টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

বঙ্গোপসাগরজুড়ে চলছে ‘মাছধরা উৎসব’

ইমাম খাইর, কক্সবাজার ব্যুরো:
অনুকূল আবহাওয়ায় কক্সবাজার বঙ্গোপসাগরে এখন পুরোদমে মাছ শিকার চলছে। কক্সবাজার সমুদ্র সৈকত থেকেই এই মাছ ধরার দৃশ্য দেখা যাচ্ছে। সমুদ্র উপকূলের কাছাকাছি বিহিন্দি জালের বোট এবং গভীর সাগরে ইলিশ জালের হাজার হাজার ট্রলার নিয়ে কয়েক লক্ষ জেলে এখন সাগরজুড়ে মাছ ধরা উৎসব পালন করছে।
কক্সবাজার জেলা ফিশিং ট্রলার মালিক সূত্রে জানা গেছে, কক্সবাজার জেলায় প্রায় ৫ হাজার এবং সারাদেশে প্রায় ২৫ হাজার মাছ ধরার ট্রলার রয়েছে। যার প্রায় ৯৫ ভাগই এখন সাগরে মাছ ধরতে ব্যস্ত। প্রতি ট্রলারে ১৬ থেকে ২২ জন করে জেলে মাছ ধরতে গেছে। গত মাসে দূর্যোগপূর্ণ আবহাওয়ার কারণে টানা প্রায় দুই সপ্তাহ সাগরে মাছ ধরা বন্ধ থাকার পর চলতি মাসের শুরুতে সাগরে ইলিশ ধরতে যায় জেলেরা। বর্তমানে অনুকূল আবহাওয়ায় কক্সবাজার বঙ্গোপসাগরে পুরোদমে মাছ শিকার চলছে।
জেলা ফিশিং ট্রলার মালিক সমিতির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন জানান, কক্সবাজার জেলার লক্ষাধিক জেলে এখন সাগরে মাছ ধরছে। তারাসহ সারাদেশের ৫ লক্ষাধিক জেলে এখন সাগরে ‘মাছধরা উৎসব’ পালন করছে। তবে সাগরে এখন ইলিশের পরিবর্তে অন্য প্রজাতির মাছ ধরা পড়ছে বেশি।
তবে স্থানীয় মৎস্য ব্যবসায়ীরা জানান, উপকূলবর্তী সমুদ্রে মাছ ধরার বিহিন্দি জাল বা ‘খুঁড়ি জালের’ ট্রলারগুলো দিনে গিয়ে দিনেই মাছ ধরে ফিরে আসছে। মূলত এসব বোটগুলো সাগর থেকে এক প্রকার চিংড়ি ধরে। যাকে স্থানীয় ভাষায় ‘করত্যা ইছা’ বলা হয়। সেসাথে এই ট্রলারের জালে আরো ধরা পড়ে রূপচান্দা, ছুরি, ফাইস্যা, মাইট্টা, গরুমাছ, লইট্টাসহ বিভিন্ন প্রজাতির মাছ।
কক্সবাজার শহরের ফিশারীঘাটের মৎস্য ব্যবসায়ী জুলফিকার আলী জানান, চলতি মাসে সাগর থেকে উল্লেখ্যযোগ্য পরিমাণ ইলিশ ধরা পড়েনি। এখন বেশি ধরা পড়ছে লইট্টা মাছ।
কক্সবাজার দরিয়ানগর এলাকার ট্রলার মালিক নজির আলম জানান, সাগরে এখন ধরা পড়া মাছের মধ্যে লইট্টা মাছ বেশি হলেও পোয়া, বাইলাসহ আরো কিছু প্রজাতির মাছ ধরা পড়ছে। এখানকার ট্রলারগুলো দিনে দিনে মাছ ধরে কূলে ফিরে আসায় তাজা মাছের জন্য ব্যবসায়ী ও ভোক্তাদের প্রথম পছন্দ দরিয়ানগর।
সরেজমিন ঘুরে জানা গেছে, সাগরে মাছ ধরার দৃশ্য কক্সবাজার সমুদ্র সৈকত থেকেই চোখে পড়ছে। বিশেষ করে রাতের বেলায় ট্রলারের আলোতে সাগরে অন্য এক অন্যরকম আবহ তৈরী হচ্ছে। যা পর্যটকদেরকেও বিমোহিত করছে।

সিটিজি টাইমসে প্রকাশিত সংবাদ সম্পর্কে আপনার মন্তব্য

মতামত