টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

মহিউদ্দিনের দুর্নীতি মামলার সমাপ্তি

albdচট্টগ্রাম, ০৯ জুলাই (সিটিজি টাইমস): বিজয় টিভি নিয়ে দুর্নীতির  অভিযোগে মামলা থেকে সাবেক মেয়র এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরীসহ আসামিদের অব্যাহতি দিয়েছেন আদালত।

মামলার কার্যক্রম বাতিল করে দেয়া হাইকোর্টের রায় চট্টগ্রামের বিচারিক আদালতে আসার পর বৃহস্পতিবার বিভাগীয় বিশেষ জজ মীর রহুল আমিন এ আদেশ দিয়েছেন।

আসামিরা হলেন, এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরী, চসিকের সাবেক প্রধান প্রকৌশলী মোখতার আলম ও বিজয় টিভি’র কর্মকর্তা মোহাম্মদ ইমতিয়াজ হোসেন চৌধুরী।

বিভাগীয় বিশেষ জজ আদালতের পিপি অ্যাডভোকেট মেজবাহ উদ্দিন আহমেদ জানান, হাইকোর্টের বাতিল আদেশটি গত ২৭এপ্রিল আদালতে এসেছে। বৃহস্পতিবার নির্ধারিত শুনানির দিনে আদেশটি বিচারকের সামনে তোলার পর সেটি নথিভুক্ত করে মামলার কার্যক্রম সমাপ্ত ঘোষণা করেছেন আদালত।

আদালত সূত্র জানায়, ২০০৬ সালের ১৩ ডিসেম্বর বিজয় টিভি সম্প্রচারের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেন তৎকালীন সিটি মেয়র এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরী। একই বছর ১৬ ডিসেম্বর সম্প্রচার শুরু করে বিজয় টিভি। ২০০৭ সালের ১৫ মার্চ তৎকালীন সরকার এর সম্প্রচার বন্ধ করে দেয়।

বিজয় টিভি প্রতিষ্ঠায় সিটি করপোরেশনের তহবিল থেকে অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ এনে ২০০৭ সালের ২৭ মে কোতোয়ালি থানায় মামলা দায়ের করেন দুর্নীতি দমন কমিশনের উপ-পরিচালক আবু মোহাম্মদ আরিফ সিদ্দিকী। দন্ডবিধির ৪০৯/১০৯ এবং ১৯৪৭ সালের দুর্নীতি দমন আইনের ৫(২) ধারায় আসামীদের বিরুদ্ধে অভিযোগ আনা হয়।

সুত্র জানায়, বিজয় টিভির নামে সিটি করপোরেশনের তহবিল থেকে ১ কোটি ৪৭ লাখ ২০ হাজার টাকা উত্তোলন করে বিভিন্ন খাতে ১ কোটি ৪০ লাখ ৬৮ হাজার ৯৬৮ টাকা ব্যয় দেখানো হয়েছে। এ টাকা খরচে যথাযথ কর্তৃপক্ষের কোনো অনুমোদন নেয়া হয়নি।

অভিযোগে আরো জানা গেছে, সাবেক মেয়র মহিউদ্দিন অন্য আসামীদের সঙ্গে যোগসাজশে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় ও তথ্য মন্ত্রণালয়ের অনুমতি না নিয়ে বিজয় টিভি স্টেশন করার জন্য চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের তহবিল থেকে টাকা তুলে নিজেকে এবং অপরকে আর্থিকভাবে লাভবান করে শাস্তিযোগ্য অপরাধ করেছেন।

মামলায় পাঁচজনকে আসামি করা হলেও অভিযোগপত্রে বাদ পড়েন বর্তমান শিক্ষা কর্মকর্তা মোহাম্মদ শহীদুল্লাহ এবং টিআইসি’র পরিচালক আহমেদ ইকবাল হায়দার।

আসামিদের পক্ষে মামলাটি বাতিলের আবেদন করা হলে ২০০৮ সালের ১৭ জানুয়ারি হাইকোর্টের একটি বেঞ্চ মামলার কার্যক্রম স্থগিত করে রুল জারি করে। একইসাথে মামলাটিকে কেন অবৈধ ও বাতিল ঘোষণা করা হবে না তা জানতে চেয়ে সরকারের বিরুদ্ধে রুল জারি করে আদালত।

২০১২ সালের ১০ ডিসেম্বর বিজয় টিভির দুর্নীতি মামলাটি বাতিল ঘোষণা করে হাইকোর্ট বিভাগ। আর আগে জারি হওয়া রুলের চূড়ান্ত শুনানি শেষে বিচারপতি এএইচএম শামসুদ্দিন চৌধুরী ও বিচারপতি ফরিদ আহমেদ সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ থেকে মামলা বাতিলের আদেশ আসে।

অপরদিকে হাইকোর্টে মামলাটি বাতিল হলেও দুদক এর বিরুদ্ধে আর আপিল করেনি। ফলে মামলাটি আর সামনে অগ্রসর হয়নি।

সিটিজি টাইমসে প্রকাশিত সংবাদ সম্পর্কে আপনার মন্তব্য

মতামত