশিয়ার সামরিক অভিযানের সমালোচনা করে বলেন, সিরিয়ার প্রেসিডেন্ট বাশার আল-আসাদের ক্ষমতায় থাকাকে দীর্ঘায়িত করতেই এ অভিযান, আইএসের সঙ্গে যুদ্ধের জন্য নয়।

তিনি বলেন, ‘রাশিয়া এযাবৎ সিরিয়ায় যত বিমান হামলা চালিয়েছে, তার মাত্র ৮ শতাংশ আইএসের বিরুদ্ধে। বাকি ৯২ শতাংশই আসাদবিরোধী বিদ্রোহীদের ওপর।’

পুতিন-এরদোগান বৈঠক বাতিল
এদিকে ক্রিমিয়ার জ্বালানি কোম্পানি চেরনোমরনেফটেগাজ গতকাল জানায়, কৃষ্ণ সাগরে তাদের একটি নৌযানের ‘পথে বাধা সৃষ্টি করায়’ তুরস্কের পতাকাবাহী একটি বাণিজ্যিক নৌযানকে পথ পরিবর্তন করতে বাধ্য করেছে দুটি রুশ নৌযান।

এমন প্রেক্ষাপটে গতকালই রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন ও তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়্যেপ এরদোগানের মধ্যে আজকের নির্ধারিত শীর্ষ বৈঠক বাতিলের খবর আসে।

রুশ প্রেসিডেন্টের দপ্তরের মুখপাত্র দিমিত্রি পেসকভ গতকাল সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে দুই নেতার শীর্ষ বৈঠক বাতিলের খবর দেন।

সেন্ট পিটার্সবুর্গে বৈঠকটি হওয়ার কথা ছিল। গত মাসে তুরস্কে জি ২০ সম্মেলনের ফাঁকে অনুষ্ঠিত দুজনের বৈঠকে এ শীর্ষ বৈঠকের বিষয়ে মতৈক্য হয়।

সূত্র: রয়টার্স

সিটিজি টাইমসে প্রকাশিত সংবাদ সম্পর্কে আপনার মন্তব্য

মতামত