টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

রাঙামাটিতে সেনা অভিযানে জেএসএসের ৫ সন্ত্রাসী নিহত

চট্টগ্রাম, ১৫ আগস্ট (সিটিজি টাইমস) : রাঙামাটির বাঘাইছড়িতে সেনাবাহিনীর সাথে সংঘর্ষে জনসংহতি সমিতির (এমএন লারমা) ৫ সন্ত্রাসী নিহত হয়েছে। এ সময় তিনজনকে গ্রেপ্তার করেছে সেনাবাহিনী।

বাঘাইছড়ির রুপকারী ইউনিয়নের বড়াদম এলাকায় শনিবার ভোরে এই সংঘর্ষ বাঁধে বলে জানান বাঘাইছড়ি থানার ওসি জাকির হোসেন ফকির।

নিহতদের মধ্যে একজনের নাম রুপায়ন চাকমা বলে পুলিশ জানিয়েছেন। অন্যদের নাম পাওয়া যায়নি।

সংঘর্ষে লিয়াকত আলী নামে সেনাবাহিনীর এক সদস্য আহত হয়েছেন বলে ওসি জানান। তাকে হেলিকপ্টারে করে চট্টগ্রাম সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

ওসি জাকির ফকির সাংবাদিকদের বলেন, পাহাড়ি সংগঠনটির গোপন একটি আস্তানার খবর পেয়ে ভোর ৫টার দিকে নিরাপত্তা বাহিনীর একটি দল বড়াদম এলাকায় অভিযানে যায়।

এসময় আস্তানায় অবস্থানরত মানবেন্দ্র নারায়ন লারমা গ্রুপের সদস্যরা গুলি চালায়। তখন নিরাপত্তা বাহিনীও পাল্টা ছুড়ে। এতে ঘটনাস্থলে ৫জন সদস্য নিহত হয়।

ওসি জানান, সংঘর্ষস্থল থেকে তিনটি এসএলআর, দুটি চায়নিজ রাইফেল, ১টি এমএসজি, ১টি নাইন এমএম পিস্তল, ১৪টি ম্যাগজিন, ৪৭২টি গুলি ও কার্তুজ এবং সেনা বাহিনীর মতো পোশাক উদ্ধার করা হয়।

জ্যোতিরিন্দ্র বোধিপ্রিয় লারমা (সন্তু লারমা) নেতৃত্বাধীন জনসংহতি সমিতি (জেএসএস) থেকে একটি অংশ বেরিয়ে জেএসএস (এম এন লারমা) দল গঠন করে কয়েক বছর আগে।

সন্তু লারমার ভাই এম এন লারমা পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতির প্রতিষ্ঠাতা। দলীয় কোন্দলে ১৯৮৩ সালে তিনি খুন হন।

মতামত