টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

গুডস হিলকে জাদুঘর করার দাবি যথাযথ: চট্টগ্রাম মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী

muktiচট্টগ্রাম, ০২ ডিসেম্বর (সিটিজি টাইমস):: যুদ্ধাপরাধের দায়ে মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত বিএনপি নেতা সালাহউদ্দিন কাদের (সাকা) চৌধুরীর পৈতৃক বাসভবন গুডস হিলকে মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘর করার যে দাবি উঠেছে তা সঠিক ও যথাযথ বলে মন্তব্য করেছেন মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক বলেন, এটা করা হবে কিনা তা সরকার প্রধান বলতে পারবেন। কিন্তু মানুষের যে প্রত্যাশা ও দাবি তা যথাযথ। আশা করি সরকার মানুষের এ দাবি বিবেচনায় নিবেন।

বুধবার সকাল ১১টায় নগরীর হোটেল সেন্টমার্টিনে একটি অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন মন্ত্রী।

মুক্তিযুদ্ধের সময় চট্টগ্রামে অপারেশন জ্যাকপটে অংশগ্রহণকারী নৌ-কমান্ডো ও সহযোগীদের সম্মাননা প্রদানে নেভাল কমান্ডো অ্যান্ড অ্যাসোসিয়েটস এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।

যুদ্ধাপরাধেরর দায়ে ফাঁসির দন্ড প্রাপ্ত সাকা চৌধুরীর বাড়ি ‘গুডস্ হিল’কে মুক্তিযুদ্ধের জাদুঘর করা বিষয়ে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক বলেন, এ বিষয়ে সরকার সঠিক সময়ে সিদ্ধান্ত নিবে তবে এ মুহুর্তে কিছুই বলতে পারছিনা।

তিনি আরো বলেন, বিশ্বের বিভিন্ন দেশে যুদ্ধাপরাধীদের সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে, বাংলাদেশেও এ ব্যপারে চিন্তা-ভাবনা করা হচ্ছে।

এর আগে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক বলেন, সাকা চৌধুরী ও মুজাহিদ আসলে পাকিস্তানি, আর তা প্রমান করেছে পাকিস্তান সরকার।

তিনি বলেন, তাদের অপরাধের দায়ে যখন ফাঁসিতে ঝুলিয়ে মৃত্যুদন্ড কার্যকর করা হল, তখন তাদের মিত্র পাকিস্তান সরকার প্রতিক্রিয়া জানিয়ে তাদের অপরাধকে আরো অকাট্য করে দিল।

সাংসদ মাঈন উদ্দিন খান বাদল এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন ভারতীয় দূতাবাসের সহকারি হাই কমিশনার সোমনাথ হালদার, মুক্তিযোদ্ধা মোজাফফর আহমেদ, বাংলাদেশ নৌ-বাহিনীর কমান্ডর জিল্লুর রহমান, নেভাল কমান্ডোর প্রতিষ্ঠাতা বীর উত্তম এ ডব্লিও চৌধুরী, মুক্তিযোদ্ধা নুরুল ইসলাম প্রমুখ।

১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধে ‘অপারেশন জ্যাকপট’ এ অংশগ্রহন করে নিজের জীবন বাজি রেখে স্বাধীনতাকে তরান্বিত করতে যে সকল নেভাল কমান্ডো অসামান্য অবদান রেখেছে তাদের এবং যারা এ অসামান্য কাজে সার্বিক সহযোগিতা করেছে তাদের মধ্য থেকে এক শ’ জনকে সম্মাননা স্মারক ও সনদ প্রদান করা হয়েছে এ অনুষ্ঠানে।

মতামত