টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

মিরসরাইয়ের দাফনের ১৪ দিন পর আলফাজের লাশ উত্তোলন

এম মাঈন উদ্দিন
মিরসরাই  প্রতিনিধি

2চট্টগ্রাম, ১৪ জুলাই (সিটিজি টাইমস): মিরসরাইয়ে আদালতের নির্দেশে দাফনের ১৪দিন পর কবর থেকে আলফাজের লাশ উত্তোলন করা হয়েছে। মঙ্গলবার (১৪ জুলাই) দুপুরে চট্টগ্রাম জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের নিদের্শে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের উপস্থিতিতে উপজেলার দুর্গাপুর ইউনিয়নের হাফেজ বাড়ী কবরস্থান থেকে তার লাশ উত্তোলন করা হয়। এসময় দুর্গাপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান সাইফুল ইসলাম খোকা, চট্টগ্রাম রেলওয়ে থানার (জিআরপি) এস.আই মো.জহির উদ্দিন, জোরারগঞ্জ থানার এস.আই মো.ফজলুল উপস্থিত ছিলেন।

চট্টগ্রাম রেলওয়ে থানার এসআই মো.জহির উদ্দিন জানান, গত ৩০ জুন উপজেলার সদর ইউনিয়নের গড়িয়াইশ এলাকার রেললাইনের পাশ থেকে আফাজ উদ্দিনের লাশ উদ্ধার করে তার পরিবার। নিহত আফাজের বাম হাত ও ডান পায়ের আঙ্গুল শরীর থেকে বিচ্ছিন্ন ছিল। লাশ উদ্ধারের পর কাউকে না জানিয়ে লাশটি দাফন করে ফেলা হয়। বিষয়টি সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশিত হওয়ার পর পুলিশের সহায়তায় নিহতের বড় আজিম উদ্দিন বাদি হয়ে চট্টগ্রাম রেলওয়ে থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। পরে আদালতের নির্দেশে মঙ্গলবার আফাজের লাশ কবর থেকে উত্তোলন করে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়। গত ৭ জুলাই আলফাজের বড় ভাই আজিম উদ্দীন বাদী হয়ে ৩ জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত ৮ জনের বিরুদ্ধে চট্টগ্রাম রেলওয়ে থানায় মামলা (নং ৩) দায়ের করেন। মামলায় আসামীরা হলেন মিঠাছরার গড়িয়াইশ এলাকার হকসাব মেম্বারের ছেলে ফরিদ, সরোয়ার, ফয়সাল। আলফাজ উপজেলার দুর্গাপুর ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ডের রহিম বক্স ভূইয়া বাড়ির মৃত মোর্শেদ আলমের ছেলে। আলফাজের ১ ছেলে ও স্ত্রী রয়েছে। সে ৬মাস পূর্বে দুবাই থেকে বাড়িতে ছুটিতে এসেছিল।

চট্টগ্রাম রেলওয়ে থানার (জিআরপি) উপ-পরিদর্শক ও মামলার তদন্ত কর্মকর্তা জহির আলী জানান, গত ৭ জুলাই আলফাজের বড় ভাই আজিম উদ্দিন বাদী হয়ে একটি হত্যা মামলা দায়ের করে। মামলার আসামীদের গ্রেপ্তারের জন্য চেষ্ঠা চলছে। দ্রুত আসামীদের গ্রেপ্তার করা সম্ভব হবে বলে জানান তিনি।

সিটিজি টাইমসে প্রকাশিত সংবাদ সম্পর্কে আপনার মন্তব্য

মতামত