টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

মায়ানমার সীমান্তে পর্যটকসহ ৪ জন অপহৃত

বান্দরবান প্রতিনিধি

চট্টগ্রাম, ০৫ অক্টোবর (সিটিজি টাইমস):  বান্দরবানের রুমা বিলাইছড়ি সীমান্ত থেকে ঢাকার দুই পর্যটকসহ চারজন অপহৃত হয়েছেন। একটি অস্ত্রধারী সন্ত্রাসী গ্রুপ মায়ানমার সীমান্তের সেপ্রু পাড়া এলাকা থেকে তাদের অপহরণ করেছে বলে স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা জানিয়েছেন। এ ঘটনার প্রতিবাদে বান্দরবানের রুমা বাজারে বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে স্থানীয়রা।

স্থানীয়রা জানান, ঢাকার মিরপুরের বাসিন্দা মো: মুন্না, মো: জবিউল ইসলাম রুমার দুই স্থানীয় পর্যটক গাইড ও মাংসাই ম্রো ও লালরিং সাংকে রোববার সন্ধ্যায় অপহরণ করে নিয়ে যায় একটি সন্ত্রাসী দল।

এদের মধ্যে প্রথম তিনজনকে রাঙ্গামাটির বড় থলি ইউনিয়নের সেপ্রু পাড়ার কাছ থেকে ও লালরিং সাংকে রুমা উপজেলার মেনদুই পাড়া ও আনন্দ পাড়ার মাঝামাঝি জায়গা থেকে অপহরণ করা হয়।

স্থানীয়রা জানান, তাদের অপহরণ করে মায়ানমার সীমান্তের দিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছে বলে ইউপি চেয়ারম্যান আপ্রু মং মারমা জানিয়েছেন।

অপহরণের ঘটনার পরবান্দরবানের রুমা সেনাবাহিনীর জোন থেকে দুটি টহল দল ওই এলাকায় গিয়েছে। সেপ্রু পাড়াটি মায়ানমার সীমান্তের নিকটবর্তী।

এদিকে সোমবার সকালে রুমা বাজারে অপহরণের প্রতিবাদে স্থানীয়রা বিক্ষোভ সমাবেশ ও মিছিল করেছে। নেতৃবৃন্দ অবিলম্বে স্থানীয় গাইডসহ অপহৃতদের উদ্ধারের দাবি জানিয়েছেন।

রুমা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা শফিকুর রহমান জানান, গত ২৫ সেপ্টেম্বর ঢাকা থেকে বান্দরবানের থানছিতে বেড়াতে আসে দুই পর্যটক। পরে তারা থানছি থেকে রুমা হয়ে বড়থলি এলাকায় যায়। সেখানেই তারা অপহরণের শিকার হয়। পর্যটকদের দুর্গম এলাকায় যাতায়াতে সতর্ক করা হচ্ছে। তবে অনেকেই এটি মানছেন না।

বান্দরবানের পুলিশ সুপার মিজানুর রহমান চৌধুরী জানিয়েছেন, অপহরণের ঘটনাস্থলটি রাঙ্গামাটির বিলাইছড়ি উপজেলায়। সেনাবাহিনী অভিযানে নেমেছে। তবে পর্যটকদের বারবার সতর্ক করা হলেও তারা দুর্গম এলাকায় যাতায়াতে কোন কিছুই মানছেন না। নিরাপত্তা বাহিনীর পক্ষে প্রতিটি এলাকায় নিরাপত্তা দেয়া সম্ভব নয়। পর্যটকদের স্থানীয় নিরাপত্তা বাহিনীর ক্যাম্পে যোগাযোগ করে তথ্য দিয়ে চলাফেরার অনুরোধ করেছেন পুলিশ সুপার।

উল্লেখ্য বান্দরবানে সাম্প্রতিক সময়ে অপহরণের ঘটনা বেড়ে যাওয়ায় পর্যটকসহ স্থানীয়দের মধ্যে আতঙ্ক দেখা দিয়েছে। গত ৩০ সেপ্টেম্বর বান্দরবানের থানছিতে পর্যটকদের চলাচলে প্রশাসন ও নিরাপত্তা বাহিনীর পক্ষ হতে সতর্কতা জারির চারদিনের মাথায় এ অপহরণের ঘটনা ঘটলো।

সিটিজি টাইমসে প্রকাশিত সংবাদ সম্পর্কে আপনার মন্তব্য

মতামত