টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

মালাগাকে হারিয়ে বার্সার প্রতিশোধ

চট্টগ্রাম, ৩০ আগস্ট (সিটিজি টাইমস) :: লা লিগায় গত মৌসুমে ক্যাম্প ন্যুয়ে এসে বার্সেলোনাকে হারিয়ে দিয়েছিল মালাগা। তার আগে নিজেদের মাঠে গোলশূন্য ড্র করে বার্সাকে রেখেছিল জয়বঞ্চিত। নতুন মৌসুমেও সেরকমই কিছুর ইঙ্গিত দিচ্ছিল তারা। কিন্তু শেষ পর্যন্ত বার্সার জয় আর রুখতে পারেনি। থমাস ভারমালেনের একমাত্র গোলে মালাগাকে হারিয়ে মধুর প্রতিশোধই নিয়েছে কাতালানরা। সেই সঙ্গে লিগে টানা দ্বিতীয় জয় পেয়েছে লুইস এনরিকের দল।

ক্যাম্প ন্যুয়ে বাংলাদেশ সময় শনিবার রাত সাড়ে ১২টায় শুরু হয় ম্যাচটি। এই ম্যাচে লিওনেল মেসি ও লুইস সুয়ারেজের সঙ্গে যোগ দেন নেইমার। ঘরের মাঠে ম্যাচের চতুর্থ মিনিটেই এগিয়ে যেতে পারতো বার্সা। কিন্তু বার্সার উরুগুইয়ান স্ট্রাইকার সুয়ারেজের একটি গোল বাতিল করে দেন রেফারি। ১৯ মিনিটে মালাগাও এগিয়ে যাওয়ার সুযোগ পেয়েছিল। ডি বক্সের অনেকটা ওপরে উঠে এসেছিলেন বার্সার গোলরক্ষক ক্লাদিও ব্রাভো। এই সুযোগে প্রায় মাঝমাঠ থেকে শট নিয়েছিলেন মালাগার হুয়ানকার। কিন্তু তার দূরপাল্লার শট পোস্টের সামান্য ওপর দিয়ে চলে যায়।

এরপর ২৬ মিনিটে এগিয়ে যাওয়ার আরেকটি সুযোগ এসেছিল বার্সার সামনে। কিন্তু এবার তাদের গোলবঞ্চিত করে ক্রসবার। আর্জেন্টাইন তারকা মেসির ক্রস থেকে স্বদেশী হাভিয়ের মাশচেরানো দারুণ এক হেড নিয়েছিলেন। কিন্তু তার হেড ক্রসবারে লেগে ফিরে আসে। ৩৬ মিনিটে আরেকটি ভালো আক্রমণ শানায় বার্সা। তবে আন্দ্রেস ইনিয়েস্তার পাস থেকে সুয়ারেজের শট ধরে ফেলেন মালাগার গোলরক্ষক কামেনি। প্রথমার্ধে গোলশূন্য স্কোরলাইন রেখেই বিরতিতে যায় দুই দল।

দ্বিতীয়ার্ধে ম্যাচের শুরু থেকেই আবার আক্রমণ শানাতে থাকে বার্সা। কিন্তু কাঙ্ক্ষিত গোলের দেখা পাচ্ছিল না তারা। ৬৯ মিনিটে দুর্দান্ত এক শট নিয়েছিলেন মেসি। বক্সের সামনে থেকে তার বাঁ পায়ের জোরালো শট বাঁদিকে ঝাঁপিয়ে পড়ে ঠেকিয়ে দেন মালাগার গোলরক্ষক। ফিরতি বলে পোস্টের ওপর দিয়ে শট মারেন সুয়ারেজ।

অবশেষে ম্যাচের ৭৩ মিনিটে ক্যাম্প ন্যুয়ের হাজার হাজার দর্শককে আনন্দের জোয়ারে ভাসান থমাস ভারমালেন। বার্সাকে ১-০ গোলে এগিয়ে দেন তিনি। প্রথমে বক্সের ডান দিক থেকে সুয়ারেজের ক্রস সামনে ঝাঁপিয়ে পড়ে ক্লিয়ার করতে চেয়েছিলেন মালাগার গোলরক্ষক কামেনি। তবে বক্সের ভেতরই বল পেয়ে জোরালো শটে জালে জড়িয়ে দেন ভারমালেন। বার্সার জার্সিতে এটাই তার প্রথম গোল। আর শেষ পর্যন্ত তার ওই গোলেই জয় পায় বার্সা।

মতামত