টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

বান্দরবান-চট্টগ্রাম সড়কে যান চলাচল শুরু

Bandarban-paniচট্টগ্রাম, ০২ আগস্ট (সিটিজি টাইমস)::তিন দিন পর বান্দরবান-চট্টগ্রাম সড়কে যান চলাচল শুরু হয়েছে। বন্যা পরিস্থিতির কিছুটা উন্নতি হয়েছে। প্লাবিত অঞ্চলগুলো থেকে বন্যার পানি নেমে যাওয়ায় রবিবার সকাল থেকে ঘরে ফিরছে বন্যাদুর্গতরা। তবে পাহাড় ধসে জেলা শহরের কালাঘাটা, বালাঘাটা, বনরূপাপাড়াসহ বিভিন্ন স্থানে রবিবারও অনেক ঘরবাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে বলে খবর পাওয়া গেছে। সাঙ্গু নদীর পানি এখনও বিপদসীমার ওপরে প্রবাহিত হচ্ছে।

জনপ্রতিনিধিরা জানান, বন্যা ও পাহাড় ধসে বান্দরবানে এবার প্রায় ৪০ হাজার মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। বন্যার পানি নামলেও পরিস্থিতি স্বাভাবিক হতে আরও ক’দিন সময় লাগবে। আশ্রয়কেন্দ্রগুলোতে এখনও শত শত পরিবার অবস্থান করছে। তবে বন্যার পানি নামতে শুরু করার দুর্গত মানুষদেরও ঘরে ফিরতে দেখা গেছে। বান্দরবান-কেরানীহাট প্রধান সড়কের বাজালিয়া এলাকা থেকে পানি নেমে যাওয়ায় বান্দরবানের সঙ্গে চট্টগ্রামসহ সারা দেশের সড়ক যোগাযোগ চালু হয়েছে। তবে বান্দরবান-রাঙ্গামাটি ও রুমা-থানছি সড়ক যোগাযোগ ১১ দিন ধরে বন্ধ রয়েছে।

সদর উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুল কুদ্দুছ জানান, বান্দরবান-চট্টগ্রাম সড়কে যান চলাচল শুরু হয়েছে। কিন্তু অভ্যন্তরীণ অনেক সড়ক যোগাযোগ এখনও বিচ্ছিন্ন রয়েছে। প্লাবিত অঞ্চলগুলো থেকে নেমে যাচ্ছে বন্যার পরিস্থিতি। সাঙ্গু নদীর পানি এখনও বিপদসীমার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।

বৃহস্পতিবার থেকে অবিরাম বর্ষণ ও পাহাড়ি ঢলে বান্দরবানে বন্যা ও পাহাড় ধসে প্রায় ৪০ হাজার মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে বলে দাবি করেছেন স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা।

সিটিজি টাইমসে প্রকাশিত সংবাদ সম্পর্কে আপনার মন্তব্য

মতামত