টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

শাকিলারা দোষ স্বীকার করেননি

ctg_rabচট্টগ্রাম, ২৬ আগস্ট (সিটিজি টাইমস) :: জঙ্গি অর্থায়নের অভিযোগে গ্রেপ্তার তিন আইনজীবী ‘মিডিয়া ক্রসফায়ারের’ শিকার বলে দাবি করেছে আসামিপক্ষ।

বুধবার চট্টগ্রামের জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম শহীদুল ইসলামের আদালতে হাটহাজারীর সন্ত্রাসবিরোধী আইনের মামলায় জঙ্গি অর্থায়নের অভিযোগে গ্রেপ্তার বিএনপির তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক ও সাবেক হুইপ সৈয়দ ওয়াহিদুল আলমের মেয়ে সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ব্যারিস্টার শাকিলা ফারজানা, মো. হাসানুজ্জামান লিটন ও ঢাকা জজ কোর্টের আইনজীবী মাহফুজ চৌধুরী বাপন জবানবন্দি দেন।

জবানবন্দি পর তাদের আইনজীবীরা দাবি করে বলেন, গ্রেপ্তার তিন আইনজীবী স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিলেও তারা দোষ স্বীকার করেননি।

পরে শাকিলার আইনজীবী আবদুস সাত্তার বলেন, “শাকিলা মিডিয়া ক্রসফায়ারের শিকার। তিনি বাঁশখালীতেও স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছিলেন, দোষ স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি নয়। কিন্তু মিডিয়ায় প্রচার করা হয়েছে উনি দোষ স্বীকার করেছেন। উনি (শাকিলা) বলেছেন টাকা নিয়েছেন আবার ফেরতও দিয়েছেন। কোথায়ও বলেননি জঙ্গি অর্থায়নের জন্য টাকা নিয়েছেন। গ্রেপ্তার শাকিলা যে জবানবন্দি দিয়েছে তা মামলার সাক্ষ্য হিসেবে বিবেচিত হতে পরে। উনি নির্দোষ। তিনি জঙ্গি বিষয়ে কখনো জড়িত ছিলেন না, জঙ্গি ভাবধারায়ও বিশ্বাস করেন না। একজন আইনজীবী যেকোন অপরাধীর পক্ষে আদালতে দাঁড়াতে পারে। তিনিও সেরকম মামলা নিয়েছিলেন। আদালতে ১৬৪ ধারায় নিজেকে সম্পৃক্ত করে তিনি কোন বক্তব্য দেননি।”

হেফাজতে ইসলামের মামলা পরিচালনার জন্য শাকিলা ফারজানা ও অপর দুই আইনজীবী অর্থ নিয়েছিলেন জানালেও হেফাজতের দাবি, তাদের কোনো মামলা পরিচালনায় শাকিলা ফারজানা ছিলেন না।

এ প্রসঙ্গে আইনজীবী সাত্তার জানান, “হেফাজত কি বলেছে তা গুরুত্বপূর্ণ না, এটা দালিলিক বিষয়। দলিল দেখলে বোঝা যাবে তিনি মামলা পরিচালনা করেছেন কিনা। এতে আইনজীবীদের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন হয়েছে। আশা করি তদন্তকারী সংস্থা বুঝতে পারবে কারা জড়িত।”

বুধবার তিন আইনজীবীকে দ্বিতীয় দফায় রিমান্ডে জিজ্ঞাসাবাদ শেষে চট্টগ্রামের জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম আদালতে নিয়ে আসা হয়।

গত সোমবার হাটহাজারী থানার সন্ত্রাসবিরোধী আইনের একটি মামলায় শাকিলাকে ৪৮ ঘণ্টা এবং অপর দুইজনকে ৭২ ঘণ্টা করে জিজ্ঞাসাবাদের অনুমতি দেয়।

তার আগে বাঁশখালীর আদালতে তিন আইনজীবী জবানবন্দি দিয়েছিলেন।

জঙ্গি সংগঠন হামজা বিগ্রেডকে অর্থায়নের অভিযোগে গত ১৮ অগাস্ট রাতে ঢাকার ধানমণ্ডি থেকে গ্রেপ্তার করা হয় ওই তিন আইনজীবীকে।

 

সিটিজি টাইমসে প্রকাশিত সংবাদ সম্পর্কে আপনার মন্তব্য

মতামত