টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

রায় বহালে সাকার জন্মস্থান রাউজানে আনন্দ উল্লাস মিষ্টি বিতরণ

এস.এম. ইউসুফ উদ্দিন
রাউজান প্রতিনিধি 

Raozan-saka-pic.jpg-2চট্টগ্রাম, ১৮ নভেম্বর (সিটিজি টাইমস): মানবতা বিরোধী অপরাধে অভিযুক্ত বিএনপি নেতা সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরী ও জামায়াত নেতা আলী আহসান মোহাম্মদ মুজাহিদের মৃতুদন্ডের রিভিউ আবেদনে ফাঁসির রায় বহাল রাখার ঘোষনার পর পর গত ১৮ নভেম্বর বুুধবার দুপুরে সাকার জন্মভুমি রাউজানে মিষ্টি বিতরণ, আনন্দ মিছিল ও রায়ের প্রতি সন্তোষ প্রকাশ করে সমাবেশ করেছে হাজারো মুক্তিযোদ্ধাসহ, আওয়ামীগ যুবলীগ, ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা।

অপ্রিতিকর ঘটনার শঙ্কায় উপজেলার সর্বত্র পুলিশ মোতায়ন থাকলেও কোন ধরনের সহিংসতার খবর পাওয়া যায়নি।

এদিকে যে কোন ধরনের অপ্রতিকর পরিস্থিতি মোবাবেলা করতে প্রস্তুত রয়েছে সাকার জন্মভুমি রাউজান, নির্বাচনী এলাকা রাঙ্গুনিয়া, ফটিকছড়ির পুলিশ প্রশাসন। এদিকে আপিল শুনানির রায়ের দিনক্ষণ ঠিক হওয়ার পর থেকে রায় কি হবে তা নিয়ে চিন্তিত হয়ে পড়েছিল তার ভক্ত, অনুসারীরা। অপর দিকে ৭১ সালে স্বাধীনতা সংগ্রামের সময়ে যে সব পরিবার তাদের স্বজন হারিয়েছে সে সব পরিবারের সদস্যরা সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরীর রায় যাতে সর্বোচ্চ শাস্তি হয় সে দাবী জানিয়ে আসছিল।

অবশেষে স্বাধীনতাকামী মানুষের দাবীই প্রতিপলিত হওয়ায় তারা রায় বহাল ঘোষনার পর পরই চট্টগ্রাম কাপ্তাই সড়ক ও চট্টগ্রাম রাঙ্গামাটি সড়কে আন্দন মিছিল ও সমাবেশ করে।

সমাবেশে তারা যুদ্ধাপরাধী সাকার ফাঁিসর রায়ের বহাল রাখার প্রতি সন্তোষ প্রকাশ করে একে অপরকে মিষ্টি মুখ করান। রায় অবিলম্বে কার্যকরারও দাবী জানানো হয় সমাবেশ থেকে। পাশাপাশি বিভিন্ন স্কুল কলেজ ছাত্র-ছাত্রীরাও একে অপরকে মিষ্টি মুখ করাতে দেখা গেছে।

আনন্দ মিছিল শেষে এক সমাবেশে নোয়াপাড়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব দিদারুল আলম বলেন, নরপশু সাকার রায় বহাল রাখার ট্রাইব্যুনালের প্রতি আমরা কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি। এ রায়ের মধ্যে দিয়ে রাউজানবাসি দীর্ঘ ৪২বছর পর কলঙ্কমুক্ত হয়েছে।

সাঁকার মামলার রাষ্ট্রপক্ষের স্বাক্ষী মুক্তিযোদ্ধা আব্বাস উদ্দিন বলেন, সাকার ফাঁসি আমাদের দীর্ঘদিনের স্বপ্ন। এস্বপ্ন বাস্তবায়ন হয়েছে ট্রাইব্যুনালের সার্বেচ্চ রায়ের মধ্য দিয়ে। রায়ে আমরা মহাখুশি। কারন আজ জাতি কলঙ্কমুক্ত হয়েছে।

রায় ঘোষনার পর পর দক্ষিণ রাউজানে মুক্তিযোদ্ধা আওয়ামীলীগ যুবলীগ, ছাত্রলীগের মিছিল সমাবেশ নোয়াপাড়া পথেরহাট চত্তরে নোয়াপাড়া ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ্ব দিদারুল আলম চেয়ারম্যানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়। রাউজান উপজেলা দক্ষিণ ছাত্রলীগের সভাপতি সৈয়দ আব্দুল জব্বার সোহেলের পরিচালনায় বক্তব্য রাখেন, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যা আলহাজ্ব নুর মোহাম্মদ, উপজেলা আ.লীগ সাংগঠনিক সম্পাদক জাফর আহমদ, উপজেলা আ.লীগের যুগ্ম সম্পাদক ভুপেষ বড়ুয়া চেয়ারম্যান, সাকার মামলার সাক্ষী মুক্তিযোদ্ধা আব্বাস উদ্দিন আহমেদ, সাবেক চেয়ারম্যান মনিরুল ইসলাম, উপজেলা আ.লীগের ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক আবুল বশর বাবুল, শিক্ষা ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক জাহাঙ্গীর সিকদার, মঞ্জুর হোসেন, আরিফুল ইসলাম, মুক্তিযোদ্ধা চিত্ত রঞ্জন বিশ্বাস, সুনিল চক্রবর্তি, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ড সভাপতি কামরুল ইসলাম বাবু, সাধারণ সম্পাদক ম্যালকম চক্রবর্তি, পাহাড়তলী ইউপি চেয়ারম্যা রুকন উদ্দিন, দক্ষিণ রাউজান ছাত্রলীগ সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম, যুগ্ন সম্পাদক দিদারুল আলম, মোশাররফ হোসেন ছোটন, সৈয়দ আবু জাফর মো. রাশেদ, জাহাঙ্গীর আলম সুমন, মহিউদ্দিন ইমন, জেলা ছাত্রলীগ সহ-সভাপতি সাইফুদ্দিন সাইফ, সেকান্দর হোসেন, সেলিম উদ্দিন, এস.এম. সোলেমা বাদশা, এস.এম. হাফিজুর রহমান, নুরুল ইসলাম, কাউসার উদ্দিন লিটন, সৈয়দ মেজবাহ উদ্দিন, সালাহ উদ্দিন, রুবেল বৈদ্য, কামরুল হাসান রাসেল, শাওন নেওয়াজ, রুপম সরকার, আদনান সিকদার প্রমুখ।

মতামত