টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

আইসিসির বর্ষসেরা ওয়ানডে দলে মুস্তাফিজ

চট্টগ্রাম, ০২ ডিসেম্বর (সিটিজি টাইমস):: প্রথম বাংলাদেশি ক্রিকেটার হিসেবে আইসিসির বর্ষসেরা ওয়ানডে দলে জায়গা করে নিয়েছেন ‘কাটার মাস্টার’ খ্যাত পেসার মুস্তাফিজুর রহমান।

এর আগে সাকিব আল হাসান ২০০৯ সালের আইসিসির বর্ষসেরা টেস্ট দলে জায়গা পেয়েছিলেন।

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিষেকের পর থেকে নানা চমক দিয়ে চলেছেন সাতক্ষীরার ছেলে মুস্তাফিজ। ইতোমধ্যে উপাধি পেয়েছেন ‘বিস্ময় পেসার’ ও ‘কাটার মাস্টার’ হিসেবে।

নিয়মিত উইকেট তো নিচ্ছেনই, এর চেয়েও বিস্ময়- মুস্তাফিজের বোলিং বুঝতেই হিমশিম খাচ্ছেন ব্যাটসম্যানরা। পাকিস্তান, ভারত ও দক্ষিণ আফ্রিকার ব্যাটসম্যান থেকে শুরু করে জিম্বাবুয়ে, ব্যাটসম্যানরা মুম্তাফিজকে পড়তেই পারেননি।

জিম্বাবুয়ে সিরিজের তৃতীয় ওয়ানডেতে ৫ উইকেট নিয়ে বাংলাদেশের জয়ের অন্যতম নায়ক মুস্তাফিজুর রহমান। মাত্র ৯ ওয়ানডেতেই ৩ বার ৫ উইকেট নিয়ে গড়েছেন নতুন রেকর্ড।

গত জুনে ভারতের বিপক্ষে অভিষেক ওয়ানডেতেই ৫ উইকেট নিয়েছিলেন বাম-হাতি মুস্তাফিজ। পরের ম্যাচে ৬ উইকেট নিয়ে গড়েছিলেন নতুন রেকর্ড। প্রথম ২ ওয়ানডেতে ১১ উইকেট ছিল না আর কারো।

পরে টেস্ট অভিষেকেও ম্যান অব দ্য ম্যাচ হয়ে গড়েছিলেন আরেকটি রেকর্ড। ওয়ানডে ও টেস্ট- দুটিতেই অভিষেকে ম্যাচসেরা হতে পারেননি ক্রিকেট ইতিহাসে আর কেউ।

আর বিপিএলে ঢাকা ডাইনামাইটসের পেসার মুস্তাফিজ এসবেরই প্রতিদান পেলেন বুধবার আইসিসি প্রকাশিত ২০১৫ সালের ওয়ান দলে। একই সঙ্গে বিশ্ব ক্রিকেটের নিয়ন্ত্রক সংস্থা বর্ষসেরা টেস্ট দলের তালিকাও প্রকাশ করেছে।

ওয়ানডে দলে এশিয়া থেকে আর মাত্র তিনজন স্থান পেয়েছেন, তারা হলেন- শ্রীলঙ্কার ওপেনার তিলকরত্নে দিলশান, উইকেটরক্ষক ও মিডল-অর্ডার ব্যাটসম্যান কুমার সাঙ্গাকারা এবং ভারতের পেসার মোহাম্মদ সামি।

দক্ষিণ আফ্রিকার তিনজন- ওপেনার হাশিম আমলা, অধিনায়ক এবি ডি ভিলিয়ার্স ও লেগ স্পিনার ইমরান তাহির। অস্ট্রেলিয়ার দুজন- ব্যাটসম্যান স্টিভেন স্মিথ ও পেসার মিচেল স্টার্ক।

এই দলে নিউজিল্যান্ড থেকে দুজন- ব্যাটসম্যান রস টেইলর এবং পেসার ট্রেন্ট বোল্ট আর দ্বাদশ খেলোয়াড় হিসেবে জো রুট ইংল্যান্ডের একমাত্র খেলোয়াড় হিসেবে ঠাঁই পেয়েছেন।

তবে জো রুট আছেন বর্ষসেরা টেস্ট দলেও। তিনি ছাড়া টেস্ট দলে ইংল্যান্ড থেকে জায়গা পেয়েছেন- অধিনায়ক অ্যালিস্টার কুক ও পেসার স্টুয়ার্ট ব্রড।

রুটের মতই আর ভাগ্যবান অস্ট্রেলিয়ার স্টিভেন স্মিথ ও নিউজিল্যান্ডের পেসার ট্রেন্ট বোল্ট। তারা দুজন ওয়ানডে ও টেস্ট উভয় দলে স্থান পেয়েছেন।

অস্ট্রেলিয়া থেকে ওপেনার ডেভিড ওয়ার্নার ও পেসার জস হ্যাজেলউড রয়েছেন টেস্ট দলে। আর নিউজিল্যান্ড থেকে আছেন কেন উইলিয়ামসন।

বর্ষসেরা টেস্ট দলে পাকিস্তানের তিনজন স্থান পেয়েছেন, ইউনিস খান, উইকেটরক্ষক সরফরাজ আহমেদ ও স্পিনার ইয়াসির শাহ। সেখানে ভারতের একমাত্র স্পিনার রবিচন্দ্রন অশ্বিন দ্বাদশ ব্যক্তি হিসেবে ঠাঁই পেয়েছেন।

বর্তমানে বিশ্বের সেরা টেস্ট দল দক্ষিণ আফ্রিকা হলেও বর্ষসেরা টেস্ট দলে তাদের কোনো খেলোয়াড় স্থান পাননি।

আইসিসি টেস্ট দলের নেতা হিসেবে বেছে নিয়েছেন অ্যালিস্টার কুককে। আর ওয়ানডে দলের নেতৃত্বে দক্ষিণ আফ্রিকার এবি ডি ভিলিয়ার্সকে।

ভারতের কিংবদন্তি স্পিনার ও আইসিসির ক্রিকেট কমিটির চেয়ারম্যান অনিল কুম্বলের নেতৃত্বাধীন একটি বিশেষ প্যানেল দুটি আলাদা বিশ্ব একাদশ নির্বাচনের দায়িত্ব পালন করেন। তিনি টেস্ট ও ওয়ানডে দলে স্থান করে নেওয়া সবাইকে অভিনন্দন জানিয়েছেন।

এই কমিটির অন্য সদস্যরা হলেন- ওয়েস্ট ইন্ডিজের ফাস্ট বোলার ইয়ান বিশপ, সাবেক ইংলিশ ব্যাটসম্যান মার্ক বুচার, অস্ট্রেলিয়া নারী দলের সাবেক অধিনায়ক বেলিন্ডা ক্লার্ক এবং সাংবাদিক প্রতিনিধি দ্য হিন্দু ও স্পোর্টস্টার পত্রিকার উপ-সম্পাদক জি বিশ্বনাথ।

তারা ২০১৪ সালের সেপ্টেম্বর থেকে ২০১৫ সালের সেপ্টেম্বর পর্যন্ত পারফরমেন্স বিবেচনায় এই তালিকা করেছেন।

বর্ষসেরা ওয়ানডে দল
তিলকরত্নে দিলশান, হাশিম আমলা, কুমার সাঙ্গাকারা, এবি ডি ভিলিয়ার্স (অধিনায়ক), স্টিভেন স্মিথ, রস টেলর, ট্রেন্ট বোল্ট, মোহাম্মদ সামি, মিশেল স্টার্ক, মুস্তাফিজুর রহমান, ইমরান তাহির ও জোর রুট (দ্বাদশ খেলোয়াড়)।

বর্ষসেরা টেস্ট দল
ডেভিড ওয়ার্নার, অ্যালিস্টার কুক (অধিনায়ক), কেন উইলিয়ামসন, ইউনিস খান, স্টিভেন স্মিথ, জো রুট, সরফরাজ আহমেদ (উইকেটরক্ষক), স্টুয়ার্ট ব্রড, ট্রেন্ট বোল্ট, ইয়াসির শাহ, জস হ্যাজেলউড ও রবিচন্দ্রন অশ্বিন (দ্বাদশ খেলোয়াড়)।

সিটিজি টাইমসে প্রকাশিত সংবাদ সম্পর্কে আপনার মন্তব্য

মতামত