টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

দেশ ছাড়লেন আমির খান!

চট্টগ্রাম, ২৭ নভেম্বর (সিটিজি টাইমস)::  ‘ধর্মীয় অসহিষ্ণুতা’ ইস্যুতে নানামুখী বিতর্কের পরিপ্রেক্ষিতে দেশ ছেড়েছেন বলিউড মেগাস্টার আমির খান। আজ শুক্রবার সন্ধ্যায় তাঁকে মুম্বাই আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে দেখা গেছে বলে খবর প্রকাশ করেছে ভারতে অনলাইন সংবাদমাধ্যম ইন্ডিয়া ডটকম। সংবাদের সপক্ষে একটি ছবিও প্রকাশ করেছে অনলাইন পত্রিকাটি। এতে পুলিশ প্রহরায় আমিরের পাশে তাঁর ছেলে ও মেয়েকে দেখা গেছে। তবে তাঁর স্ত্রী কিরণ রাওকে ছবিতে দেখা যায়নি।

ইন্ডিয়া ডটকম ছাড়াও ওয়ানইন্ডিয়া ডট কম, বলিউড নিউজ ডটকম, বলিউড লাইফ ডটকমসহ আরো কয়েকটি অনলাইন সংবাদমাধ্যমে এ সংক্রান্ত খবর প্রকাশ করা হয়েছে।

খবরে বলা হয়, গতকাল বৃহস্পতিবার সকাল থেকে আমিরের নতুন ছবি ‘দঙ্গল’-এর শুটিংয়ে পাঞ্জাবের লুধিয়ানায় অবস্থান অবস্থান করছিলেন তিনি। এরই মধ্যে তাঁর হোটেলের সামনে বিক্ষোভ দেখায় শিবসেনার কর্মী-সমর্থকরা। এরপর পাঞ্জাব পুলিশ তাঁর নিরাপত্তা বাড়িয়ে দেয়। তবুও ‘নিরাপত্তা শঙ্কায়’ চলচ্চিত্রটির পরিচালক নীতেশ তিওয়ারি আজ শুক্রবার শুটিং বন্ধ রাখেন।

এরপর শুক্রবার সন্ধ্যায় আমিরকে পরিবারসহ মুম্বাই আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে দেখা গেছে বলে খবর ছড়িয়ে পড়ে। আমির খান সংশ্লিষ্ট একটি বিশেষ সূত্রের খবর দিয়ে ইন্ডিয়া ডটকম জানায়, শুক্রবার সন্ধ্যা ৭টায় একটি ‘অনির্ধারিত’ সফরে যুক্তরাষ্ট্রের উদ্দেশে উড়ান দিয়েছেন তাঁরা।

এর আগে গত সোমবার ‘রামনাথ গোয়েঙ্কা এক্সেলেন্স ইন জার্নালিজম’ পুরস্কার প্রদান অনুষ্ঠানে আমির বলেছিলেন, “গত সাত-আট মাস ধরে ভারতজুড়ে ধর্মীয় অসহিষ্ণুতা চলছে। সমাজের মানুষের মধ্যে ‘নিরাপত্তাহীনতা’ এবং ‘ভয়’ কাজ করছে।”

এ ছাড়া ধর্মীয় অসহিষ্ণুতার কারণে ভারত ছাড়ারও চিন্তা করেছিলেন বলে জানান তিনি। বলিউডের এই সুপারস্টার বলেন, ‘কিরণ এবং আমি প্রথম থেকেই ভারতে বসবাস করছি। কিন্তু এই প্রথম সে আমাকে দেশ ছাড়ার কথা বলেছে। বাড়িতে এই বিষয়টি নিয়ে আমি যখন কিরণের সঙ্গে কথা বলি; সে আমাকে বলছিল, তাহলে কি আমাদের এখন দেশ ছেড়ে চলে যাওয়া উচিত?’

আমিরের এমন বক্তব্যের পর শুরু হয়ে যায় তুমুল বিতর্ক। উত্তপ্ত হয়ে ওঠে দেশের রাজনীতির আঙিনা। তীব্র বিতর্ক শুরু হয় বলিউডের অন্দরেও। আমিরের পাশে দাঁড়ানোর ইঙ্গিত কেউ কেউ দিলেও, আক্রমণই সহ্য করতে হচ্ছিল বেশি। এরপর ‘ধর্মীয় অসহিষ্ণুতা’ ইস্যুতে বলিউড মেগাস্টার আমির খানের বিরুদ্ধে দেশদ্রোহিতার মামলা দায়ের করা হয়। বুধবার ভারতের কানপুর কোর্টে এ মামলা হয়। আদালত বাদীর বক্তব্য শুনে ১ ডিসেম্বর শুনানির দিন ধার্য করেছেন।

এছাড়া গুণী এই অভিনেতাকে চড় মারতে পারলে এক লাখ রুপি পুরস্কারের কথা ঘোষণা দিয়েছে শিবসেনা পাঞ্জাব শাখা।

তবে এতকিছুর পরও আমির বলেছিলেন, তিনি দেশ ছেড়ে কোথাও যাবেন না। বুধবার এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি জোর গলায় জানান, তিনি বা তাঁর স্ত্রী কিরণের দেশ ছাড়ার কোনো প্রশ্নই নেই। তিনি দাবি করেন, তাঁর বক্তব্য বিকৃত করা হয়েছে। আশঙ্কার কথা বললেই দেশত্যাগের কথা বলা হয় না।

আমির বিবৃতিতে বলেন, ‘আমার বা আমার স্ত্রী কিরণের দেশ ছাড়ার কোনো ইচ্ছা নেই। কখনো তেমন ভাবনা মনে আসেনি। ভবিষ্যতেও আসবে না। যাঁরা আমার মন্তব্যের উল্টো মানে করছেন, তাঁরা হয় আমার সাক্ষাৎকার দেখেননি, না হয় ইচ্ছা করে আমার বক্তব্যকে বিকৃত করছেন।’ তিনি আরো বলেন, ‘অকারণে আমি যে পরিমাণ আক্রমণের শিকার হলাম, তাতে আমি খুবই দুঃখ পেয়েছি। যাঁরা আমাকে দেশবিরোধী বলছেন, তাঁদের জানিয়ে দিতে চাই, একজন ভারতীয় হিসেবে আমি গর্বিত। তার জন্য আমার কারো কাছ থেকে অনুমতি বা মান্যতার দরকার নেই।’

মতামত