টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

মিরসরাইয়ে ব্যবসায়ী হত্যা: প্রতিবাদে ফুঁসে উঠেছে এলাকাবাসীও ব্যবসায়ীরা

এম মাঈন উদ্দিন
মিরসরাই  প্রতিনিধি 

Mirsarai-Murder-Rally-Pic--চট্টগ্রাম, ০৯ সেপ্টেম্বর  (সিটিজি টাইমস) :  আতঙ্ক। এই আতঙ্কের শেষ কোথায়? আতঙ্কে শনিবার রাতে ব্যবসায়ী মেজবা খুন হওয়ারপর থেকে সন্ধ্যা নাগাদ বাজারের দোকানপাট বন্ধ করে চলে যেতেন ব্যবসায়ীরা। শতাধিক দোকান নিয়ে গড়ে উঠা মিঠানালা ও মঘাদিয়া ইউনিয়নের সীমান্তবর্তী বাজারের নাম সাধুর বাজার। এই বাজারে একসময় খুনোখুনি ছিল। কিন্তু তা বর্তমান প্রজন্মের কাছে যেন রুপকথার গল্পের মতো। কারণ বিগত বছরগুলোতে কোন খুনোখুনির ঘটনা সংঘঠিত হয়নি এখানে। কিন্তু হঠাৎ করে উত্তপ্ত হয়ে উঠলো শান্তির এই জনপদ। প্রাণ গেল বাজারের সবচেয়ে বড় ব্যবসায়ী মেজবা উদ্দিন ভূঁইয়ার। গতকাল থমথমে পরিস্থিতি বিরাজ করে ওই বাজারে। দোকানে দোকানে শোভা পায় শোকের কালো পতাকা। প্রতিবাদে ফুঁসে উঠে এলাকাবাসীও ব্যবসায়ীরা। খুনীদের অবিলম্বে গ্রেফতার ও যথোপযুক্ত বিচারের দাবীতে বের করা হয় র‌্যালী। এলাকাবাসী ও বাজারের ব্যবসায়ী মিলে শতশত মানুষের সম্মিলন ঘটে। র‌্যালী শেষে বাজার প্রাঙ্গনে আয়োজন করা হয় প্রতিবাদ সভার। প্রতিবাদ সভার একটিই দাবী অবিলম্বে সকল খুনীদের যেন গ্রেফতার করা হয়। খুনীরা কোন দলের নয়। সমাবেশে দাবী উঠে মেজবা উদ্দিনের স্মৃতি রক্ষার্থে সড়ক নামকরণেরও। নিহতের স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে ১ মিনিট নিরবতা পালন করা হয় সমাবেশ প্রারম্বে।

বিকেল ৩ টার সময় বাজার প্রাঙ্গনে অনুষ্ঠিত সমাবেশ মলিয়াইশ উচ্চ বিদ্যালয় পরিচালনা পরিষদের সদস্য তোফাজ্জল হোসেন মাসুদ চৌধুরীর সঞ্চালনায় এবং সাধুর বাজার পরিচালনা কমিটির সভাপতি নুরুল মোস্তফার সভাপতিত্বে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন মিরসরাই উপজেলা পরিষদের সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান ফেরদৌস হোসেন আরিফ। এসময় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন মিঠানালা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এসএম আবু তাহের ভূঁইয়া, মঘাদিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শাহীনুল কাদের চৌধুরী, সাধুর বাজার পরিচালনা কমিটির সাধারণ সম্পাদক ডা. আমীর হোসেন, মঘাদিয়া ইউনিয়নের ১ নম্বর ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য নুরুল আবছার, মিঠানালা ইউনিয়ন পরিষদের ৯ নম্বর ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য নাজিম উদ্দিন, মিঠানালা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মোয়াজ্জেম হোসেন, স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন দূর্বার প্রগতি সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি হাসান মোহাম্মদ সাইফ উদ্দিন, মিরসরাই রিপোর্টার্স ইউনিটির সাংগঠনিক সম্পাদক সাংবাদিক এম আনোয়ার হোসেন, চট্টগ্রাম উত্তর জেলা যুবলীগের সদস্য শরীফ উল্ল্যাহ, নিহতের বড় ভাই নুর নবী, নিহতের আতœীয় আব্দুল মান্নান কাতু মিয়া, মিঠানালা ইউনিয়ন মুক্তি ফাউন্ডেশনের সভাপতি মিজানুল হক, মিঠানালা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের যুগ্ন সম্পাদক ইউনুস মিয়া প্রমুখ। এছাড়া উপস্থিত ছিলেন মিরসরাই উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান আলহাজ্ব মো. গিয়াস উদ্দিন, উপজেলা যুবলীগের আহবায়ক দিদারুল ইসলাম সোহেল, মিরসরাই পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-৩ এর পরিচালক দেলোয়ার হোসেন, চট্টগ্রাম উত্তর জেলা যুবলীগ নেতা মোশাররফ হোসেন। প্রতিবাদ সমাবেশ শেষে দোয়া মোনাজাত পরিচালনা করেন মধ্যম মলিয়াইশ দর্জিপাড়া জামে মসজিদের ইমাম মাওলানা বাহা উদ্দিন।

বক্তাদের বক্তব্যে উঠে আসে খুনীরা সবসময় কোন না কোন দলের আশ্রয়প্রশ্রয়ে বেপরোয়া হয়ে উঠে এবং একটি গোষ্টী তাদের জামিনের জন্য উঠেপড়ে লাগে। মেজবার খুনীদের পক্ষে যেন কেউ পক্ষ না নেয় বরং খুনীদের অনতিবিলম্বে গ্রেফতারে পুলিশ প্রশাসনকে সহযোগিতা করার উদাত্ত আহবান জানানো হয়।

সমাবেশের বিশেষ অতিথি মিঠানালা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এসএম আবু তাহের ভূঁইয়া বলেন, আপনারা সুন্দরভাবে ব্যবসা করবেন। কোন সন্ত্রাসী এলে দোকান বন্ধ করে চলে না গিয়ে তাদের প্রতিহত করবেন। প্রতিটি দোকানে আপনারা একটি করে লাঠি রাখবেন। যখনি কোন সন্ত্রাসীর পদধূলি পড়বে তখনি সবাই ঐক্যবদ্ধ হয়ে তাদের প্রতিরোধ করবেন। জনগণের ক্ষমতার উপর আর কোন ক্ষমতা নেই। সমাবেশে মলিয়াইশ উচ্চ বিদ্যালয় পরিচালনা পরিষদের সদস্য তোফাজ্জল হোসেন মাসুদ চৌধুরীর দাবী ছিল মেজবার স্মৃতি রক্ষার্থে একটি সড়কের নামকরণের। ইউপি চেয়ারম্যান এই বিষয়ে পরিষদের বৈঠকের মাধ্যমে সিদ্ধান্ত নিয়ে মেজবার স্মৃতি রক্ষার্থে যথোপযুক্ত উদ্যোগ নেওয়ার আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

মতামত