টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

খাঁটি বাংলা মেসেঞ্জার কমোয়ো নিয়ে এল গ্রামীণফোন

Comoyo_launchচট্টগ্রাম, ২০ সেপ্টেম্বর (সিটিজি টাইমস):  টেলিনর ডিজিটাল  আজ ঢাকার একটি হোটেলে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলেনে বাংলাদেশি গ্রাহকদের জন্য বিশেষভাবে তৈরি ইন্সট্যান্ট ম্যাসেজিং (আইএম) অ্যাপ কমোয়ো চালু করা হয়। আমাদের দেশের গ্রাহকদের কথা মাথায় রেখে মানানসইভাবে অ্যাপটি তৈরি করা হয়েছে। তরুণদের জন্য কমোয়োতে সংযুক্ত করা রয়েছে বাংলা স্টিকার।

ইন্টারনেট যোগাযোগের ক্ষেত্রকে বিশাল পরিসরে ছড়িয়ে দিয়েছে। যাত্রা শুরুর পরে সময়ের সাথে দ্রুত পাল্লা দিয়ে আজ যোগাযোগের অন্যতম মাধ্যম হিসেবে পরিণত হয়েছে ইন্টারনেট। কোটি কোটি অনুভূতি আজ প্রকাশ পাচ্ছে ইন্টারনেটের মাধ্যমে।

বাংলাদেশের তরুণ প্রজন্ম এরইমধ্যে তাদের প্রতিদিনকার জীবনে যোগাযোগের জন্য হোয়াটসঅ্যাপ, ভাইবার, লাইন, স্ন্যাপচ্যাট ব্যবহার করছে, কিন্তু অনেকেই মাতৃভাষার অভাব বোধ করছেন। বেশিরভাগ আইএম অ্যাপই পাশ্চত্যের তৈরি করা এবং এসব অ্যাপের ইন্টারফেস ইংরেজিতে। অ্যাপগুলো বিদেশের লাইফস্টাইলের সাথে মিলিয়ে তৈরি করা। তাই খাঁটি বাঙালি স্টাইলে মনের কথা প্রকাশকরা এই অ্যাপগুলোতে সম্ভব না যার ফলে বাংলা ভাষা-ভাষী তরুণদের বেশিরভাগই আইএম অ্যাপে ভাষাগত সুবিধা খোঁজেন।

আর তাই এলো খাঁটি বাংলা মেসেঞ্জার কমোয়ো। ইন্টারফেস থেকে শুরু কনটেন্ট পর্যন্ত সবকিছুতেই খাঁটি বাঙালিয়ানার ছাপ আছে কমোয়োতে । এই মেসেঞ্জার প্রতিদিনের জীবন থেকে বিভিন্ন ইনসাইট নিয়ে দারুণ সব স্টিকার সেট দিয়ে এমনভাবে ডিজাইন করা হয়েছে যে, সবাই সবকিছুু খুব সহজেই বলে ফেলতে পারবে এই মেসেঞ্জারে। সম্ভাব্য সব উপায়েই আমাদের তরুণদের জন্য মানানসই করে তৈরি কমোয়ো। শুধুমাত্র ইন্টারফেসই নয়, এর গ্রুপ ও ভয়েস মেসেজিং ফিচারও বাংলাতে। অ্যাপটি আমাদের সংস্কৃতির সঙ্গে মানানসই এবং দেখতেও আকর্ষণীয়। এ অ্যাপের মাধ্যমে আমাদের তরুণরা সম্ভাব্য সব উপায়েই বাংলা ভাষায় নিজেদের অনুভূতি প্রকাশ করতে পারবেন।

আমাদের তরুণদের জন্য মানানসই এবং তাদের চাহিদা ও রুচি অনুযায়ী উপযুক্ত এবং প্রতিদিনিকার জীবনে কাজে লাগে এমনভাবেই তৈরি কমোয়োর স্টিকারগুলো। প্রতিমাসেই বিনামূল্যে নতুন স্টিকার পাওয়া যাবে। স্টিকারগুলো বাংলা চলিত ভাষা, প্রবাদ, প্রবচন পাওয়া যাবে যেগুলো আর অন্য কোনো ভাষায় পাওয়া যাবে না। স্টিকারগুলো মজার, আকর্ষণীয় এবং বিষয়ভিত্তিক।

অনুষ্ঠানে টেলিনর ডিজিটাল এর ভাইস প্রেসিডেন্ট ফ্রোডে ই ভেস্টনেস বলেন, “ইন্টারনেটে হাজার হাজার অ্যাপ রয়েছে কিন্তু এর মধ্যে বাংলাদেশি গ্রাহকদের জন্য উপযোগী অ্যাপ খুবই কম। বাংলাদেশি ব্যবহারকারীদের জন্য ইন্টারনেটকে আরও ফলপ্রসূভাবে এবং আনন্দময় করে তোলার জন্য আমাদের অক্লান্ত পরিশ্রমের ফসল কমোয়ো।”

“যেকোনো ডিজিটাল উদ্যোগকে সমর্থন ও সহায়তা দেয়ার ক্ষেত্রে অগ্রপথিক হিসেবে গ্রামীণফোন গ্রাহকদের জন্য সম্পূর্ণ বিনামূল্যে এ সেবা এনেছে। ইন্টারনেটের কোনো খরচ ছাড়াই আমাদের গ্রাহকরা এ সেবা ব্যবহার করতে পারবেন। আমাদের ‘সবার জন্য ইন্টারনেট’ নিশ্চিতকরণ প্রতিশ্রুতি পূরণে আমরা যৌথভাবে কমোয়োর সাথে কাজ করার ক্ষেত্রে উৎসাহিত বোধ করছি। ‘সবার জন্য ইন্টারনেট’ নিশ্চিতকরণ প্রয়াসের মাধ্যমে আমরা সবার জন্য ইন্টারনেটকে সহজে ব্যবহারযোগ্য ও সহজলভ্য করতে কাজ করছি। “বলেন গ্রামীণফোনের জেনারেল ম্যানেজার ডিজিটাল এন্ড ডিভাইস মোহাম্মদ মুনতাসির হোসেন।

বাংলাদেশিদের জন্য প্রয়োজনীয় এই কমোয়ো অ্যাপের মাধ্যমে ডিজিটাল সময়ে কোনো বাধা ছাড়াই সবাই তাদের অনুভূতি প্রকাশ করতে পারবেন নিজের ভাষায়। কমোয়োর মাধ্যমে গ্রাহকরা টেক্সট মেসেজ, ভয়েস মেসেজ, ভিডিও, অডিও পাঠাতে পারবেন। পাশাপাশি গ্রুপ চ্যাট অপশনসহ আরও অনেক ফিচার রয়েছে অ্যাপটিতে। যে কোনো মোবাইল গ্রাহক চাইলেই গুগুল প্লে স্টোর অথবা অ্যাপ স্টোর  থেকে কমোয়ো অ্যাপটি ডাউনলোড করে নিতে পারেন।

সিটিজি টাইমসে প্রকাশিত সংবাদ সম্পর্কে আপনার মন্তব্য

মতামত