টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

ইউপি নির্বাচন নিয়ে মুখোমুখিঃ বৃহৎপরিসরে জনগের সেবা করতে চেয়ারম্যান প্রার্থী হবো, জাহাঙ্গীর হোসাইন মাষ্টার

এম মাঈন উদ্দিন
মিরসরাই প্রতিনিধি 

Mirsarai-Jahangir-Hossain-Mচট্টগ্রাম, ১০ অক্টোবর (সিটিজি টাইমস): নির্বাচন কমিশনের ঘোষনা অনুযায়ী আগামী বছরের মার্চে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়ার সম্ভ্যাবনা রয়েছে। সারাদেশের মতো মিরসরাইয়ের ১৬ ইউনিয়নেও নির্বাচন ঘিরে প্রার্থীদের তোড়জোড় শুরু হয়েছে। বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের সমর্থন পেতে জোর তদবির চালিয়ে যাচ্ছেন নির্বাচনে অংশ নিতে আগ্রহী প্রার্থীরা। উপজেলার ১৬ ইউনিয়নের মধ্যে গুরুত্বপূর্ণ একটি ইউনিয়ন মঘাদিয়া। আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনকে ঘিরে সরকারদলীয় সমর্থীত একাধিক প্রার্থীর নাম শোনা যাচ্ছে এই ইউনিয়নে। তাদের মধ্যে এগিয়ে অনেকটা এগিয়ে রয়েছেন ইউনিয়নের শেখের তালুক গ্রামের কৃতি সন্তান দানবীর জাহাঙ্গীর হোসাইন (মাষ্টার)। তিনি দীর্ঘ সময় ধরে সমাজ সেবা করার কারণে ইউনিয়নের প্রতিটি পাড়ায় পাড়ায় তার ব্যাপক পরিচিতি ও সুনাম রয়েছে। জনপ্রিয়তার ক্ষেত্রেও তিনি এগিয়ে রয়েছে। আওয়ামীলীগ সমর্থীত একাধিক প্রার্থী থাকলেও ইউনিয়ন, উপজেলা ও জেলা পর্যায়ে তার শক্ত অবস্থান রয়েছে। ইউনিয়ন ও উপজেলা পর্যায়ের একাধিক নেতার সাথে কথা বলে জানা গেছে, জাহাঙ্গীর মাষ্টার দীর্ঘদিন ধরে এলাকায় সমাজকর্ম করে যাচ্ছেন। পাশাপাশি দলীয় নেতা-কর্মীদের সুখে-দুঃখে তিনি সাথে রয়েছেন। আমাদের অভিবাবক ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন তার বিষয়ে অবগত রয়েছেন। নির্বাচন ঘনিয়ে আসলে দলের নীতি নির্ধারকরা অন্য ইউনিয়নের পাশাপাশি মঘাদিয়ায় দলীয় প্রার্থীর বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবেন।

জানা গেছে, জাহাঙ্গীর হোসাইন (মাষ্টার) দীর্ঘদিন ধরে মঘাদিয়া প্রত্যন্ত অঞ্চলে দান- অনুদানের মাধ্যমে সবার কাছে জনপ্রিয় হয়ে উঠেছেন। এলাকার মানুষের জোর দাবির কারণে তিনি আসন্ন ইউপি নির্বাচনে প্রার্থী হতে আগ্রহ প্রকাশ করেছেন।

জাহাঙ্গীর মাষ্টার বলেন, দল যদি আমাকে মনোনয়ন দেয় আমি ইনশাল্লাহ নির্বাচনে জয়ী হবো। কারণ আমি দীর্ঘ সময় ধরে ইউনিয়নের সব শ্রেণী-পেশার মানুষের সুখে দুঃখে রয়েছি। আমি যদি চেয়ারম্যান নির্বাচিত হই মাদক, সন্ত্রাস, দূর্নীতি মুক্ত মঘাদিয়া গড়বো। সকলকে সাথে নিয়ে এই ইউনিয়নে ন্যায় বিচার প্রতিষ্ঠা করবো।

জানা গেছে, তিনি দীর্ঘদিন ধরে এলাকায় দান-অনুদানের পাশাপাশি প্রতিষ্ঠা করেছেন নোয়াপাড়া জামে মসজিদ, বদিউল্লাহপাড়া (শরিয়তপাড়া) ফোরকানীয়া মাদ্রাসা, বহদ্দারগ্রাম (ইছাখালী) ফোরকানীয়া মাদ্রাসা সহ একাধিক ধর্মীয় ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। এছাড়া তিনি চট্টগ্রামস্থ মিরসরাই এসোশিয়েশনের পৃষ্টপোষক ও আজীবন সদস্য, বাংলাদেশ নৌ-যান শ্রমিক ফেডারেশনের আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক, চট্টগ্রাম নাবিক কল্যান সমিতির উপদেষ্ঠা সহ বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনের দায়িত্বে রয়েছেন। ইতমধ্যে তিনি গত ২ সেপ্টেম্বর সমাজসেবা ও শিক্ষা ক্ষেত্রে বিশেষ অবদান রাখায় ‘জাতীয় কবি নজরুল ইসলাম সন্মাননা পদক’ পেয়েছেন। পিছিয়ে পড়া অবহেলিত জনপদের অসচ্ছল,অসহায় জনগোষ্ঠীর কথা চিন্তা করে তাদের এগিয়ে নিতে ছোট ভাই মরহুম বেলায়েত হোসাইনের নামে প্রতিষ্ঠা করেন বেলায়েত হোসাইন ওয়েলফেয়ার ফাউন্ডেশন। ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা জাহাঙ্গীর হোসাইন মাষ্টার একক প্রচেষ্টায় মঘাদিয়া ইউনিয়নের বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে সহযোগীতা করে আসছেন। বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এবং ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানে দান অনুদানের মাধ্যমে এ ফাউন্ডেশন তাঁর লক্ষ পুরনে স্বনির্ভর সমাজ গঠনের জন্য অবদান রাখছে। এছাড়া মক্তব, মাদ্রাসা, মন্দির, অসহায় মানুষের চিকিৎসা, গরীব মেয়ের বিয়েতে অনুদান দিচ্ছেন নিয়মিত। যে প্রতিষ্ঠান গুলোতে তিনি অনুদান দিয়েছেন তার মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো শেখের তালুক হামিদ মুহুরীবাড়ী জামে মসজিদ ২ লাখ টাকা, মজুমদার হাট জামে মসজিদ ১ লাখ টাকা, খোরমাওয়ালা জামে মসজিদ ১ লাখ টাকা, সরকারটোলা ফোরকানীয়া মাদ্রাসা ১ লাখ টাকা, মিরসরাই রেল স্টেশন জামে মসজিদ ১ লাখ টাকা, কাজীর তালুক জামে মসজিদ ৫০ হাজার টাকা, কাজীর তালুক মাদ্রাসা ৫০ হাজার টাকা, সাধুর বাজার জামে মসজিদ ৫০ হাজার টাকা, শেখটোলা জামে মসজিদ ৫০ হাজার টাকা, শেখটোলা ফোরকানীয়া মাদ্রাসা ২০ হাজার টাকা,গাজীটোলা জামে মসজিদ ৫০ হাজার টাকা, সারেংপাড়া মাদ্রাসা ৩০ হাজার টাকা, সারেংপাড়া জামে মসজিদ ২০হাজার টাকা, আবুতোরাব ফোরকানীয়া মাদ্রাসা ২৮ হাজার টাকা, হাদী নগর তোরাব আলী হাজী মসজিদ ২০ হাজার টাকা, হাসিমনগর ফোরকানিয়া মাদ্রাসা ৫০ হাজার টাকা, আবুতোরাব জগন্নাথ ধাম ২ লাখ টাকা, শফিউল্লাহ পাড়া জামে মসজিদ ২০ হাজার টাকা, শফিউল্লাহ পাড়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় ২০ হাজার টাকা,মঘাদিয়া ইউপির সামনে মসজিদ ১৮ হাজার টাকা, সমিতিরহাট মসজিদ ২০ হাজার টাকা, জাফরাবাদ ফোরকানীয়া মাদ্রসা ২০ হাজার টাকা, তিনঘোরিয়াটোলা মসজিদ ১ লাখ ২০ হাজার টাকা, উকিলটোলা জামে মসজিদ ৫০ হাজার টাকা, আবুতোরাব উত্তর বাজার মসজিদ ১০ হাজার টাকা।প্রচার বিমুখ এ মানুষটি নিজের নাম প্রকাশ না করে আড়ালে থেকে নিরবে নিভৃর্তে কাজ করতে বেশি পছন্দ করেন। এছাড়া তিনি প্রায় এক হাজারেরও বেশি বেকার মানুষকে বিদেশে নিয়ে কর্মসস্থানের সুযোগ করে দিয়েছেন। তার মধ্যে মিরসরাইয়ের প্রায় আড়াইশ।যারা দেশে অনেক কষ্টে জীবন যাপন করেছেন এখন তাদের প্রায় অনেকে এখন স্বচ্ছল।

জাহাঙ্গীর হোসাইন (মাষ্টার) বলেন, আমার সমাজ কর্মের পরিধি আরো বাড়াতে চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী হবো। জনগন আমাকে স্বতঃপূর্ত রায় দিয়ে জয়ী করবে বলে আমার দৃঢ বিশ্বাস রয়েছে। পরিশষে বলতে চাই আমি যদি চেয়ারম্যান নির্বাচিত হই মঘাদিয়াকে উপজেলার শ্রেষ্ঠ ইউনিয়ন হিসেবে গড়ে তুলবো ইনশাআল্লাহ।

সিটিজি টাইমসে প্রকাশিত সংবাদ সম্পর্কে আপনার মন্তব্য

মতামত