টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের সীতাকুণ্ড সদর বাজার অংশে দ্বন্ধেই বন্ধ রয়েছে সংস্কার কাজ

মো. ইমরান হোসেন
সীতাকুন্ড (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি 

saveচট্টগ্রাম, ০৭ সেপ্টেম্বর  (সিটিজি টাইমস) :  ‘পৌরসভা বলছে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক সংস্কারের দায়ীত্ব সড়ক-জনপদ বিভাগের, সড়ক-জনপদ বলছে পৌর এলাকার সংস্কারের দায়ীত্ব পৌরসভার।’ এভাবে দুই পক্ষের টানা হেচড়ায় সংস্কার হচ্ছে না পৌরসদর বাজারের ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের অংশ বিশেষ। প্রায় ২’শ গজ জায়গা দীর্ঘদিন ধরে সংস্কার না হওয়ায় সড়কের তৈরী হয়েছে বড় বড় গর্ত। আর ভেঙে যাওয়া গর্তে পড়ে গাড়ি চলাচলে বিঘœ ঘটায় দেখা দিয়ে সৃষ্টি হয় দীর্ঘ যানজট। ব্যস্ততম বাজারে প্রতিনিয়ত যানজটে পড়ে অতিষ্ট হয়ে উঠেছে পথচারী ও ব্যবসায়ীরা। ব্যবসায়ী বেলাল হোসেন জানান, রাস্তা ইজারা দেয়া হলেও সংস্কারে কারো মাথা ব্যাথা নেই। ভাঙা অংশ দেখেও দেখে না পৌরসভা ও সড়ক-জনপদের কর্মকর্তারা। মাঝে-মধ্যে ভাঙা রাস্তা মেরামত করা হলেও হচ্ছে না স্থায়ী সমাধান। অথচ বাজার সার্বিক অবস্থা দেখতে রয়েছে বাজার কমিটি, পরিবহন শ্রমিক সংগঠন, পৌরসভাসহ সেবা মূলক একাধিক প্রতিষ্ঠান। এরপরও সমস্যাটি স্থায়ী রুপ নিলেও বিষয়টি আমলে নিচ্ছে না কেউই।

এদিকে ধীর গতিতে গাড়ি চলাতে গিয়ে অতিষ্ট হয়ে উঠেছে চালকরা। চালকরা জানান, পৌর সদরে গাড়ি চালাচলে পৌরসভাকে টোল নিতে কার্পন বোধ না করলেও, ভাড়া দেয়া রাস্তা সংস্কারে নারাজ। তবে রাস্তাটি পৌরসভার অধীনস্ত হলেও সংস্কারের দায়ীত্ব সড়ক-জন বিভাগের। তাদের অনুমতি ছাড়া আমাদের কিছু করার নেই বলে জানান পৌরসভা সচিব নজরুল ইসলাম।

এদিকে সড়ক জনপদ বিভাগের রাস্তা পৌরসভা ইজারা দেয়ায় সংস্কার করতে চাই না সড়ক-জনপদ বিভাগ। সূত্রমতে প্রতিবছর কয়েক লক্ষ টাকা মহাসড়ক ইজারা দিয়ে আয় করে পৌরসভা। তারা চাইলে যে কোনো সময় রাস্তাটি সংস্কার করতে পারে। আয় করবে পৌরসভা, ব্যয়ভার সড়ক-জনপদের ঘাড়ে চেপে দিতে চাচ্ছে বলে জানান সীতাকুণ্ড সড়ক-জনপদ বিভাগের উপ-সহকারী প্রকৌশলী মফিজুর রহমান। তবে ভাঙা অংশ বহুবার সংস্কার করেছিল পৌরসভা। কোনো রকমের সংস্কার কাজ হওয়্য়া কিছু দিনের মধ্যে আবারো ভেঙে গর্তের সৃষ্টি হয় মহাসড়কে।

এ বিষয়ে পৌর মেয়র নায়েক (অবঃ) সফিউল আলম জানান, রাস্তাটি সড়ক-জনপদ বিভাগের হলেও জনগনের দুঃখ-দুর্দশার কথা ভেবে বহুবার ভাঙা অংশ সংস্কার করা হয়েছে। খুব শিঘ্রই সড়ক-জনপদ বিভাগের সাথে আলোচনা করে ভাঙা অংশ স্থায়ী সমাধানের উদ্যোগ নেয়া হবে।

সিটিজি টাইমসে প্রকাশিত সংবাদ সম্পর্কে আপনার মন্তব্য

মতামত