টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

পবিত্র ঈদুল আজহা কাল

eidচট্টগ্রাম, ২৪ সেপ্টেম্বর (সিটিজি টাইমস): ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্য ও উৎসব আমেজের মধ্য দিয়ে আগামীকাল শুক্রবার সারা দেশে পবিত্র ঈদুল আজহা উদযাপিত হবে। হজরত ইব্রাহিম (আ.)-এর আত্মত্যাগ ও অনুপম আদর্শের প্রতীকী নিদর্শন হিসেবে প্রায় সাড়ে ৪ হাজার বছর আগে কোরবানির প্রচলন শুরু। মহান আল্লাহ রাব্বুল আলামীনের নির্দেশে হজরত ইব্রাহিম (আ.) তার প্রাণপ্রিয় পুত্র হজরত ইসমাইল (আ.) কে কোরবানি  করতে উদ্যত হয়েছিলেন। ওই অনন্য ঘটনার স্মরণেই এ কোরবানির প্রচলন। বছর ঘুরে আবার এলো সেই পবিত্র উৎসব ঈদুল আজহা। আগামীকাল বাংলাদেশ, ভারত, পাকিস্তানসহ এ উপমহাদেশে উদযাপিত হবে মুসলমানদের দ্বিতীয় বৃহৎ এই উৎসব। তবে চন্দ্রমাসের হিসেবের তারতম্যের কারণে আজ সৌদি আরবসহ মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোতে ঈদুল আজহা উদযাপিত হবে।

মুসলিম বিশ্বের অন্যতম প্রধান ধর্মীয় ও সামাজিক উৎসব ঈদকে ঘিরে আনন্দ-উদ্দীপনার আমেজ সারা দেশে। এ উপলক্ষে প্রেসিডেন্ট আবদুল হামিদ, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া আলাদা বাণীতে দেশবাসী ও মুসলিম উম্মাহকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন। এ ছাড়াও সরকার ও বিরোধী দলের সিনিয়র রাজনীতিক, বিভিন্ন দেশের সরকার প্রধান, বিভিন্ন রাজনৈতিক দল, ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের নেতৃবৃন্দ শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়েছেন। এদিকে রাস্তাঘাটে নানা রকম ঝক্কিঝামেলা প্রাকৃতিক দুর্যোগ উপেক্ষা করে নাড়ির টানে রাজধানী ছেড়েছেন লাখ লাখ মানুষ। বাস, ট্রেন, লঞ্চে করে গতকালও অনেকে বাড়ি ফিরেছেন। যারা গতকাল যেতে পারেননি আজ তারা যার যার গন্তব্যে যাবেন। দেশের রাজনৈতিক দলগুলোর নেতারাও এলাকায় গেছেন ঈদ উদযাপন করতে। রাজনৈতিক দলের নেতারা এলাকায় কোরবানি দেবেন। ঈদ করবেন নিজ নিজ এলাকার লোকজনের সঙ্গে।

প্রেসিডেন্ট মো. আবদুল হামিদ পবিত্র ঈদুল আজহা উপলক্ষে দেশবাসীসহ বিশ্বের সকলকে আন্তরিক শুভেচ্ছা ও মোবারকবাদ জানান। তিনি বলেন, ত্যাগের মহিমায় ভাস্বর পবিত্র ঈদুল আজহা মহান আল্লাহর প্রতি অপরিসীম আনুগত্য ও ভালবাসার এক অনুপম নিদর্শন। পরমতসহিষ্ণুতা, সামপ্রদায়িক সমপ্রীতি, শান্তিপূর্ণ সহাবস্থানসহ মানবাধিকার সমুন্নত রাখার মাধ্যমে শান্তি সমপ্রীতিময় বিশ্বসমাজ গঠন করা সম্ভব। এজন্য প্রয়োজন জাতিতে জাতিতে ধৈর্য, সহনশীলতা, সহমর্মিতাসহ অন্যের প্রতি শ্রদ্ধাবোধ ও ভালবাসা। ঈদুল আজহার মর্মবাণী আমাদের সেই শিক্ষা দেয়। ত্যাগের মহান আদর্শ ও শিক্ষাকে আমাদের চিন্তা ও কর্মে প্রতিফলিত করতে হবে।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পবিত্র ঈদুল আজহার মর্মবাণী অন্তরে ধারণ করে নিজ নিজ অবস্থান থেকে জনকল্যাণমুখী কর্মকাণ্ডে অংশ নিয়ে বিভেদ বৈষম্যহীন সুখী, সমৃদ্ধ ও শান্তিপূর্ণ বাংলাদেশ গড়ে তোলার জন্য সকলের প্রতি আহবান জানিয়েছেন। তিনি পবিত্র ঈদুল আজহা উপলক্ষে দেয়া এক বাণীতে এ আহ্বান জানান। প্রধানমন্ত্রী ত্যাগের মহিমায় ভাস্বর পবিত্র ঈদুল আজহা উপলক্ষে দেশবাসী ও বিশ্বের সকল মুসলিম জনগোষ্ঠীকে আন্তরিক শুভেচ্ছা ও ঈদ মোবারক জানান। তিনি বলেন, ‘আসুন আমরা সকলেই পবিত্র ঈদুল আজহার মর্মবাণী অন্তরে ধারণ করে নিজ নিজ অবস্থান থেকে জনকল্যাণমুখী কর্মকাণ্ডে অংশ নিয়ে বিভেদ-বৈষম্যহীন সুখী, সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়ে তুলি। রাব্বুল আলামীন আমাদের সহায় হোন।’

ওদিকে হিংসা-বিদ্বেষ, লোভ-ক্রোধ পরিহার করে সমাজে শান্তি ও সম্প্রীতি প্রতিষ্ঠায় নিজেকে আত্মনিবেদিত করার আহ্বান জানিয়েছেন ২০ দলীয় জোটের শীর্ষ নেতা ও বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। দেশবাসীকে ঈদুল আজহার শুভেচ্ছা জানিয়ে দেয়া এক বাণীতে তিনি এ আহ্বান জানান। খালেদা জিয়া বলেন, দেশে এক ভয়ঙ্কর নৈরাজ্য চলছে। মানুষের জান, সহায়-সম্পদের কোন নিরাপত্তা নেই। দেশের বর্তমান অবস্থায় সকলের পক্ষে ঈদের আনন্দ যথাযথভাবে উপভোগ করা সম্ভব হবে না। দ্রব্যমূল্যের লাগামহীন ঊর্ধ্বগতি দরিদ্র ও কম আয়ের মানুষকে চরম দুর্ভোগের মুখে ঠেলে দিয়েছে। গ্যাস, বিদ্যুতের তীব্র সংকট জনজীবনে দুর্বিষহ অবস্থার সৃষ্টি করেছে। আবারও গ্যাসের দাম বৃদ্ধি করা হয়েছে। ঈদের আনন্দের দিনে কেউ যাতে অভুক্ত না থাকে সেদিকে সবাইকে খেয়াল রাখার আহ্বান জানান তিনি। বিকল্পধারা বাংলাদেশের চেয়ারম্যান অধ্যাপক এ.কিউ.এম বদরুদ্দোজা চৌধুরী পবিত্র ঈদুল আজহা উপলক্ষে দেশবাসীকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন। তিনি বলেন, দেশ এক চরম ক্রান্তিকাল অতিক্রম করছে। এই অবস্থায় গণতন্ত্র রক্ষার জন্য সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করতে হবে। ওদিকে জামায়াতে ইসলামী, কৃষক শ্রমিক জনতা লীগসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতৃবৃন্দ ঈদ উপলক্ষে দেশবাসীকে শুভেচ্ছা জানান।

ঈদুল আজহা উপলক্ষে জাতীয় ঈদগাহ ময়দানের সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে। ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের ৫৮ লাখ টাকা অর্থায়নে এ ঈদগাহ ময়দান প্রস্তুত করা হয়। তবে মুসল্লিদের অজুর ব্যবস্থা করছে ঢাকা ওয়াসা। জাতীয় ঈদ ময়দান ও এর আশপাশের এলাকার সার্বিক নিরাপত্তা ব্যবস্থার দায়িত্বে রয়েছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি)। এখানে সকাল ৮টায় অনুষ্ঠিত হবে ঈদের প্রধান জামাত। তবে আবহাওয়া প্রতিকূল হলে ওই জামাত সকাল সাড়ে ৮টায় বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদে হবে। এ ছাড়া বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদে পর্যায়ক্রমে ৫টি ঈদ জামাত হবে। প্রথম জামাত সকাল ৭টা, দ্বিতীয় জামাত সকাল ৮টা, তৃতীয় জামাত সকাল ৯টা, চতুর্থ জামাত সকাল ১০টা এবং পঞ্চম ও সর্বশেষ জামাত সকাল ১০টা ৪৫ মিনিটে অনুষ্ঠিত হবে।

সুষ্ঠু ও সুন্দরভাবে ঈদুল আজহার নামাজ আদায়ের জন্য মুসল্লিদের সুবিধার্থে বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদে পর্যাপ্ত পানি ও নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তার ব্যবস্থা করা হয়েছে।

রাজধানীতে জাতীয় ঈদগাহসহ ৩৬২টি ঈদ জামাতের ব্যবস্থা করা হয়েছে। এর মধ্যে ঢাকা দক্ষিণ সিট করপোরেশন এলাকায় ঈদুল আজহার ২২৮টি জামাত অনুষ্ঠিত হবে। জাতীয় ঈদগাহে ৫ হাজার মহিলা মুসল্লিসহ লক্ষাধিক মুসল্লির নামাজ আদায়ের ব্যবস্থা করা হয়েছে। মুসল্লিদের নামাজ আদায়ের সুবিধার্থে বসার জায়গা, ওজু ও মোবাইল টয়লেটের ব্যবস্থা রাখা হয়েছে।

ঈদুল আজহা উপলক্ষে কেন্দ্রীয় কারাগারসহ দেশের সকল কারাগার, সরকারি হাসপাতাল, ভবঘুরে কল্যাণ কেন্দ্র, বৃদ্ধাশ্রম, শিশুসদন, ছোটমনি নিবাস, সামাজিক প্রতিবন্ধী কেন্দ্র, সরকারি আশ্রয় কেন্দ্র, সেফহোম্‌স, দুস্থ কল্যাণ কেন্দ্র এবং শিশু ও মাতৃসদনে উন্নতমানের খাবার পরিবেশন করা হবে।

সিটিজি টাইমসে প্রকাশিত সংবাদ সম্পর্কে আপনার মন্তব্য

মতামত