টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

সন্ত্রাস-জঙ্গিবাদ দমনে জনগণের সহযোগিতা চান প্রধানমন্ত্রী

চট্টগ্রাম, ১৮ নভেম্বর (সিটিজি টাইমস):  সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ ঠেকাতে সরকার যে পদক্ষেপ নিয়েছে তাতে প্রত্যেক মানুষের সহযোগিতা প্রয়োজন বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

তিনি বলেছেন, পরিকল্পনা আমরা যতই নেই না কেন তা বাস্তবায়নে হতে পারে যদি আপনাদের সকলের সর্বাঙ্গীন সহযোগিতা থাকে।

বুধবার বিকেলে সংসদের অষ্টম অধিবেশনে প্রশ্নোত্তর পর্বে ঢাকা-৭ আসনের স্বতন্ত্র সংসদ সদস্য হাজী মো. সেলিমের এক সম্পূরক প্রশ্নের উত্তরে তিনি এসব কথা বলেন।

এদিন স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে সংসদ অধিবেশনে প্রধানমন্ত্রী সরকারি ও বেসরকারি দলের সংসদ সদস্যদের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাব দেন।

শেখ হাসিনা বলেন, গণতন্ত্রের সুফল পেতেই সংবিধানের পঞ্চদশ সংশোধনী আনা হয়েছে। আর কোনও অনির্বাচিত কিংবা অসাংবিধানিক সরকার যাতে দেশের গণতন্ত্রের উন্নয়নের পথে বাধা হয়ে দাঁড়াতে না পারে সেজন্য সংবিধানে প্রয়োজনীয় সংশোধনীও আনা হয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদবিরোধী যে পদক্ষেপ আমরা নিয়েছি সেখানে প্রত্যেক মানুষের সহযোগিতা প্রয়োজন। পাশাপাশি যারা সন্ত্রাসী ও জঙ্গিবাদের সঙ্গে জড়িত তাদেরকে ধরিয়ে দেওয়া, আইনের হাতে সোপর্দ করা এবং তাদেরকে উপযুক্ত শাস্তি দেওয়ার ক্ষেত্রে সহযোগিতা করা উচিৎ।

শেখ হাসিনা বলেন, আমাদের পরিকল্পনা একটাই— বাংলাদেশকে শান্তিপূর্ণ দেশ হিসেবে গড়ে তুলতে চাই। আজ বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে, এগিয়ে যাবেই। এই শান্তিপূর্ণ পরিবেশ এবং জনগণের নিরাপত্তা বিধানের জন্য পুলিশ বাহিনীকে আরো শক্তিশালী করছি, অন্যান্য আইনশৃংখলা সংস্থাগুলোকে আরো উপযুক্ত প্রশিক্ষণ দিচ্ছি। আইনশৃংখলা উন্নতির জন্য তৃণমূল পর্যন্ত কমিটিগুলোকে আরো সক্রিয় করার চেষ্টা করছি।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘সবচেয়ে বড় কথা দেশের মানুষকে সচতেন করা। এই সচেতনতা সৃষ্টি হলেই দেশকে আরো শান্তিপূর্ণভাবে এগিয়ে নিয়ে যেতে সক্ষম হব। কারণ মানুষ যত সচেতন থাকবে ততই আমরা সাফল্য অর্জন করব।’

ঢাকা-৬ আসনের সংসদ সদস্য কাজী ফিরোজ রশীদের এক লিখিত প্রশ্নের উত্তরে প্রধানমন্ত্রী বিলুপ্ত ছিটমহলবাসীদের নাগরিক সুবিধা নিশ্চিত করার জন্য গৃহীত বিভিন্ন পদক্ষেপের কথা তুলে ধরেন।

তিনি জানান, সাবেক ছিটমহলগুলিতে একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্পের মাধ্যমে ইতোমধ্যে ৪৯টি গ্রাম উন্নয়ন সমিতি গঠন করা হয়েছে। সাবেক ১১১টি ছিটমহল এলাকার ৩,০০০ পরিবারকে বিনামূল্যে বিদ্যুৎ সুবিধা প্রদানের লক্ষ্যে পল্লী দারিদ্র্য বিমোচন ফাউন্ডেশন কর্তৃক বাংলাদেশ জলবায়ু পরিবর্তন ট্রাস্ট ফান্ডের অর্থায়নে প্রায় ১৫ কোটি টাকা ব্যয়ে একটি প্রকল্প অনুমোদন প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

মতামত