টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

রাউজানে আ.লীগ প্রার্থীর বিরুদ্ধে বিভিন্ন অভিযোগে একাট্টা বিদ্রোহী ৪ প্রার্থী

এস.এম. ইউসুফ উদ্দিন
রাউজান প্রতিনিধি

চট্টগ্রাম, ১০ ডিসেম্বর (সিটিজি টাইমস): চট্টগ্রামের রাউজান পৌরসভা নির্বাচনে কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগ ঘোষিত মেয়র প্রার্থি সাবেক মেয়র দেবাশীষ পালিতের বিরুদ্ধে একাট্টা হয়ে মাঠে নেমেছেন একই দলের তৃণমূলের রাজনীতির সাথে সম্পৃক্ত চার প্রার্থি। দেবাশীষের মনোনয়ন বাতিল চেষ্ঠায় সফল হওয়ার লক্ষ্যে ভিন্ন ভিন্ন অভিযোগ নিয়ে বৃহষ্পতিবার দুপুরে ঢাকায় নির্বাচন কমিশনে জমা দেন দেবাশীষ বিরোধী প্রার্থি আনোয়ারুল ইসলাম, সাইফুল ইসলাম চৌধুরী রানা, স্বপন দাশ গুপ্ত, মীর মো. মনসুর আলম। উপজেলা, জেলা রিটার্নিং অফিসারের কাছে সুফল না পেয়ে তারা ঢাকাস্থ নির্বাচন কমিশনে অভিযোগ দিতে চার প্রার্থি একজোট হয়ে ঢাকায় গেলেন।

গত বুধবার পৌরসভা নির্বাচনের আনুষ্ঠানিক প্রচারণা শুরু হলেও এলাকায় গণসংযোগ, প্রচার-প্রচারনার দিকে যেন খেয়াল নেই কোন মেয়র প্রার্থির। বরং আওয়ামীলীগ ঘোষিত প্রার্থির মনোনয়ন বাতিল করার চেষ্ঠায় ব্যস্ত ৪ মেয়র প্রার্থি। এািদকে কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগ প্রার্থি বনাম স্থানীয় আওয়ামীলীগ প্রার্থিদের দ্বন্দের সুযোগে বিএনপির একক প্রার্থি বর্তমান মেয়র কাজী আবদুল­াহ আল হাসান নির্বাচনী এলাকায় শলা পরামর্শ শুরু করে দিয়েছেন প্রতিবেশীদের নিয়ে। বিভিন্ন সূত্রে থেকে জানা যায়, গত শনিবার মনোনয়নপত্র যাচাই বাছাইকালে বিগত নির্বাচন ও চলতি নির্বাচনী হলফনামায় শিক্ষাগত যোগ্যতার ভূল ধরে আওয়ামীলীগ প্রার্থি দেবাশীষের বিরুদ্ধে আপত্তি তোলেন একই দলের ‘স্বতন্ত্র’ নামের চার প্রার্থি আনোয়ারুল ইসলাম, সাইফুল ইসলাম চৌধুরী রানা, স্বপন দাশ গুপ্ত, মীর মো. মনসুর আলম। তবে সেই আপত্তি উপজেলা রিটার্নিং অফিসার কূলপ্রদীপ চাকমা আমলে না নেয়ায় তারা পুণরায় অভিযোগ করেন জেলা রিটার্নিং বরাবরে। গত বুধবার তাও খারিজ করে দেন জেলা রিটার্নিং অফিসার। তবে এই বিষয় নিয়ে না’ছাড়বান্দা যেন ওই চার প্রার্থি। এব্যাপারে বিদ্রোহী মেয়রপ্রার্থী সাইফুল ইসলাম চৌধুরী রানা বলেন ‘দেবাশীষের হলফনামার অভিযোগটি নির্বাচন কমিশনেও গ্রাহ্য না হলে হাইকোর্টে তা নিয়ে রিট করা হবে।’ এব্যাপারে আনোয়ারুল ইসলাম বলেন ‘কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগ মনোনীত প্রার্থি দেবাশীষ পালিতের হলফনামার গড়মিলের বিষয়ে আমরা চার প্রার্থি আলাদা আলাদা অভিযোগ করেছি নির্বাচন অফিসে।’

এব্যাপারে দলীয় প্রার্থী দেবাশীষ পালিত বলেন ‘আমি কোন প্রার্থির হলফনামা নিয়ে টানাটানি করিনি। আমি চাইলে কয়েকজন প্রার্থির বিরুদ্ধে অভিযোগ করতে পারতাম। তবে আমার বিরুদ্ধে যা অভিযোগ করা হয়েছে, সেটি জেলা রিটার্নিং অফিসার খারিজ করে দিয়েছেন।’

এদিকে আওয়ামীলীগের মধ্যে প্রার্থিতা নিয়ে এ যাবত কোন সুরহা না হওয়ায় আপাতত নিশ্চিন্ত রয়েছেন বিএনপির মেয়র প্রার্থি কাজী আবদুল­াহ আল হাসান। নির্বাচনের আগে নির্বাচনী কাজে তিনি বাধাপ্রাপ্ত হবেন-এমন আশংকা অনেকে করলেও তিনি এখন নির্বিগ্নে তার বাড়িতে নির্বাচনী বৈঠক, শলা পরামর্শ সারছেন।

এদিকে উপজেলা, পৌরসভা আওয়ামীলীগ বর্ধিত সভা করে উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি সাবেক শফিকুল ইসলাম চৌধুরীকে একক প্রার্থি হিসেবে ঘোষণা করেন। পরবর্তিতে জেলা আওয়ামীলীগের মতামতের ভিত্তিতে দলের সভানেত্রী, দলীয় মনোনয়ন বোর্ডের প্রধান এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সাবেক মেয়র, উত্তর জেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক দেবাশীষ পালিতকে রাউজান পৌরসভার মেয়র পদে দলীয় মনোনয়ন প্রদান করেন। এরপর আওয়ামীলীগের সভাপতি সাবেক শফিকুল ইসলাম চৌধুরী মনোনয়ন ফরম জমা না দিলেও তারপুত্র সাইফুল ইসলাম চৌধুরী রানাসহ একই দলের মোট চার-সদস্য (আনোরুল ইসলাম, স্বপন দাশ গুপ্ত, মী. মো. মনসুর আলম) দেবাশীষের বিরুদ্ধে অনেকটা বিদ্রোহি হিসেবে নির্বাচনে লড়াই করার জন্যে মনোনয়নপত্র জমা দেন।

সিটিজি টাইমসে প্রকাশিত সংবাদ সম্পর্কে আপনার মন্তব্য

মতামত