টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

রাঙ্গুনিয়ায় স্কুল কক্ষে যুবতীকে গণধর্ষণ : দারোয়ান সহ গ্রেফতার ৪

আব্বাস হোসাইন আফতাব
রাঙ্গুনিয়া প্রতিনিধি

Rangunia-mapচট্টগ্রাম, ০৭ জুলাই (সিটিজি টাইমস):   চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়া উপজেলার বেতাগী ইউনিয়নের একটি হাই স্কুল কক্ষে দারোয়ান সহ ৫ যুবক মিলে এক যুবতীকে ধর্ষণ করেছে। যুবতীর চিৎকারে স্থানীয় জনতা ছুটে আসে এবং হাতে নাতে চার যুবককে ধরে ফেলে। চারজনকেই গণধোলাই দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করে।

গত সোমবার রাত ১০টায় বেতাগী ইউনিয়নের রোটারী বেতাগী ইউনিয়ন উচ্চ বিদ্যালয়ে এই ঘটনা ঘটে। ৫ জনের মধ্যে মূল হোতা একজন পলাতক রয়েছে।

গ্রেফতারকৃতদের মঙ্গলাবার সকালে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

এ ব্যাপারে রাঙ্গুনিয়া থানায় নারী ও শিশু অপরাধ ধমন আইনের ৪/১৫ ধারায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। ধর্ষিতা যুবতীকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।

জানা যায়, গত সোমবার রাতে মধ্য বেতাগীর মৃত আমিনুর রহমানের পুত্র মহিন উদ্দিন (২৮) চট্টগ্রাম শহর থেকে এক যুবতীকে জোরপূর্বক সিএনজি তুলে রাঙ্গুনিয়ার বেতাগীর রোটারী বেতাগী ইউনিয়ন উচ্চ বিদ্যালয়ে নিয়ে আসে।

স্কুলের দারোয়ান আমিনুর রহমানের পুত্র আশরাফ শাহের (৩০) সহযোগিতায় প্রধান ফটকের দরজা খুলে সিএনজিটি স্কুলের কক্ষের সামনে নিয়ে যায়।

এরপর পলাক্রমে যবতীকে ধর্ষণ করে। যুবতীর চিৎকার সন্নিকটে মসজিদ থেকে তারাবির নামাজ ফেরত মুসল্লিরা শুনতে ফেলে দারায়ান পাশ্ববর্তী পোমরা ইউনিয়নের মো. ফারুক(২৫), মো. মান্নান(২৭), বাচা মিঞা (২৭) কে আটক করে।

এঘটনায় এলাকায় জানাজানি হয়ে গেলে চারদিক থেকে জনতা ছুটে আসে।

এসময় বিদ্যালয়ের শিক্ষক, পরিচালনা পরিষদ সদস্য, ইউপি চেয়ারম্যান পেয়ারুল হক চৌধুরী ঘটনাস্থলে উপস্থিত হন। উত্তেজিত জনতা দারায়ান সহ ধৃত ৪যুবককেই গণধোলাই দেয়।

পরিস্থিতি বেসামাল হয়ে উঠলে রাঙ্গুনিয়া থানা পুলিশকে খবর দেওয়া হয়।

রাঙ্গুনিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা হুমায়ুন কবিরের নের্তৃত্বে একটি পুলিশ দল ঘটনাস্থলে উপস্থিত হলে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আসে। পরে জনতার রোষানল থেকে দারোয়ান সহ চার ধর্ষককে ধরে নিয়ে যায়।

ইতিমধ্যে ঘটনার মূল হোতা মধ্য বেতাগীর মহিন উদ্দিন গা ঢাকা দেয়।

এ ব্যাপারে রাঙ্গুনিয়া থানায় নারী ও শিশু অপরাধ ধমন আইনের ৪/১৫ ধারায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।

সিটিজি টাইমসে প্রকাশিত সংবাদ সম্পর্কে আপনার মন্তব্য

মতামত