টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

খুনিদের সঙ্গে সমঝোতা নয়

nasim-albdচট্টগ্রাম, ১৯ সেপ্টেম্বর (সিটিজি টাইমস):  ১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবসে যারা কেক কেটে মিথ্যা জন্মদিন পালন করেন তাদের সঙ্গে কোনো সমঝোতা নয় বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমন্ডলির সদস্য ও স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম। তিনি বলেছেন, এসব খুনিদের সঙ্গে কোন সমঝোতা নয়, সমঝোতা হবে জনগণের সঙ্গে।

শনিবার বিকালে রাজধানীর ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউটে বঙ্গবন্ধু চিকিৎসক পরিষদ আয়োজিত জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষ্যে আয়োজিত এক আলোচনা সভায় তিনি এ কথা বলেন।

বিএনপির আগাম নির্বাচনের দাবি উড়িয়ে দিয়ে আওয়ামী লীগের এই জ্যেষ্ঠ নেতা বলেন, ‘কিসের নির্বাচন। নির্বাচিত সরকার চলে মেয়াদ অনুযায়ী। সংবিধান অনুযায়ী ২০১৯ সাল পর্যন্ত বর্তমান সরকারের মেয়াদ আছে।”

সরকারের ওপর জনগণের অগাধ আস্থা আছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘এই সরকারের ওপর দেশবাসীর অগাধ আস্থা রয়েছে। তাহলে কেন নির্বাচন? তবে দেশে অবশ্যই নির্বাচন হবে। তা ২০১৯ সালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অধীনেই হবে। অহেতুক মাঠ গরম করার জন্য বক্তব্য দিয়ে লাভ নেই।’

সম্প্রতি ১৪ দলের অন্যতম শরিক দল ওয়ার্কার্স পার্টির বক্তব্যের জবাবে নাসিম বলেন, ‘১৪ দল ছিল, আছে ও থাকবে। ১৪ দল এক সঙ্গে ছিল এক সঙ্গে থাকবে, যা শেখ হাসিনা আওয়ামী লীগের গত কার্যনির্বাহী কমিটির সভায় স্পষ্ট করে দিয়েছেন। কেউ বিভ্রান্তিমূলক কথা বলবেন না। বিএনপি-জামায়াতের সন্ত্রাসী ও জঙ্গি তৎপরতার চূড়ান্ত পরাজয় না হওয়া পর্যন্ত ১৪ দল এক সঙ্গেই থাকবে।’

আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্যে জাসদ সভাপতি ও তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু বলেন, পাকিস্তানি দল চক্রের প্রেতাত্মারাই বঙ্গবন্ধুকে পঁচাত্তরের ১৫ আগস্ট খুন করেছে। এই খুনিরা ক্ষমতা দখল করে একাত্তরের খুনিদের হালাল করার চক্রান্ত করেছিল। পঁচাত্তরের পর তারা ভূতের রাজত্ব চালিয়েছিল। তারা সাম্প্রদায়িকতার রাজনীতি শুরু করেছিল।

তিনি বলেন, রাজাকার আর মুক্তিযোদ্ধা এক ঘরে থাকলে সে ঘরে শান্তি থাকে না। রাজাকের সঙ্গে যারা মিটমাটের তত্ত্ব দেন, তারা খুনিদের রাজনীতিতে প্রতিষ্ঠিত করার চেষ্টা করছেন।

বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে উদ্দেশ্য করে হাসানুল হক ইনু বলেন, ২১ আগস্ট খুনি ও আগুণ সন্ত্রাসী খালেদার মাফ নেই। তার বিচার হবেই।

সংগঠনের সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা অধ্যাপক ডা. মো. সিরাজুল হকের সভাপতিত্বে সমাবেশে আরও উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগ নেতা ডা. মোস্তফা জালাল মহিউদ্দিন, মুক্তিযোদ্ধা সংসদের কেন্দ্রীয় কমান্ড কাউন্সিলের চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল (অব.) হেলাল মোর্শেদ খান, সংগঠনের মহাসচিব মুক্তিযোদ্ধা অধ্যাপক ডা. মোল্লা ওবায়েদুল্লাহ বাকী প্রমুখ।

সিটিজি টাইমসে প্রকাশিত সংবাদ সম্পর্কে আপনার মন্তব্য

মতামত