টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

মিরসরাইয়ে অনির্দিষ্টকালের জন্য সিএনজি অটোরিকক্সা বন্ধ ঘোষণা, যাত্রীদের দুর্ভোগ

এম মাঈন উদ্দিন
মিরসরাই প্রতিনিধি 

Mirsarai-Cng-Photoচট্টগ্রাম, ০১ আগস্ট (সিটিজি টাইমস)::  ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের মিরসরাইয়ের ৩৩ কিলোমিটার, ১৬ ইউনিয়ন ও দুটি পৌরসভার সকল আঞ্চলিক সড়কে অনির্দিষ্টকালের জন্য সিএনজি চলাচল বন্ধ রয়েছে। শনিবার (১ আগষ্ট) সকাল থেকে সিএনজি-অটোরিক্সা চলাচল বন্ধ থাকায় চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে যাত্রীদের। সড়ক যোগাযোগ ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের ঘোষণার প্রতিবাদে মিরসরাইয়ের প্রায় ১০টি স্পটে বিক্ষোভ সমাবেশ, মিছিল ও মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

শনিবার (০১ আগস্ট) সকাল থেকে এ কর্মসূচি পালন করেছে মিরসরাইয়ের সিএনজি অটোরিক্সা চালক, সাধারণ শ্রমিক ও মালিক সংগঠন। এছাড়া পার্শ্ববর্তী ফটিকছড়ি উপজেলার ঁেহয়াকো এলাকার প্রায় ৫ শতাধিক সিএনজি চালক বারইয়ারহাটে সমাবেশে অংশ নেয়। এতে সড়কে যানজটের সৃষ্টি হয়।

এই কর্মসূচির আওতায় ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের মিরসরাই সদর, মিঠাছড়া, ঠাকুরদিঘী, চৈতন্যারহাট, সোনাপাহাড়, বড়তাকিয়া, হাদিফকিরহাট, নিজামপুর কলেজ, বড়দারোগাহাট ও বারইয়ারহাট পৌর বাজারে পৃথক মানববন্ধন ও অবস্থান কর্মসূচি পালন করেছে শ্রমিক সংগঠনের নেতা-কর্মীরা।

এসময় বক্তব্য রাখেন মিরসরাই উপজেলা বহুমুখী অটেরিক্সা সিএনজি শ্রমিক ইউনিয়ন সমন্বয় পরিষদের সভাপতি গোলাম ফারুক (ফারুক কোম্পানী), সাধারণ সম্পাদক দিদারুল আলম, মিরসরাই অটোরিক্সা চালক সমবায় সমিতির সভাপতি খানসাব, সাধারণ সম্পাদক রবিউল হোসেন রবি, হেঁয়াকো সিএনজি চালক সমিতির সভাপতি আবু তৈয়ব, সাধারণ সম্পাদক মো. শাহ আলম, ঠাকুরদিঘী-ঝুলনপুল চালক সমিতির সভাপতি জামাল উদ্দিন প্রমুখ।

মিরসরাই অটোরিক্সা চালক সমবায় সমিতির সভাপতি খানসাব জানান, উপজেলার বড়দারোগার হাট থেকে ধুমঘাট পর্যন্ত ৩৩ কিলোমিটার মহাসড়কে প্রায় সাড়ে ৩ হাজার অটোরিক্সা চলাচল করে। এছাড়া মহাসড়ক থেকে বড়দারোগারহাট-কমরআলী, কমলদহ-কানকিরহাট, নিজামপুর-ভোরেরবাজার-সাহেরখালী, হাদিফকিরহাট-কাজীরহাট, বড়তাকিয়া-আবুতোরাব-মন্দার হাট-ঠাকুর হাট-মায়ানী-খোপার হাট, মিররসাই-সাধুরহাট-গোভনীয়া-সুফিয়া রোড, মিরসরাই-তালবাড়িয়া, মিঠাছড়া বামনসুন্দর-দারোগারহাট, ঠাকুরদিঘী-মাদবারহাট, চৈতন্যেরহাট-তেতৈয়া, মাস্তাননগর-হাজীশ্বরাই, জোরারগঞ্জ-মুহুরী প্রজেক্ট-টেকেরহাট, বারাইয়ারহাট-শান্তিরহাট-বাংলা বাজার, বারইয়ারহাট-করেরহাট গ্রামীন সংযোগ সড়কে আরো প্রায় ৮ হাজার অটোরিক্সা রয়েছে। মহাসড়ক থেকে অটোরিক্সা তুলে দেয়ার সরকারি সিদ্ধান্তের কারণে উপজেলার সব সড়কে গাড়ি চলাচল বন্ধ রাখা হয়েছে। সরকারি সিদ্ধান্ত প্রত্যাহারের দাবিতে মহাসড়কে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ কর্মসূচী পালন করা হয়। এদিকে শনিবার সকাল থেকে অটোরিক্সা চলাচল বন্ধ থাকায় পথে পথে দুর্ভোগে পড়ে মানুষ। সড়কে অন্যকোন গণপরিবহন না থাকায় হাটে হেঁটে মানুষকে যাতায়াত করতে দেখা গেছে।
সহকারী পুলিশ সুপার (সীতাকুন্ড সার্কেল) সালাহ উদ্দিন শিকদার বলেন, মহাসড়কে সিএনজি চলাচল নিষিদ্ধের প্রতিবাদে চালকদের কর্মসূচি শান্তিপূর্ণভাবে পালন শেষে তারা ফিরে গেছে। কোথাও কোন ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি।তাদের দাবীর বিষয়ে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে অবহিত করা হবে।

মতামত