টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

পকেট মারতে হজে যায় তারা!

imazerচট্টগ্রাম, ২০ আগস্ট (সিটিজি টাইমস) :  অজ্ঞান পার্টির চার-পাঁচ সদস্যের একটি দল প্রতি বছর হজের সময় সৌদি আরব যায় পকেট মারার উদ্দেশ্যে। তারা হজযাত্রীর বেশে সৌদি আরব যায়। এবছরও এমন পরিকল্পনা ছিল। তবে আজ ঢাকায় এই দলের কয়েকজন পুলিশের হাতে ধরা পড়েছে। ঢাকা মহানগর পুলিশ (ডিএমপি) এসব তথ্য জানায়।

রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে অজ্ঞান পার্টির ১২ সদস্যকে আটক করে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)। আটককৃতদের মধ্যে দলনেতা হাজী আবদুর গফুরও রয়েছেন। মালিবাগ রেলগেট এলাকা থেকে গ্রেফতার হওয়া অজ্ঞান পার্টির কয়েক সদস্য হজে গিয়ে পকেটমারের অভিনব তথ্যও জানিয়েছেন পুলিশকে।

ডিএমপি থেকে পাঠানো প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, শাহবাগ এলাকা থেকে অজ্ঞান পার্টি চক্রের ৬ সদস্যকে গ্রেফতার করে গোয়েন্দা ও অপরাধ তথ্য (দক্ষিন) বিভাগ। গ্রেফতারকৃতদের নাম মো: নুরুল আানোয়ার, মো: সুজন খান,মো: আবুল বশার, মো: আবুল হাসান, মো: আক্তার হোসেন, মো: আবুল কালাম। এসময় তাদের কাছ থেকে অজ্ঞান করার আঁচার উদ্ধার করা হয়।

এতে বলা হয়, এই গ্রুপের ৮-১০ সদস্য ঢাকা ও তার আশপাশের জেলায় পাবলিক বাসের যাত্রীদের আঁচার ও অন্যান্য খাবার খাইয়ে অজ্ঞান করে তাদের সর্বস্ব নিয়ে বাস থেকে নেমে পড়ে। এই গ্রুপের নেতৃত্বে আছে নুরুল আনোয়ার এবং তার সেকেন্ড ইন কমান্ড মো: সুজন খান। গ্রুপের গ্রেফতারকৃতদের মধ্যে নুরুল আনোয়ার অজ্ঞান করার ঔষধ মিশিয়ে আঁচার তৈরি করেন। আবুল বশার বাসে যাত্রীদের সেই আঁচার সম্পর্কে বিবরণ দেন। সুজন খান টার্গেট যাত্রীকে ওষুধ মেশানো আঁচার খাওয়ান। এরপর ওই যাত্রী অচেতন হয়ে পড়লে অন্য সদস্যরা সর্বস্ব হাতিয়ে নেন।

এদিকে সকাল ৮:৪৫টায় রমনা থানার মালিবাগ রেলগেট এলাকা থেকে অজ্ঞান পার্টির আরও ছয় সদস্যকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারকৃতরা হলেন, দলনেতা আলহাজ্ব মো: টুটুল বিশ্বাস ওরফে সুমন, সেকেন্ড ইন কমান্ড কাজী সারোয়ার জামাল ওরফে নেতাজি, আলহাজ মো: ইব্রাহিম, মো: মনির হোসেন, মো: সাইফুল ইসলাম ওরফে বাচ্চু, মো: আব্দুল গফুর।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, তারাও একই কৌশলে ঢাকা ও তার আশপাশের জেলায় বাসের যাত্রীদের টার্গেট করে ওষুধ মেশানো আঁচার খাইয়ে যাত্রীদের সর্বস্ব হাতিয়ে নেয়। এর পাশাপাশি এই গ্রুপের আরও একটি অভিনব বৈশিষ্ট্য হলো, তাদের কয়েকজনের একটি দল প্রতিবছর হজে গিয়ে হাজিদের পকেট কাটে ও সর্বস্ব হাতিয়ে নেয়। এবছরও এই গ্রুপের সদস্য আলহাজ্ব মো: আব্দুল গফুর,আলহাজ্ব মো: টুটুল বিশ্বাস ওরফে সুমন এবং পলাতক আলহাজ মো: রওশন এমন পরিকল্পনার প্রস্তুতিতে ছিলেন।

সৌদি আরবে হাজীদের পকেট মারতে গিয়ে এই দলের কয়েক সদস্য সৌদি পুলিশের হাতে ধরা পড়ে জেলও খেটেছেন বলে পুলিশ সূত্র জানায়।

মতামত