টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

কক্সবাজারে গোলাগুলিতে যুবক নিহত, গুলিবিদ্ধ ১০

কক্সবাজার প্রতিনিধি

চট্টগ্রাম, ০৬ অক্টোবর (সিটিজি টাইমস):  কক্সবাজারের পেকুয়ায় চিংড়ি ঘেরের সীমানা বিরোধের জেরে দুপক্ষের গোলাগুলিতে কফিল উদ্দীন (৩০) নামে এক যুবক নিহত হয়েছেন। গুলিবিদ্ধ হয়েছেন উভয়পক্ষের আরো ১০ জন। এ ঘটনায় আটজনকে আটক করেছে পুলিশ।

মঙ্গলবার সকাল সাড়ে আটটার দিকে পেকুয়া সদর ইউনিয়নের ছেরাদিয়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

নিহত কফিল উদ্দীন ওই এলাকার জসীম উদ্দীনের পুত্র।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, চেরাদিয়ার আজম খান ও তার ভাগিনা কায়সার পক্ষে মধ্যে চিংড়ি ঘেরের সীমানা নিয়ে বাগবিতন্ডা হয়। এক পর্যায়ে তা সংঘর্ষে পরিণত হলে উভয়পক্ষ গোলাগুলিতে জড়িয়ে পড়ে। এতে গুলিবিদ্ধ হয়ে আজম খান পক্ষের কফিল উদ্দীন নিহত হন।

আহত হন- আজম খান, জসীম উদ্দীনের পুত্র বাপ্পী (২২), মৃত জিন্নাত আলীর পুত্র জয়নাল আবেদীন, শাহাজামালের মেয়ে ষষ্ঠ শ্রেণির ছাত্রী নীলুফা, শাহাব উদ্দীনের পুত্র মোরশেদ আলম (১৮), মকছুদ (৩৪), রুস্তম (৩৫), জয়নাল আবেদীনের মেয়ে জয়নাব বেগম (২০), স্ত্রী সাজেদা বেগম (৩৩), মৃত জিন্নাত আলীর পুত্র বাবুল (৫৫), শাহজামালের মেয়ে মিনা (২৭)।

আহতদের মধ্যে অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় বাপ্পী, জয়নাল আবেদনী, মোরশেদ, জয়নাব বেগম, সাজেদা বেগমকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। বাকীদের বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।

অন্যদিকে, ঘটনা পর পালিয়ে যাওয়ার পথে চকরিয়া কোনাখালী থেকে কায়সার গংয়ের কায়সারসহ আটজনকে আটক করেছে পুলিশ।

সহকারি পুলিশ সুপার (চকরিয়া সার্কেল) মাসুদ আলমের নেতৃত্বে চকরিয়া থানার একদল পুলিশ তাদের আটক করতে সক্ষম হন। এ সময় সহকারি পুলিশ সুপার আহত হয়েছেন। আটককৃতের নাম জানা যায়নি।

পেকুয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবদুর রকিব বলেন, “দুপক্ষের মধ্যে গোলাগুলিতে একজন নিহত হয়েছে। নিহতের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে।”

সহকারি পুলিশ সুপার (চকরিয়া সার্কেল) মাসুদ বলেন, “আটককৃতদের চকরিয়া থানায় রাখা হয়েছে। তাদের ব্যবস্থা নেয়া হবে।”

সিটিজি টাইমসে প্রকাশিত সংবাদ সম্পর্কে আপনার মন্তব্য

মতামত