টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

কক্সবাজার পৌরসভার মেয়র বহিস্কার

SARWAR KAMAL._1কক্সবাজার ব্যুরো:
হত্যাসহ তিনটি ফৌজদারী মামলায় চার্জশীটভুক্ত আসামী হওয়ায় কক্সবাজার পৌরসভার মেয়র সরওয়ার কামালকে বহিস্কার করেছে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়।
২৪ নভেম্বর মঙ্গলবার এ সংক্রান্ত নথিতে স্থানীয় সরকার মন্ত্রী খন্দকার মোশারফ হোসেন স্বাক্ষর করেছেন। বহিস্কারাদেশের কপি স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় থেকে কক্সবাজার পাঠানো হচ্ছে বলে নিশ্চিত করেছেন মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম-সচিব খলিলুর রহমান।
জামায়াত নেতা মাওলানা দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদীর ফাঁসির দন্ডাদেশ বাতিল চেয়ে ২০১৩ সালের ১৫ ফেব্রুয়ারি সাঈদী মুক্তি পরিষদের ব্যানারে কক্সবাজার শহরে বিক্ষোভ করে জামায়াত-শিবির। এতে পুলিশের সাথে সংঘর্ষে তিনজন মারা যায়।
তারা হলো- কক্সবাজার শহরের গোদারপাড়া এলাকার কলিম উল্লাহর ছেলে তোফাইল উদ্দিন (১৯), কক্সবাজার সদর উপজেলার ইসলামপুর ধর্মেরছরা এলাকার নুরুল আলমের ছেলে নুরুল হক (৩২) ও চট্টগ্রামের লোহাগাড়া এলাকার বাসিন্দা ও শহরের বড়বাজার এর ব্যবসায়ী মো ফারুক (৩৮)। দুই পক্ষের মধ্যে ঘন্টাব্যাপী সংঘর্ষে ২০ পুলিশ সদস্যসহ আহত হয়েছিল অন্তত তিন শতাধিক লোক। এ ঘটনায় পৌর মেয়র সরওয়ার কামালসহ ২৭৩ জনকে আসামী করে পৃথক তিনটি মামলা করে পুলিশ।
গত ১২ নভেম্বর মেয়র সরওয়ারসহ জামায়াত-শিবিরের ২৭৩ জনের বিরুদ্ধে চার্জ গঠন করেন জেলা ও দায়রা জজ মোঃ সাদিকুল ইসলাম তালুকদার। মেয়র সরওয়ার ছাড়াও ওই দিন কক্সবাজার সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও জেলা জামায়াতের সেক্রেটারী জিএম রহিমুল্লাহ, হোয়াইক্যং ইউপি চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ মাওলানা নুর আহমদ আনোয়ারীসহ জামায়াত ঘরানার ডজনাধিক জনপ্রতিনিধির বিরুদ্ধে চার্জশীট হয়।
কক্সবাজার জেলা ও দায়রা জজ আদালতের পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) এডভোকেট মমতাজ আহমদ বলেন, জামায়াত নেতা সাঈদীর ফাঁসির রায়কে ঘিরে সংঘটিত ঘটনায় ২০১৪ সালের ১৪ নভেম্বর আদালতে ৩টির মামলার চার্জশীট দাখিল করেছিলো পুলিশ। এ মামলায় চার্জশীট হওয়ায় মেয়র সরওয়ারকে বহিস্কার করা হয় বলে শুনেছি। তবে বহিস্কারাদেশ সংক্রান্ত কোন কপি এখনো পাননি বলে জানান জেলা প্রশাসক মো. আলী হোসেন।

এ দিকে ২০১৩ সালের ১৫ ফেব্রুয়ারী ঘটনার দিন মেয়র সরওয়ার কক্সবাজারের বাইরে ছিলেন। তাকে ফাঁসাতে একটি চক্র আসামী বানিয়েছেন বলে তিনি দাবী করেন।

সিটিজি টাইমসে প্রকাশিত সংবাদ সম্পর্কে আপনার মন্তব্য

মতামত