টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

গ্রেনেড হামলার দ্রুত বিচার দাবি চট্টগ্রাম থেকেই শুরু: মহিউদ্দিন

1-7চট্টগ্রাম, ৩০ আগস্ট (সিটিজি টাইমস) ::  চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরী বলেছেন, ‘২১ আগস্টের নারকীয় গ্রেনেড হামলা মামলার বিচার আমাদের ধৈর্য্যরে বাঁধ ভেঙ্গে যাওয়ার আগেই নিশ্চিত করতে হবে । ’

রবিবার বিকেলে ২১ আগস্টের গ্রেনেড হামলার মামলা দ্রুত নিষ্পত্তি ও জড়িতদের সর্বোচ্চ শাস্তির দাবীতে চট্টগ্রাম ১৪ দলের মানব বন্ধন কর্মসূচিতে তিনি একথা বলেন।

চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবের সামনে থেকে লালদীঘি ময়দান পর্যন্ত কয়েক কিলোমটির এলাকাজুড়ে এই মানব বন্ধন কর্মসূচি পালন করা হয়।

গ্রেনেড হামলা মামলার বিচার প্রক্রিয়া বিলম্বিত হচ্ছে এবং বিদেশ থেকে এই মামলার পলাতক আসামীদের ফেরৎ আনতে এখনো কার্যকর উদ্যোগ নেওয়া হয়নি – এমন অভিযোগ করে মহিউদ্দিন চৌধুরী বলেন, ‘এই নারকীয় ঘটনার ১১ বছর পর বিচার ত্বরান্বিত করতে চট্টগ্রাম ১৪ দল রাজপথে নামতে বাধ্য হয়েছে। চট্টগ্রাম থেকে কোন আন্দোলন শুরু হলে তা বৃথা যায় না।’

তিনি বলেন, ‘ঈদ-উল-আজহার পর বিচার প্রক্রিয়া দ্রুত নিষ্পত্তির দাবী নামায় চট্টগ্রাম থেকে ১ লাখ মানুষের গণস্বাক্ষর সংগ্রহ করা হবে এবং এরপর ঢাকায় জাতীয় প্রেসক্লাব থেকে হাইকোর্ট ভবন পর্যন্ত মানববন্ধন কর্মসূচি পালিত হবে।’

মহিউদ্দিন চৌধুরী উদ্বেগ প্রকাশ করে বলেন, চট্টগ্রাম বন্দর নিয়ে আবারও চক্রান্ত শুরু হয়েছে। একটি স্বার্থন্বেষী মহল এই বন্দরকে মাফিয়া চক্রের ঘাঁটিতে পরিণত করতে চায় এবং এই বন্দরকে মাদক ও অস্ত্র চালান আমদানীর ট্রানজিট রুট হিসেবে ব্যবহার করার অপচেষ্টা চালাচ্ছে। দেশের ১৬ কোটি মানুষের স্বার্থ বিরোধী এই ঘৃণ্য অপপ্রয়াসকে কিছুইতে বরদাস্ত করা যায় না।

এ ব্যাপারে তিনি সরকার ও দলীয় নীতি-নির্ধারকদের কার্যকর পদক্ষেপের আহ্বান জানান।

এসময় আরও বক্তব্য রাখেন- আওয়ামী লীগ নেতা ইব্রাহিম হোসেন চৌধুরী বাবুল,¡ নঈম উদ্দিন চৌধুরী, সুনীল কুমার সরকার, ন্যাপের আলী আহমদ নাজির, জাসদের জসিম উদ্দিন বাবুল, ওয়ার্কাস পার্টির আবু হানিফ, সাইফুদ্দিন খালেদ সেলিম, গণআজাদী লীগের মাওলানা নজরুল ইসলাম আশরাফী প্রমুখ।

মানববন্ধন কর্মসূচিতে রাজনৈতিক দল, শ্রমিক, ছাত্র ও মহিলা সংগঠন ছাড়াও ৫২ টি সাংস্কৃতিক সংগঠন ব্যানার-ফেস্টুন নিয়ে অংশগ্রহণ করে।

মতামত