টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

কনটেইনারভর্তি মুদ্রা: বিশেষ ক্ষমতা আইনে মামলা, তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি

taচট্টগ্রাম, ২২ সেপ্টেম্বর (সিটিজি টাইমস):  দুবাই থেকে আসা কনটেইনারভর্তি ভারতীয় মুদ্রা জব্দের ঘটনায় তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠনের পাশা-পাশি বিশেষ ক্ষমতায় আইনে ৬ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের হয়েছে। এতে আটক পাঁচজনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত একজনকে আসামি করা হয়েছে।

শুল্ক গোয়েন্দা অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক হোসাইন আহমেদকে প্রধান করে মঙ্গলবার বিকেলে এ কমিটি গঠন করা হয়।  কমিটির সদস্য ও উপ পরিচালক জাকির হোসেন বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, তার সাথে কমিটির অন্য সদস্য রাখা হয়েছে সহকারি পরিচালক সৈয়দ মোকাদ্দেস হোসেন। কমিটিকে ২৫ কার্য দিবসের মধ্যে প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে।

এরআগে সন্ধ্যায় বন্দর থানায় অধিদপ্তরের সহকারি রাজস্ব কর্মকর্তা বিধান কুমার সরকার বাদী হয়ে বিশেষ ক্ষমতায় আইনে ৬ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছেন। এতে আটক পাঁচজনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত একজনকে আসামি করা হয়েছে।

মামলার আসামিরা হলেন-সিঅ্যান্ডএফ এজেন্ট ফ্লাশ ট্রেড ইন্টারন্যাশনালের চেয়ারম্যান শামীমুর রহমান, এমডি মোহাম্মদ আসাদ উল্লাহ, পার্টনার আহমদ উল্লাহ তালুকদার, পরিচালক কাউসার ও চালান প্রেরণকারী শাহেদুজ্জামানের ছোট ভাই তৌহিদুল আলম। এছাড়া গতকাল সাবের নামে কাস্টমসের চতুর্থ শ্রেনীর এক কর্মকর্তাকে আটক করা হলেও তার নাম এজাহারে উল্লেখ করা হয়নি। তবে একজন অজ্ঞাত আসামি রাখা হয়েছে।

আসামিদের বিরুদ্ধে বিশেষ ক্ষমতা আইন, লাগেজ বিধিমালা আইন ও কাস্টম আইনের সংশ্লিষ্ট ধারায় অভিযোগ আনা হয়েছে।

বিষয়টির সত্যতা নিশ্চিত করে বন্দর থানার এস আই কামরুজ্জামান বলেন, ‘কনটেইনার থেকে ভারতীয় রুপি জব্দের ঘটনায় শুল্ক গোয়েন্দা অধিদপ্তরের পক্ষ থেকে পাঁচজনকে আসামি করে একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। এই মামলায় এজহার নামীয় পাঁচ আসামিকে তারা আমাদের কাছে হস্তান্তর করেছে।’

উল্লেখ্য, রোববার সন্ধ্যা সাড়ে সাতটায় বন্দরের ৮ নম্বর ইয়ার্ডে দুবাই থেকে আসা একই মালিকের চারটি কনটেইনারের মধ্যে একটি কনটেইনার জব্দ করে শুল্ক গোয়েন্দা বিভাগ। এরপর রাতে কনটেইনার থাকা ১৬৫টি কার্টনের মধ্যে একটি কার্টন খোলা হয়। সেটিতে ভারতীয় মুদ্রা পাওয়া যায়। পরে দুপুরে সংশ্লিষ্ট সকলের উপস্থিতিতে কনটেইনারে থাকা চারটি কার্টন খুললে সেখানে ২ কোটি ৭১ লাখ ৭৬ হাজার ৫০০ ভারতীয় মুদ্রা পাওয়া যায়।

 

সিটিজি টাইমসে প্রকাশিত সংবাদ সম্পর্কে আপনার মন্তব্য

মতামত