টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

দুই হত্যাকাণ্ড এক ধরনের, একই উদ্দেশ্য: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

চট্টগ্রাম, ০৩ অক্টোবর (সিটিজি টাইমস):রংপুর জেলার কাউনিয়া থানায় অজ্ঞাত বন্দুকধারীদের গুলিতে এক জাপানি নাগরিক নিহত হবার পর স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান বলছেন, এক সপ্তাহে যে দুটি আক্রমণে দুজন বিদেশি নাগরিক নিহত হয়েছেন- এই হত্যাকাণ্ডগুলো একই ধরনের এবং একই উদ্দেশ্যে তা ঘটানো হয়ে থাকতে পারে।

পুলিশ বলছে, শনিবার সকাল ১১টার দিকে রংপুরের কাউনিয়ার আলুটারি এলাকায় আনুমানিক ৫০ বছর বয়স্ক জাপানি নাগরিক হোশি কুনিও গুলিবিদ্ধ হবার পর মৃত্যুবরণ করেন।

এর আগে গত সোমবার রাজধানী ঢাকার গুলশান এলাকায় একজন ইতালীয় নাগরিককে গুলি করে হত্যা করা হয়।

উভয় ক্ষেত্রেই বন্দুকধারীরা অপেক্ষমাণ একটি মোটরবাইকে করে পালিয়ে যায় বলে জানা গেছে।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান বিবিসি বাংলাকে বলেন, ঘটনাগুলো একই ধরনের। উভয় ক্ষেত্রেই পিছন থেকে গুলি করা হয়েছে, অস্ত্র ছিল পিস্তল। দুটি ঘটনাতেই আক্রমণকারীরা ছিল তিনজন এবং তারা একইভাবে মোটরবাইকে করে পালিয়ে যায়।

‘প্রাথমিকভাবে আমরা যেটুকু বুঝতে পারছি- তাতে মনে হচ্ছে বাংলাদেশকে অস্থিতিশীল করার জন্য এবং বিদেশিদের কাছে দেশের পরিস্থিতি অস্থিতিশীল বলে তুলে ধরার জন্য এগুলো করা হচ্ছে,’ বলছিলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।

‘কিছু আলামত আমরা পেয়েছি এবং আসল অপরাধীদেরও আমরা শিগগিরই ধরে ফেলব,’ বলছিলেন তিনি।

মন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশে অবস্থানরত বিদেশিদের তারা আশ্বস্ত করতে চান যে অচিরেই প্রকৃত ঘটনা উদ্ঘাটন করা হবে।

‘আগে যেরকম সন্ত্রাস করেছিল সেইরকম একটা প্রয়াস তারা নিচ্ছে- আমরা একে উদ্ঘাটন করে প্রকৃত অপরাধীদের ধরে ফেলব,’ বলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, কূটনৈতিক এলাকাসহ শহরগুলোতে নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে, এবং সেখানে তল্লাশি অভিযান চালানো হবে।

তিনি আশা প্রকাশ করেন যে বাংলাদেশে বিদেশিরা অচিরেই নির্ভয়ে কাজ করতে পারবেন।

মন্ত্রী বলেন, ‘যেখানেই বিদেশিরা আছেন সেখানে নিরাপত্তা বাহিনীর নজরদারি বাড়ানো হচ্ছে। কোন বিদেশি নিরাপত্তার অভাব বোধ করলে আমাদের জানালে আমরা নিরাপত্তার ব্যবস্থা করবো।’

সুত্রঃ বিবিসি বাংলা

মতামত