টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

চট্টগ্রামে প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষা নেই ৮ মেয়র প্রার্থীর

চট্টগ্রাম, ১২ ডিসেম্বর (সিটিজি টাইমস):চট্টগ্রামে ১০ পৌরসভা নির্বাচনে ৪৬ মেয়র প্রার্থীর মধ্যে আটজন অক্ষরজ্ঞানসম্পন্ন বা স্বশিক্ষিত। অষ্টম শ্রেণী পর্যন্ত পড়েছেন তিনজন প্রার্থী, মাধ্যমিক পাস করেছেন পাঁচজন। মাদরাসায় শিক্ষিত তিনজন ও উচ্চমাধ্যমিক পাস করেছেন ৯ মেয়রপ্রার্থী। এমএ পাস দুইজন এবং স্নাতক পাস করেছেন ১২ মেয়রপ্রার্থী। এছাড়া শিক্ষাগতযোগ্যতা ‘প্রযোজ্য নহে’ উল্লেখ করেছেন আরও চার মেয়রপ্রার্থী। উচ্চশিক্ষিতদের অধিকাংশই আওয়ামী লীগের প্রার্থী। মনোনয়নপত্রের সঙ্গে জমা দেয়া হলফনামায় প্রার্থীরা এ বিষয়টি তুলে ধরেছেন।

এদিকে অভিযোগ উঠেছে, হলফনামায় দেয়া তথ্যের সঙ্গে কারও কারও ক্ষেত্রে বাস্তবের অমিল রয়েছে। সনদ জোগাড়ের ‘ঝামেলা’ এড়ানোর জন্য অনেক প্রার্থী হলফনামায় প্রকৃত তথ্য দেন না বলে জানা গেছে। এনিয়ে ভোটারদের মধ্যেও কৌতূহল দেখা দিয়েছে। ২০১১ সালের পৌর নির্বাচনে পটিয়ায় জাতীয় পার্টির প্রার্থী মোঃ শামসুল আলম তার হলফনামায় লিখেছিলেন তিনি অক্ষরজ্ঞানসম্পন্ন। অথচ এলাকায় তিনি শামসুল আলম মাস্টার হিসেবে পরিচিত। পাঁচ বছরের ব্যবধানে ২০১৫ সালের নির্বাচনের হলফনামায় শামসুল আলম লিখেন এসএসসি পাস। এ বিষয়ে জানতে চাওয়া হলে শামসুল আলম বলেন, শিক্ষাগতযোগ্যতার কথা লিখলে সনদ দিতে হয়। এসব সনদ খুঁজে বের করা সময়ের ব্যাপার। তাই গতবারের নির্বাচনে অক্ষরজ্ঞানসম্পন্ন উল্লেখ করেছিলাম। এগুলো কোনো ব্যাপার নয়। অক্ষরজ্ঞানসম্পন্ন মেয়র প্রার্থীরা হলেন রাউজান পৌরসভায় মেয়রপ্রার্থী উত্তর জেলা বিএনপি সভাপতি আবদুল্লাহ আল হাসান, সাতকানিয়ায় বিএনপি প্রার্থী ব্যবসায়ী রফিকুল আলম, জাতীয় পার্টির মোঃ ইউছুফ চৌধুরী, রাঙ্গুনিয়ার স্বতন্ত্র প্রার্থী মফিজুল ইসলাম, সীতাকুন্ডে বিএনপি প্রার্থী সৈয়দ আবুল মনছুর ও জাতীয় পার্টির নুরুন্নবী ভূঁইয়া, চন্দনাইশে স্বতন্ত্র প্রার্থী জসিম উদ্দিন আহমেদ এবং বারৈয়ারহাটে বিএনপি প্রার্থী মঈনউদ্দিন লিটন। অষ্টম শ্রেণী পাস মেয়র প্রার্থীরা হলেন সীতাকুন্ডে স্বতন্ত্র প্রার্থী সিরাজদৌল্লা ও শফিউল আলম, মিরসরাইয়ে ইসলামী শাসনতন্ত্রের আরিফ মঈনুদ্দিন। এসএসসি পাস মেয়র প্রার্থীরা হলেন রাউজানে আওয়ামী লীগের দেবাশীষ পালিত, পটিয়ার স্বতন্ত্র প্রার্থী মুহাম্মদ ইব্রাহিম, রাঙ্গুনিয়ায় বিএনপির হেলাল উদ্দিন খান, জাতীয় পার্টির মোঃ শামসুল আলম, মিরসরাইয়ে বিএনপি প্রার্থী এ জেড এম রফিকুল ইসলাম।

এইচএসসি পাস মেয়র প্রার্থীরা হলেন মিরসরাইয়ে জাতীয় পার্টির এরশাদ উল্লাহ, রাঙ্গুনিয়ায় স্বতন্ত্র প্রার্থী নুরুল আমিন ও মোজাম্মেল হক, সন্দ্বীপে আওয়ামী লীগের জাফর উল্লাহ, পটিয়ায় ইসলামী ফ্রন্টের আবু তাহের মোজাহিদী, রাউজানে আওয়ামী লীগের স্বপন কুমার দাশ, চন্দনাইশে এলডিপির মোঃ আইয়ুব, বারৈয়ারহাটে আওয়ামী লীগের মোঃ নিজাম উদ্দিন এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী ফজলুল করিম সেলিম। মাদরাসায় শিক্ষিত মেয়র প্রার্থীরা হলেন রাউজানে স্বতন্ত্র প্রার্থী মীর মোঃ মনছুর আলম, রাঙ্গুনিয়ায় ইসলামী ফ্রন্টের আবদুর রহমান জামী, চন্দনাইশে ইসলামী ফ্রন্টের আবদুল হাকিম।

স্নাতক পাস মেয়র প্রার্থীরা হলেন রাউজানে স্বতন্ত্র প্রার্থী আনোয়ারুল ইসলাম ও সাইফুল ইসলাম চৌধুরী, রাঙ্গুনিয়ায় আওয়ামী লীগের শাহজাহান শিকদার, স্বতন্ত্র প্রার্থী ইমাম হোসেন এবং কামরুল ইসলাম, সন্দ্বীপে বিএনপির আজমত আলী বাহাদুর, সীতাকুন্ডের স্বতন্ত্র প্রার্থী তাওহীদুল হক চৌধুরী, আওয়ামী লীগের বদিউল আলম, চন্দনাইশে আওয়ামী লীগের মাহাবুল আলম, মিরসরাইয়ে আওয়ামী লীগের গিয়াস উদ্দিন, বারৈয়ারহাটের স্বতন্ত্র প্রার্থী রেজাউল করিম এবং বাঁশখালীতে জাতীয় পার্টির ইব্রাহিম আল হোসাইন। স্নাতকোত্তর পাস করা মেয়র প্রার্থীরা হলেন সাতকানিয়ায় আওয়ামী লীগের মোঃ জোবায়ের এবং পটিয়ায় আওয়ামী লীগের মুহাম্মদ হারুনুর রশিদ।

এ বিষয়ে সুশাসনের জন্য নাগরিক (সুজন) চট্টগ্রামের সভাপতি সিকান্দার খান বলেন, সৎ, যোগ্য ও শিক্ষিত মানুষ নির্বাচনে কম আসছে। অনেক প্রার্থীর প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষাগতযোগ্যতা না থাকাটা হতাশাব্যঞ্জক।-আলোকিত বাংলাদেশ

মতামত