টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

বিতর্কিত ‘রান আউট’ নিয়ে যা বললেন মাহমুদউল্লাহ

spচট্টগ্রাম, ১১ নভেম্বর (সিটিজি টাইমস):  বাংলাদেশের ইনিংসের ৪৫তম ওভারের শেষ বল। স্ট্রাইকে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। বল হাতে গ্রায়েম ক্রেমার। ক্রেমারের করা শেষ বলটি মাহমুদউল্লাহ কভারে বল ঠেলে দিয়েই রান নিতে দৌড় দেন। কিন্তু মাশরাফি তাকে ফিরিয়ে দেন।

ততক্ষণে বেশ দেরি হয়ে যায়। বল পেয়ে স্টাম্প ভেঙে দেন রেগিস চাকাবা। সঙ্গে সঙ্গে মাহমুদউল্লাহ মাথা নিচু করে সাজঘরের দিকে হাঁটতে শুরু করেন। কিন্তু মাঠ ছাড়ার আগেই তিনি থমকে দাঁড়ান। তার আউটটি নিয়ে দ্বিধায় পরে যান আম্পায়াররা। পরে ভিডিওতে দেখা যায় বল আসার আগেই হাত দিয়ে স্ট্যাম্প ভেঙে দেন চাকাবা। ফলে নট আউট হয়ে আবার ক্রিজে ফিরে আসেন মাহমুদউল্লাহ।

এই আউটটি নিয়ে জিম্বাবুয়ের খেলোয়াড়রা কিছুটা অসন্তুষ্ট হয়।তারা অনেকক্ষণ আম্পায়ার ও মাশরাফির সঙ্গে বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করে। কিন্তু আম্পায়াররা মাহমুদউল্লাকে নট আউট ঘোষণা করে আবার ব্যাট করার সুযোগ দেন। নিয়মানুযায়ী বল ছাড়া শুধু গ্লাভস দিয়ে স্ট্যাম্প ভাঙার অল্প সময়ের মধ্যে বলটি ডেড হয়ে যায়। আর সেই ডেড বল দিয়ে পরবর্তীতে আবার স্ট্যাম্প ভাঙলেও ব্যাটসম্যান নট আউট থাকবেন।

ক্রিজে আবার ফিরে আসার সময় ২৫ বলে মাহমুদউল্লাহর সংগ্রহ ছিল ৩২ রান। এরপর তিনি ৪০ বলে ৫টি চার ও ১টি ছক্কার সাহায্যে ৫২ রান করে রান আউটে কাটা পড়েন।

ম্যাচ শেষ হতে না হতেই তিনি ধারাভাষ্যকারের মুখোমুখি হন। সেখানে বিতর্কিত রান আউটসহ অন্যান্য বিষয় নিয়ে কথা বলেন, ‘আসলে জানি না যে আমি আউট ছিলাম কী, ছিলাম না। তবে আমাদেরকে আম্পায়ারের সিদ্ধান্তের প্রতি শ্রদ্ধাশীল হতে হবে। মাঠে তারাই বিচারক। আমি আসলে মাঠে কি হয়েছিল সেটা পুরোপুরি জানি না।’

তিনি আরো বলেন, ‘উইকেট স্লো ছিল। মাশরাফি আজ দারুণ খেলেছে। আমি সুযোগ পেয়েও খুব বড় ইনিংস খেলতে পারিনি। তবে টপ অর্ডারের ব্যাটকম্যানদের কৃতিত্ব দিতে হবে।’

সিটিজি টাইমসে প্রকাশিত সংবাদ সম্পর্কে আপনার মন্তব্য

মতামত