টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

রাঙ্গুনিয়ায় কোরবানীর পশুর হাটে চাহিদা বেশী দেশীয় গরুর

আব্বাস হোসাইন আফতাব
রাঙ্গুনিয়া প্রতিনিধি 

Rangunia-cow-picচট্টগ্রাম, ২০ সেপ্টেম্বর (সিটিজি টাইমস): পবিত্র ঈদুল আয্হার আর কয়েকদিন বাকী থাকলেও রাঙ্গুনিয়ায় কোরবানীর পশুর হাট জমে উঠেছে। বেচাকেনা এখনো কম হলেও ক্রেতাদের উপচে পড়া ভীড়ে কানায় কানায় পূর্ন বাজার। রাঙ্গুনিয়ার অর্ধ শতাধিক গরুর বাজারে বিদেশী গরুর চেয়ে দেশী গরুর কদর বেশী । হাট বাজার ছাড়াও পাড়া মহল্লাও বেচাকেনা হচ্ছে গরু। তবে গতবারের তুলনায় এবার দেশী গরুর দাম কম বলে জানিয়েছে ক্রেতারা।

এর মধ্যে উপজেলার শান্তির হাট, গোছরা, রোয়াজার হাট, গোডাউন, মরিয়ম নগর চৌমুহনী, চন্দ্রঘোনা, পদুয়া, কোদালা, শিলক, সরফভাটা, রাণীর হাট, ধামাইর হাট বাজারে হরেক রকমের দেশীয় গরু ও ছাগলে ভরপুর হয়ে জমে উঠেছে কোরবানীর পশুর বাজার। তবে ছোট গরু কিনতে গিয়ে সাধারণ ও মধ্যবিত্ত ক্রেতা সাধারণকে ক্রয় করতে হিমশিম খেতে হচ্ছে। বাজারে বিদেশী গরুর দাম হাকাঁ হচ্ছে এক লাখ থেকে তিন লাখ পর্যন্ত। তবে প্রচুর দেশীয় গরু মজুদ থাকায় ক্রেতারা বিদেশী গরু কিনছে না। তাছাড়া স্বল্প সময়ে মোটাতাজাকরনের গরুর চেয়ে দেশীয় গরুর মাংস স্বাস্থ্য উপযোগী হওয়ায় ক্রেতারা দেশীয় গরু কিনতে আগ্রহ দেখাচ্ছে বেশী।

একাধিক পশুর হাট পরিদর্শন করে দেখা যায়, কানায় কানায় পূর্ন হয়ে জমে উঠেছে দেশীয় গরু, ছাগল। একেকটি দেশীয় গরুর ওজন ১৫ থেকে ২০ মণের উর্ধে হবে জানান বিক্রেতারা। সাধারণ ক্রেতারা জানান, তবে গত বছরের তুলনায় এবার দেশী গরুর দাম কম।

শিলক মিনা গাজীর টিলা থেকে রোয়াজার হাটে গরু কিনতে আসা আবদুস সবুর জানান, বাজারে প্রচুর দেশী গরুর রয়েছে। বাজারে দেশীয় গরুর চাহিদা থাকলেও দামও গত বছরের তুলনায় কিছুটা কম বলে অনুমান করা হচ্ছে। তবে গরুর কোনো সংকট হবে না বলে তিনি জানান।

এদিকে গরু বেপারীরা গরুর বাজারে চাঁদাবাজির অভিযোগ করেছেন। অতিরিক্ত চাঁদার দেয়ার কারনে গরু ক্রেতাদের উপর দামের চাপটা একটু বেশী পড়ছে বলে রোয়াজারহাটের গরু বিক্রেতা আবদুস সালাম জানান ।

চন্দ্রঘোনা লিচু বাগান বিদেশী গরু ব্যবসায়ী বদি সওদাগর জানান, ভারত ও মায়ানমার থেকে দেড় শতাধিক বিদেশী গরু বিক্রির জন্য নিয়ে এসেছি । এবার বড় ও বিদেশী গরুর প্রতি ক্রেতাদের আকর্ষন দেখা যাচ্ছে না।

রাঙ্গুনিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ মো. হুমায়ুন কবির জানান, পরিস্থিতি স্বাভাবিক থাকায় ক্রেতা বিক্রেতারা স্বাচ্ছন্দ্যে পশু ক্রয়বিক্রয় করতে পারছে। আইন শৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রনে প্রত্যেক বাজারে পুলিশ নিয়োজিত আছে।

রাঙ্গুনিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ সাইফুল ইসলাম মজুমদার জানান, এবার কাপ্তাই সড়কের পাশে কোনো পশুর হাট বসছেনা। যানজটমুক্ত রাখতে এ ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।

মতামত