টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

মৃধাকে দায়মুক্তি দিয়ে শাস্তির মুখে দুদক কর্মকর্তা

midচট্টগ্রাম, ২৮ জুলাই (সিটিজি টাইমস): চট্টগ্রামে রেলে নিয়োগ-সংক্রান্ত দুর্নীতির মামলায় বরখাস্ত হওয়া রেলওয়ে পূর্বাঞ্চলের সাবেক মহাব্যবস্থাপক ইউসুফ আলী মৃধাকে বাদ দিয়ে অভিযোগপত্র দেয়ায় শাস্তি পেতে যাচ্ছেন দুর্নীতি দমন কমিশন-দুদকের সহকারী পরিচালক রাশেদুর রেজা।

হাইকোর্টের নির্দেশে এই কর্মকর্তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছে দুদক।

নিয়োগ দুর্নীতির সঙ্গে ইউসুফ আলী মৃধার সম্পৃক্ততার বিষয়টির দালিলিক প্রমাণ থাকলেও দুদকের এ তদন্ত কর্মকর্তা অভিযোগপত্রে তাকে বাদ দেন বলে অভিযোগ রয়েছে।

দুদক সূত্র জানিয়েছে, কয়েক দিন আগে এ বিষয়ে আদালতের পর্যবেক্ষণসহ পুরো রায় দুদকের কাছে এসেছে। সেটি এখন সংস্থাটির আইন শাখায় রয়েছে। আদালতের নির্দেশ মতো এখন দুদককে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে হবে।

জানা গেছে, ২০১২ সালের ১৩ সেপ্টেম্বর চট্টগ্রাম নগরের কোতোয়ালি থানায় রেলওয়ের সহকারী লোকো মাস্টারপদে নিয়োগে দুর্নীতির অভিযোগে মামলা করা হয়। ওই মামলায় ইউসুফ আলী মৃধাসহ তিনজনকে আসামি করা হয়।

দুদকের সহকারী পরিচালক এস এম রাশেদুর রেজা মামলাটি করেন। তিনিই মামলার তদন্ত করেন। তদন্ত শেষে গত বছরের ৩০ নভেম্বর চট্টগ্রাম মুখ্য মহানগর হাকিম মশিউর রহমান চৌধুরীর আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন। সেখানে মৃধাকে বাদ দিয়ে ৩২ জনকে আসামি করা হয়।

এর বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে অভিযোগপত্রে অভিযুক্ত তিন ব্যক্তি হাইকোর্টে আবেদন করেন। তারা মামলা বাতিল চেয়ে আবেদন করেন।

আবেদনের শুনানি শেষে হাইকোর্ট গত ২৬ এপ্রিল এ তিনজনের আবেদনও খারিজ করে দেন। একই সঙ্গে ইউসুফ আলী মৃধার বিরুদ্ধে কর্মচারী নিয়োগ-সংক্রান্ত মামলা আমলে নিয়ে বিচার করতে চট্টগ্রাম সিনিয়র বিশেষ আদালতকে নির্দেশ দেন হাইকোর্ট।

প্রসঙ্গত, ২০১২ সালের ৯ এপ্রিল তৎকালীন রেলমন্ত্রী সুরঞ্জিত সেনগুপ্তের বাসায় যাওয়ার পথে টাকার বস্তাসহ আটক হন মৃধা। এতে সরকার ব্যাপক সমালোচনার মুখে পড়লে তাকে রেল মন্ত্রণালয় থেকে সরিয়ে দেয়া হয়। টাকার বস্তাসহ আটক মৃধার বিরুদ্ধে অনুসন্ধানে নামে দুদক।

মতামত