টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

বাড়ির সামনে ক্লোজ সার্কিট ক্যামেরা লাগানো পরামর্শ সিএমপি কমিশনারের

cmpচট্টগ্রাম, ০৩  নভেম্বর (সিটিজি টাইমস)::  নগরীর সকল বাড়ির সামনে ক্লোজ সার্কিট ক্যামেরা লাগানোর জন্য মালিকদের পরামর্শ দিয়েছেন সিএমপি কমিশনার মোহা.আব্দুল জলিল মন্ডল।

মঙ্গলবার (৩ নভেম্বর) দুপুরে নগরীর বাকলিয়ায় লাগানো ক্লোজ সার্কিট ক্যামেরার উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ পরামর্শ দেন।

পুলিশ কমিশনার বলেন, অপরাধ নিয়ন্ত্রণে চট্টগ্রাম নগরীর পাড়া-মহল্লায় সিসি ক্যামেরা স্থাপন করা হবে। এর কাজ শুরু হয়ে গেছে।

সিএমপি কমিশনার আরো বলেন, যারা হরতালের নামে মানুষ হত্যা করে তারা বাংলাদেশের নাগরিক হতে পারে না । জেএমবি,জঙ্গি ও আইএস সদস্যরা হল পরিবারের কুলাঙ্গার ব্যক্তি । তারা পরিবার ও দেশরে জন্য অভিশাপ। জামায়াত শিবির যদি রাজনীতির নামে নাশকতা,বোমাবাজি, অস্ত্রবাজি ও মানুষ হত্যা ছেড়ে সুষ্ঠুভাবে রাজনীতি করে তাহলে সিএমপি’র সহায়তা পাবে ।

তিনি আরো বলেন, প্রত্যেক বাড়ির মালিকরা ভাড়াটের কাছ থেকে এক-দেড় হাজার টাকা সিসি ক্যামেরার জন্য বেশী নিয়ে বাড়ির মেইন গেইট ও বাড়ির ওপরে বসালে তাহলে এলাকা থেকে নানা ধরনের অপকর্ম,সন্ত্রাস,ইভটিজিং দূর করা সহজ হবে ।

ইভ টিজিং প্রসঙ্গে সিএমপি কমিশনার বলেন, মেয়েরা যদি একযোগে ইভটিজিংয়ের প্রতিবাদ করে তাহলে ইভটিজিং নামের কোন অপরাধ দেশে থাকবে না তবে মেয়েদের সর্তকভাবে স্কুল কলেজ বিশ্ববিদ্যালয়ে যাতায়াত করতে হবে ।একা-একা স্কুল কলেজে না গিয়ে দু-চারজন একসাথে যাতায়াত করলে কেউ ইভটিজিং করতে পারবে না ।

আবদুল জলিল মন্ডল আরো বলেন, বাড়ি ভাড়া দেওয়ার আগে বাড়ির মালককে তার ভাড়াটের জাতীয় পরিচয়পত্র,আইডি কার্ড সংগ্রহ করে যাচাই-বাচাই করতে হবে। কারণ জেএমবি জঙ্গিরা সাধারণ মানুষের মতে এলাকায়-এলাকায় অবস্থান নিয়ে দেশের নিরীহ মানুষদের বোমা মেরে হত্যা করছে ।

অনুষ্ঠানে বাকলিয়া থানার ওসি মো. মহসিন বলেন, সুবর্ণ আবাসিক এলাকায় ৪ টি সিসি ক্যামেরা বসানো হয়েছে। বাকলিয়া থানাধীন আরো ৩ টি এলাকায় সিসি ক্যামেরা বসানোর কাজ চলছে । এর মধ্যে মধ্যম চাক্তাই এলাকায় ৫ টি, শাহ আমানত হাউজিং এলাকায় ৮ টি এবং কালামিয়া বাজার এলাকায় ২ টি সিসি ক্যামেরা লাগানো হবে ।

সিটিজি টাইমসে প্রকাশিত সংবাদ সম্পর্কে আপনার মন্তব্য

মতামত