টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

মিরসরাইয়ে পূর্বশত্রুতার জের ধরে সন্ত্রাসী হামলায় গুরুতর আহত ৩

এম মাঈন উদ্দিন
মিরসরাই  প্রতিনিধি

Mirsarai-Hamla-Newsচট্টগ্রাম, ২৯ অক্টোবর (সিটিজি টাইমস):  মিরসরাই উপজেলায় পূর্বশত্রুতার জের ধরে সন্ত্রাসী হামলায় গুরুতর আহত হয়েছে ৩ জন। উপজেলার ১ নম্বর করেরহাট ইউনিয়নের জয়পুর পূর্বজোয়ার গ্রামে এই হামলার ঘটনা ঘটে। আহতরা হলো মৃত হাফেজ আহম্মদের পুত্র নুরুল আবছার (৬০), নুরুল আবছারের স্ত্রী নুর বানু (৫০), রব্বানীর স্ত্রী সুলতানা আক্তার (৩৫)। আহতদেরকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স মস্তাননগর হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়। বর্তমানে নুরুল আবছার চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে (চমেক) চিকিৎসাধীন রয়েছে এবং গুরুতর আহতাবস্থায় চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়ারপর নুর বানুকে ঢাকা পঙ্গু হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এই ঘটনায় আহত নুরুল আবছারের ছোট ভাই আজিজুল হক বাদী হয়ে জোরারগঞ্জ থানায় একটি অভিযোগ (নম্বর ১৩৫২) দায়ের করেন।

অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে মৃত জাগির হোসেনের পুত্র আবদুল হাদি, আবদুল হাদির পুত্র মেজবাহ উদ্দিন, আবদুল হাদির স্ত্রী বিবি ফাতেমা প্রকাশ গিন্নি, আবদুল হাদির কন্যা শারমিন আক্তারসহ অজ্ঞাত ৪/৫ জন দেশীয় ধারালো অস্ত্রশস্ত্রে সজ্জিত হয়ে নুরুল আবছারের পরিবারের সদস্যদের উপর হামলা চালায়। হামলায় নুরুল আবছার (৬০), নুর বানু (৫০), সুলতানা আক্তার (৩৫) গুরুতর আহত হয়। আহতদের আতœচিৎকারে স্থানীয়রা এগিয়ে এলে হামলাকারীরা পালিয়ে যায়। পরে স্থানীয়রা তাদের উদ্ধার করে প্রথমে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স মস্তাননগর হাসপাতাল ও পরে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করায়। হামলাকারীরা সুলতানার কাছ থেকে ৫০ হাজার টাকা মূল্যের এক ভরি ওজনের সোনার চেইনও নিয়ে যায়।

গুরুতর আহত নুরুল আবছার ও নুর বানুর পুত্র নঈন জানান, থানায় মামলা করলে তাদের প্রাণে হত্যারও হুমকি দেয় হামলাকারীরা। হামলাকারীদের মূল হোতা মেজবাহ উদ্দিন। এলাকায় সে বখাটে হিসেবে চিহ্নিত। ইতিপূর্বেও সে আমাদের পরিবারের সদস্যদের নানাভাবে হুমকি দমকি দিয়ে আসছে। এলাকাবাসীও তার অত্যাচারে অতিষ্ঠ। বর্তমানে সে পলাতক রয়েছে।

জোরারগঞ্জ থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) সেকান্দার মোল্লা হামলার ঘটনায় অভিযোগ দায়েরের সত্যতা স্বীকার করে বলেন, ইতিমধ্যে অভিযোগের তদন্ত করা হয়েছে। তদন্তপূর্বক আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার প্রক্রিয়া চলছে।

মতামত