টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

ম্যাগি নুডলসের বিজ্ঞাপনে বিভ্রান্তি

maggiচট্টগ্রাম, ১৫ সেপ্টেম্বর (সিটিজি টাইমস):   বাংলাদেশে ম্যাগি নুডলস বিক্রির সব চেষ্টায় মরিয়া হয়ে উঠেছে নেসলে। 

এ লক্ষ্যে এক-দুটি মিডিয়াকে হাত করে ব্যাপক বিজ্ঞাপনী প্রচারণাও চালিয়ে যাচ্ছে। এসব বিজ্ঞাপন নীতি-নৈতিকতার উর্ধ্বে উঠে প্রচার করা হচ্ছে।

ম্যাগি নুডলসে ভারতে যখন সীসা ধরা পড়ে তখন এই কোম্পানি বাংলাদেশে মরিয়া হয়ে প্রচার চালাচ্ছিলো বাংলাদেশে নুডলস তৈরি হয় নিজস্ব পদ্ধতিতে।

মানুষ যাতে ম্যাগি বর্জন না করে সে লক্ষ্যেই ছিলো ওই প্রচার। সেবার ভারতের সবগুলো অঙ্গরাজ্যে একে একে বন্ধ হয় মানব শরীরের জন্য ক্ষতিকর সীসাযুক্ত সেই নুডলস। তখন নেসলে বলছিলো বাংলাদেশের নুডলসের সঙ্গে ভারতের নুডলসের কোনো সম্পর্ক নেই।

কিন্তু এবার ভারতের একটি মাত্র রাজ্যের আদালত নুডলসের ওপর নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করে নেওয়ার পর তার প্রচারণা চালানো শুরু হয়েছে বাংলাদেশে।

যেনো মুম্বাইয়ের হাইকোর্ট নুডলস ভালো বলে সার্টিফিকেট দিলেই বাংলাদেশে নুডলস বিক্রি করা যাবে। আর বাংলাদেশের মানুষ তা খেতে শুরু করবে?

সেবার নেসলে বলেছিলো ভারতের নুডলসে সীসা বাংলাদেশের নয়, এখানে খেতে পারেন। আর এবার বলছে ভারতে নিষেধাজ্ঞা তুলে নেওয়া হয়েছে, এখন কোনো সমস্যা নেই এখানে খেতে পারেন। অদ্ভুত এই স্ববিরোধীতায় বিজ্ঞাপন তৈরি করে দেশের একটি প্রধান সারির দৈনিকে প্রচার করে চলেছে।

বাংলাদেশেও সরকারের বিভিন্ন সংস্থার নাম করে বিজ্ঞাপনে দাবি করা হয়েছে, সংস্থাগুলো সংবাদ সম্মেলন করে বলেছে ম্যাগি নিরাপদ। কিন্তু ওই সংবাদ সম্মেলনের কোনও তথ্য সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত হয়নি। যা নতুন করে বিভ্রান্তি ছড়াচ্ছে।

যদি ম্যাগি নুডলস বাংলাদেশের জন্য উপযোগি হয়েই থাকে তা একটি দুটি মিডিয়ায় বিজ্ঞাপন করে কেনো প্রচার করতে হবে? সে প্রশ্ন উঠেছে উদ্বিগ্ন মহল থেকে।

আনুষ্ঠানিকভাবে সকল পরীক্ষা-নিরীক্ষার ফল সামনে এনে সকল মিডিয়া ডেকে নেসলে এই ঘোষণা দিতে পারে বলেই মত তাদের।

আর সরকারের যেসব সংস্থার কথা বলা হচ্ছে তাদেরও সুনির্দিষ্ট বক্তব্য ও রিপোর্ট থাকা প্রয়োজন।

যেসব ল্যাবরেটরিতে- ম্যাগিতে সিসা রয়েছে কিনা? তার পরীক্ষা হয়েছে সেসব ল্যাব রিপোর্টও প্রকাশ জরুরি।

তবে এসব না করে ম্যাগি নিয়ে আরো বিভ্রান্তিকর তথ্য দিচ্ছে নেসলে। ভারতের সরকারি নিষেধাজ্ঞা তুলে নেওয়া হয়েছে এই শিরোনামে খবরধর্মী বিজ্ঞাপনের ভেতরে বলা হয়েছে শ্রীপুরের ফ্যাক্টরিতে উৎপাদনের কথা।

আর ভারতের একটি রাজ্যের হাইকোর্ট সরকারের নিশেধাজ্ঞা তুলে নেওয়ার যে নির্দেশ দিয়েছে তা গোটা দেশের জন্যই প্রযোজ্য কি না তাও নিশ্চিত করা যায়নি।

ফলে বিভ্রান্তি বাড়িয়েই চলেছে ম্যাগি।

সূত্র: এএফপি

সিটিজি টাইমসে প্রকাশিত সংবাদ সম্পর্কে আপনার মন্তব্য

মতামত