টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

মিরসরাই শিল্প জোন সুরক্ষায় ১১শ কোটি টাকার প্রকল্প পাউবোর

এম মাঈন উদ্দিন
মিরসরাই প্রতিনিধি 

চট্টগ্রাম, ২১ সেপ্টেম্বর (সিটিজি টাইমস):  মিরসরাই শিল্প জোন সুরক্ষায় ১১ শ কোটি টাকার প্রকল্প নিয়েছে পানি উন্নয়ন বোর্ড। এটি চট্টগ্রাম অঞ্চলের জন্য সবচেয়ে বড় প্রকল্প বলে জানিয়েছেন পাউবো’র কর্মকর্তারা। সাগরের লোনাপানি, ঘূর্ণিঝড়, জলোচ্ছাস থেকে শিল্প জোনকে রক্ষায় এই প্রকল্প নেয়া হয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর অগ্রাধিকার ভিত্তিতে এই প্রকল্প নেয়া হয়েছে।

পানি উন্নয়ন বোর্ডের কর্মকর্তা জানান, সমুদ্র উপকূল ও চরাঞ্চলে এই শিল্প জোন গড়ে উঠায় বন্যা, জলোচ্ছ্বাস থেকে সুরক্ষায় প্রকল্পটি নেয়া হয়েছে। এটি চট্টগ্রাম অঞ্চলের সবচেয়ে বড় প্রকল্প। এই প্রকল্পের আওতায় সাড়ে ১৯ কিলোমিটার চার লেন বিশিষ্ট সড়ক, বেড়িবাঁধ, প্রতিরক্ষা বাঁধ, নতুন খাল খনন, পুরোনো খাল পুনঃখনন ও ৯টি স্লুইস গেট স্থাপন করা হবে।

পানি উন্নয়ন বোর্ডের (পওর-২) নির্বাহী প্রকৌশলী স্বপন কুমার বড়ুয়া বলেন, এক হাজার ৮০ কোটি টাকার এই প্রকল্প পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়েছে। পরিকল্পনা মন্ত্রণালয় থেকে পরিকল্পনা কমিশনে পাসের পর প্রি-একনেক ও একনেক কমিটির সভায় অনুমোদনের পর প্রকল্পের কাজ শুরু হবে। তিনি বলেন, এটি প্রধানমন্ত্রীর অগ্রাধিকার প্রকল্প। প্রধনামন্ত্রীর দপ্তর থেকে এই প্রকল্পটির বিষয়ে তদারক করা হচ্ছে।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২০১০ সালের ২৯ ডিসেম্বর দেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম কৃত্রিম লেক মহামায়া প্রকল্প উদ্বোধকালে জনসভায় মিরসরাইয়ের ইছাখালীতে জেগে ওঠা চরে শিল্প জোন স্থাপনের প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন। এটি হবে দেশের সবচেয়ে বড় শিল্প জোন। প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ আগ্রহে এই শিল্পজোন গড়ে উঠছে। জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) সভায় প্রকল্পটি চুড়ান্ত অনুমোদন দেয়া হয়েছে। প্রকল্পের ভূমি জরিপসহ প্রাথমিক পর্যায়ের কাজও শেষ হয়েছে। শিল্প জোন প্রকল্পের কাজ দ্রুত এগিয়ে যাওয়ায় পানি উন্নয়ন বোর্ডের বড় আকারের সুরক্ষা প্রকল্পটিও দ্রুত এগোচ্ছে বলে জানিয়েছেন পাউবো’র কর্মকর্তারা।

জানা গেছে, শিল্পের বিকেন্দ্রীকরণ ও নতুন শিল্পোদ্যোগ গড়ে তুলতে সরকার ‘বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চল’ স্থাপনের পরিকল্পনা নিয়েছে। প্রথম পর্যায়ে সমুদ্রবন্দরকে কাজে লাগিয়ে মিরসরাইসহ দেশের চারটি বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চল প্রতিষ্ঠার উদ্যোগ নেয়।

ব্যবসায়ী ও শিল্পোদ্যোক্তারা নতুন শিল্পের জন্য ভূমির সংস্থানে সরকারের কাছে অর্থনৈতিক অঞ্চল গঠনের দাবি জানিয়ে আসছিলেন। বিভিন্ন সময় বিদেশি বিনিয়োগকারীরাও এ দেশে শিল্প স্থাপনে বিশেষ সুবিধার কথা বলেছেন। বিনিয়োগের আগ্রহ থাকলেও শিল্পাঞ্চলের অভাবে অনেকে কারখানা স্থাপনে আগ্রহী হননি। এজন্য সরকার শিল্প জোন স্থাপনে বিশেষ উদ্যোগ নেয়।

জানা গেছে, মিরসরাইয়ে হবে সর্ববৃহৎ শিল্প জোন। ইছাখালী চরের ৭ হাজার ৭১৬ একর জমিতে এই শিল্প জোন প্রতিষ্ঠা করা হবে। এ উপজেলায় বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চল দ্রুত প্রতিষ্ঠা করতে জাপানের সহায়তায় অর্থ ব্যয়ের পরিকল্পনা নিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। প্রকল্পটি বাস্তবায়ন হলে বদলে যাবে মিরসরাইসহ চট্টগ্রামের অর্থনীতির চেহারা। কর্মসংস্থান হবে সাড়ে ছয় লাখ লোকের।

পানি উন্নয়ন বোর্ডের কর্মকর্তা জানান, মিরসরাই-সীতাকুন্ড উপজেলার সীমান্ত এলাকা থেকে মুহুরী প্রকল্প থেকে বারইয়ার হাট পর্যন্ত ৭ কিলোমিটার বেড়িবাঁধ রয়েছে। এই বেড়িবাঁধেও দুই লেনের সড়ক করা হবে। ৩০ কিলোমিটার খাল খনন, পুনঃখনন করা হবে। বিভিন্ন খালের মোহনায় নয়টি স্লুইস গেট স্থাপন করা হবে। সাগরপাড়ে নতুন সড়ক নির্মাণ করা হবে। এই সড়কটি ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের সাথে সংযুক্ত হবে। এতে শিল্প জোনের সাথে ঢাকা ও চট্টগ্রামের যোগাযোগ ক্ষেত্রে আরও সহজতর হয়ে উঠবে।

পানি উন্নয়ন বোর্ডের প্রধান প্রকৌশলী মোজাফ্ফর আহমদ বলেন, গত মাসে আমরা প্রকল্পটি পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ে দাখিল করেছি। সেখান থেকে পরিকল্পনা কমিশনে অনুমোদনের পর একনেক সভায় উঠবে।

সিটিজি টাইমসে প্রকাশিত সংবাদ সম্পর্কে আপনার মন্তব্য

মতামত