টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

জলাবদ্ধতা নিরসনে একসঙ্গে কাজ করবে চসিক-সিডিএ

DSC_0506চট্টগ্রাম, ১৩  সেপ্টেম্বর  (সিটিজি টাইমস):: জলাবদ্ধতা নিরসনকে প্রাধান্য দিয়ে চট্টগ্রাম নগরীর নতুন মাস্টার প্ল্যান প্রণয়ন করা হবে। কাউন্সিলর ও জনগনের মতামতের ভিত্তিতে তৈরি এই মাস্টার প্ল্যান যৌথভাবে বাস্তবায়ন করবে সিটি কর্পোরেশন (চসিক ) ও চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (সিডিএ) ।

রোববার দুপুরে মাস্টার প্ল্যান প্রণয়ন ও বাস্তবায়ন বিষয়ক এক মতবিনিময় সভায় এই সিদ্ধান্ত হয়। কর্পোরেশনের কে বি আবদুস সাত্তার মিলনায়তনে হয় এ সভা ।

সভায় মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন ৪১টি ওয়ার্ডের জন্য একটি করে “পৃথক জোন” করার পরিকল্পনার তাগিদ দিয়ে বলেন,চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন ও চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ একসঙ্গে কাজ করলে মাস্টার প্ল্যান বাস্তবায়ন সম্ভব ।

তিনি বলেন, ১৯৯৫ সালে প্রণীত মাস্টার প্ল্যানে যে নির্দেশনা দেয়া হয়েছিল তা ২০ বছরের মধ্যে বাস্তবায়ন করার কথা ছিল। কিন্তু প্ল্যানটি এখনো বইয়ের পাতাতেই রয়ে গেছে। প্ল্যানটি বাস্তবায়ন না করার ফলে নগরীতে জলাবদ্ধতাসহ নানামুখী সমস্যার সৃষ্টি হয়েছে।

তিনি আরো বলেন, জলাব্ধতাকে আগ্রাধিকার দিয়ে মাস্টার প্ল্যান তৈরি করা উচিত। চসিক এমন মাস্টার প্ল্যান দেখতে চায় যেখানে জনগণের মতামত প্রধান্য পাবে।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ’র চেয়ারম্যান আবদুচ ছালাম বলেন, মাস্টার প্ল্যান চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের কাউন্সিলর ও বিভিন্ন শ্রেণির প্রতিনিধির সমন্বয়ে তৈরি হওয়া প্রয়োজন। কাউন্সিলর, সংরক্ষিত কাউন্সিলর, বিদায়ী কাউন্সিলর, নিটকতম প্রতিদ্বন্দ্বি কাউন্সিলর প্রার্থী ,আইনজীবী,সাংবাদিকসহ নানা শ্রেণী পেশার ২০ থেকে ২২ সদস্য নিয়ে প্েরত্যকটি ওয়ার্ডে একটি করে কমিটি তৈরি করা হবে । এই কমিটির মতামত অনুযায়ি মাস্টার প্ল্যান তৈরি করা হবে।

তিনি আরো বলেন ,১৯৯৫ সালে মাস্টার প্ল্যানে কিছু অসংগতি ছিল। নতুন মাস্টার প্ল্যান বাস্তবতার মিল রেখে তৈরি করা হবে যাতে প্ল্যানটি জনকল্যাণমুখী হয়।

আবদুচ ছালাম বলেন, অতীতে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের তৎপরতার অভাবে ড্রেনেজ মাস্টার প্ল্যান বাস্তবায়ন হয়নি।

চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ’র প্রধান নগর পরিকল্পনাবিদ শাহীনুল ইসলাম খান বলেন, চট্টগ্রাম শহরের জন্য অতীতে মাস্টার প্ল্যান ফর চিটাগাং ১৯৬১, চিটাগাং মেট্রোপলিটন মাস্টার প্ল্যান ১৯৯৫, ডিটেইলড এরিয়া প্ল্যান ২০০৮(ড্যাপ) এ সব প্ল্যান তৈরি করা হয়েছিল।

তাছাড়া বিশেষ প্ল্যান হিসেবে – স্ট্রাকচারাল প্ল্যান, আরবান এরিয়া প্ল্যান, স্টর্ম ওয়াটার ড্রেনেজ এন্ড ফ্লাড কন্ট্রোল মাস্টার প্ল্যান তৈরি করা উচিত।

তিনি আরো বলেন, ১৯৫৯সালে চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ অধ্যাদেশ অনুযায়ি চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন উন্নয়ন কর্মকান্ডে সি ডি এ সহয়োগিতা করবে।

নতুন মাস্টার প্ল্যান প্রসঙ্গে শাহীনুুল ইসলাম খান বলেন , ১৯৯৫ সালের মাস্টার প্ল্যান কিছু বাস্তবায়ন হলেও সময়ের সাথে জনগণের চাহিদা বৃদ্ধি পাওয়ায় নতুন মাস্টার প্ল্যান তৈরি প্রয়োজন।

মতামত