টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

সন্দ্বীপে জোড়া খুন: অস্ত্র-গুলিসহ আটক চার

চট্টগ্রাম, ০৯ অক্টোবর (সিটিজি টাইমস): চট্টগ্রামের সন্দ্বীপে কোরবানীর পশুর হাটের দখল নিয়ে সংঘর্ষে জোড়া খুনের প্রধান আসামি প্রধান আসামি ফললে এলাহী মিশুসহ (২৬) চারজনকে অস্ত্র-গুলিসহ গ্রেপ্তার করেছে গোয়েন্দা পুলিশ। যার বিরুদ্ধে সরকার দলীয় সহযোগি সংগঠন যুবলীগের রাজনীতির সাথে জড়িত থাকার অভিযোগ রয়েছে।

বুধবার খুলনা থেকে জেলা গোয়েন্দা পুলিশের একটি দল তাকে গ্রেপ্তারের পর বৃহস্পতিবার তাদের নিয়ে উপজেলার বিভিন্ন স্থানে অভিযানে চালিয়ে অস্ত্র ও গুলি উদ্ধার করা হয়। অস্ত্র উদ্ধার অভিযানে গেলে মিশুর সহযোগিদের সাথে পুলিশের গুলি বিনিময়ের ঘটনায় মিশু গুলিবিদ্ধ হয়। এসময় মিশুর তিন সহযোগিকে গ্রেপ্তার করা হয়।

গ্রেপ্তার চারজন হল- মিশু, রিয়াদ, রিয়াজ ও লুৎফুর।

শুক্রবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে চট্টগ্রাম পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে এক সাংবাদিক সম্মেলনের মাধ্যমে তাকে গণমাধ্যমের সামেন হাজির করে পুলিশ সুপার এম হাফিজ আক্তার এসব তথ্য জানান।

অভিযানে সন্দ্বীপ পৌর সভার ৫ নম্বর ওয়ার্ডে মিশুর বাড়ীতে অভিযান চালিয়ে দুইটি পিস্তল, ২টি এক নলা বন্দুক, ২টি শট গান, ৫ রাউন্ড থ্রি নট থ্রি রাইফেলের গুলি, শতাধিক গুলির খোসা ও বেশ কিছু কিরিচ উদ্ধার করা হয়।

উল্লেখ্য, গত সেপ্টেম্বর বিকেলে কোরবানির ঈদকে সামনে রেখে সন্দ্বীপ পৌরসভার বাতেন মার্কেট এলাকায় বসা গরুর বাজারের নিয়ন্ত্রণ নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে স্থানীয় জাফর ও মিশু গ্রুপ। এসময় উভয় পক্ষে গুলি বিনিময়ে হুমায়ূন. কবির ও জাহাঙ্গীর নামে দু’জন ঘটনাস্থলে মারা যান। এদের মধ্যে জাহাঙ্গীর গরু বিক্রেতা আর কবির ঝাঁলমুড়ি বিক্রেতা।

পরে নিহত জাহাঙ্গীরের পিতা মহসীন ফজলে এলাহী মিশুকে প্রধান আসামি করে মোট ৩০ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ করে সন্দ্বীপ থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। ঘটনার পর পুলিশ তিনজনকে গ্রেপ্তার করেছিল। গত সপ্তাহে র‌্যাব ও কোস্টগার্ড যৌথ অভিযান চালিয়ে বিপুল পরিমাণ অস্ত্রসহ মিশু বাহিনীর আরো পাঁচজনকে গ্রেপ্তার করে।

মতামত