টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

তিউনিসিয়ার সংলাপের নায়কেরা পেলেন শান্তির নোবেল

Tunisias+National+Dialogue+Quartet+leadersচট্টগ্রাম, ০৯ অক্টোবর (সিটিজি টাইমস):  সংলাপের মাধ্যমে তিউনিসিয়ার বহুদলীয় গণতন্ত্র উত্তরণের পথে ভূমিকা রাখায় দেশটির সুশীল সমাজের একটি জোটকে এ বছর শান্তিতে নোবেল পুরস্কার দেওয়া হয়েছে।

শুক্রবার এক সংবাদ সম্মেলনে নরওয়ের নোবেল কমিটি পুরস্কারের জন্য চারটি সংগঠন নিয়ে গড়ে ওঠা জোট ‘তিউনিসিয়া ন্যাশনাল ডায়ালগ কোয়ার্টেট’র নাম ঘোষণা করে।

জোটের চারটি সংগঠন হলো- দ্য তিউনিশিয়ান জেনারেল লেভার ইউনিয়ন, দ্য তিউনিশিয়ান কনফেডারেশন অব ইন্ডাস্ট্রিজ ট্রেড অ্যান্ড হ্যান্টিক্যাফটস, দ্য তিউনিশিয়ান হিউম্যান রাইটস লিগ ও দ্য তিউনিশিয়ান অর্ডার অব লয়ার্স।
এ বছর নোবেল শান্তি পুরস্কারের মনোনয়নে ২০৫ জন ব্যক্তি ও ৬৮টি প্রতিষ্ঠানের নাম আসে, যাদের মধ্যে জার্মানির চ্যান্সেলর আঙ্গেলা মেরকেল, যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী জন কেরি, পোপ ফ্রান্সিস, কঙ্গোর চিকিৎসক ডেনিস মাকোয়েজ ও রাশিয়ার সংবাদপত্র নভোয়া গেজেটার নামও ছিল।

শিশু ও তরুণদের অধিকার আদায়ের সংগ্রামে অবদানের স্বীকৃতি হিসেবে গতবছর শান্তিতে নোবেল পান তালেবান হামলায় বেঁচে যাওয়া পাকিস্তানি কিশোরী মালালা ইউসুফজাই এবং ভারতের শিশু অধিকার কর্মী কৈলাস সত্যার্থী।

পুরস্কার বাবদ একটি সোনার মেডেল ও ৮০ লাখ সুইডিশ ক্রোনার আগামী ১০ ডিসেম্বর অসলোতে আনুষ্ঠানিকভাবে বিজয়ীদের হাতে তুলে দেওয়া হবে।

নোবেল কমিটির নতুন চেয়ারম্যান কচি কুলম্যান ফাইভ বলেন, ‘তিউনিসিয়া গৃহযুদ্ধের মুখোমুখি হয়ে পড়লে ২০১৩ সালে শান্তিপূর্ণ রাজনৈতিক প্রতিবাদের বিকল্প শক্তি হিসেবে কোয়ার্টেট গঠিত হয়। এরপর তারা দেশের জনগণের মৌলিক মানবাধিকার রক্ষায় ভূমিকা রাখে।’

আরব বসন্তের শুরু তিউনিসিয়ায়। জনতার আন্দোলনে পতন ঘটে দীর্ঘদিনের স্বৈরশাসক জিনে আবেদীন বেন আলীর, ২০১১ সালের জানুয়ারিতে। এরপর দেশটি রাজনৈতিক সংকটের মুখে পড়ে।

নোবেল কমিটির মতে, সে সময়ে তিউনিসিয়ার রাজনৈতিক স্থিতিশীলতা রক্ষায় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে কোয়ার্টেট। তারা জনগণ, রাজনৈতিক দল ও কর্তৃপক্ষের মধ্যে সংলাপের ব্যবস্থা করে। এতে করে রাজনীতি ও ধর্ম নিয়ে বিভক্ত হয়ে পড়া দেশের মানুষ সংঘাত থেকে রক্ষা পায়।

কোয়ার্টেটের উদ্যোগেই তিউনিসিয়ায় শান্তি ফিরে আসে এবং সংবিধান প্রণয়নের পর নির্বাচনের মাধ্যমে গণতান্ত্রিক সরকার গঠিত হয়। আর নোবেল কমিটি পুরস্কারের জন্য এসব অবদানকে বিবেচনায় নিয়েছে বলে জানানো হয়েছে।

সূত্র: গার্ডিয়ান

সিটিজি টাইমসে প্রকাশিত সংবাদ সম্পর্কে আপনার মন্তব্য

মতামত