টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

সীতাকুন্ডে পৌর নির্বাচন: প্রচারণা শুরু সম্ভাব্য প্রার্থীদের, মাঠে নেই বিএনপি-জামায়াত

মো. ইমরান হোসেন
সীতাকুণ্ড থেকে

চট্টগ্রাম, ২৭ অক্টোবর (সিটিজি টাইমস):  স্থানীয় সরকার পৌরসভা নির্বাচন ঘোষনা করায় সীতাকুন্ড পৌরসভার সম্ভাব্য প্রার্থীরা ইতিমধ্যে বেশ সরব হয়ে উঠেছেন, চালাচ্ছেন বিভিন্ন ভাবে প্রচারনাও। তফসিল ঘোষণা করার আরো ২ মাস বাকী থাকলেও নির্বাচনের জয়কে মাথায় রেখে আগে থেকেই মাঠে নেমে নেমে পড়েছে সম্ভাব্য প্রার্থীরা। তবে বিএনপি, জামায়াত প্রার্থীরা মাঠে না থাকলেও নির্বাচনে অংশগ্রহণ করবেন বলে দলীয় সূত্রে জানা যায়।

সীতাকুন্ড পৌরসভায় নির্বাচনে আওয়ামীলীগ ও বিএনপি’র একাধিক সম্ভাব্য প্রার্থী মাঠে রয়েছেন। তবে জামায়াতের একক প্রার্থী দিবেন বলে জানা যায় দলীয় সূত্রে।

আওয়ামীলীগের যে সব সম্ভাব্য প্রার্থীর নাম শোনা যাচ্ছে তাদের মধ্যে রয়েছেন, সীতাকুন্ড উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য এবং বর্তমান পৌরসভার মেয়র নায়েক (অব:) শফিউল আলম, পৌরসভা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাবেক কমিশনার আলহাজ্ব বদিউল আলম, সহ-সভাপতি ইঞ্জিঃ শাহ আলম, আলহাজ্ব সিরাজ-উদ-দৌলা ছুট্টু, পৌরসভা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এস জে এম হোসেন (লিটন), যুগ্ম সম্পাদক ইঞ্জিঃ জাহাঙ্গীর আলম।

উল্লেখ্য, পৌরসভার বর্তমান মেয়র ইতোপূর্বে নির্বাচন করবেন না বলে ঘোষণা দিলেও বর্তমানে জানিয়েছেন, দলীয় সিদ্ধান্তের উপর নির্ভর করবে নির্বাচনে অংশ নেয়া, না নেয়া। তবে কাউন্সিলর জুলফিকার আলী শামীম ও শফিউল আলম মুরাদ দলীয় মনোনয়ন চাইতে পারেন বলে অপর একটি সূত্রে জানা যায়।

বিএনপির সম্ভাব্য প্রার্থীরা হলেন, সীতাকুন্ড পৌরসভা বিএনপি’র সাবেক সভাপতি ও সাবেক মেয়র মুক্তিযোদ্ধা আবুল কালাম আজাদ, তবে বর্তমানে তিনি আমেরিকায় থাকায় অনেকটা অনিশ্চিত। উপজেলা বিএনপির সদস্য মুক্তিযোদ্ধা আবুল মনসুর, সীতাকুন্ড পৌরসভা বিএনপি’র সভাপতি ইউসুফ নিজামী, পৌর বিএনপির সহÑসভাপতি ইকবাল হোসেন, পৌর বিএনপির নেতা এটিএম শাহিন চৌধুরী, আলমঙ্গীর ইমরান ।

জামায়াতের সম্ভাব্য একক প্রাথী হতে পারেন পৌরসভা জামায়াতের আমীর তৌহিদুল হক চৌধুরী। বিষয়টি নিশ্চিত করেন উপজেলা জামায়াতের সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার সিদ্দিক চৌধুরী।

২০১৩ সালের ৯ সেপ্টম্বর সীতাকুন্ড পৌরসভার মেয়াদ শেষ হয়েছে। সরকারি নানা জটিলতার কারণে পৌর নির্বাচন হয়নি বলে জানান সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা। তবে ডিসেম্বরে যে নির্বাচন হবে তার তালিকায় সীতাকুন্ড পৌরসভার নামও রয়েছে। প্রসঙ্গত, ১৯৯৮ সালের ১ এপ্রিল ২৮ বর্গমাইল আয়তনের সীতাকুন্ড পৌরসভা গঠিত হয়।

সীতাকুন্ড উপজেলা বিএনপির আহবায়ক তোফাজেল আহম্মদ বলেন, বিএনপি’তে কোন গ্র“পিং নেই। তফসিল ঘোষণা হলে দলের নেতা কর্মীদের মতামতের ভিত্তিতে কেন্দ্রের নির্দেশনা মোতাবেক প্রার্থী সিলেকশন করা হবে বলে দাবি করেন তিনি।

তিনি আরো বলেন সরকার নিরপক্ষ ভাবে নির্বাচন সম্পন্ন করতে বিরোধী দলীয় প্রার্থীকে জনগণের কাছে ভোট চাওয়ার সুযোগ সৃষ্টি করে দিতে হবে। ধর পাকড়, হয়রানী বন্ধ করতে হবে। তহলেই জনগণ তাদের পছন্দসই প্রার্থীকে নির্বাচিত করতে পারবে।

স্থানীয় সাংসদ আলহাজ্ব দিদারুল আলম এমপি বলেন, দলীয় সিদ্ধান্তে প্রার্থী নির্বাচন করে তাদের পক্ষে কাজ করবেন। তবে গ্র“পিংকে বরদাস্থ করা হবে না।

মতামত