টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

টি-২০ সিরিজ জিতে নিল প্রোটিয়ারা

spচট্টগ্রাম, ০৭ জুলাই (সিটিজি টাইমস):  দ্বিতীয় ও শেষ টি-টোয়েন্টিতে দক্ষিণ আফ্রিকার ১৬৯ রানের জবাবে বাংলাদেশ ১৩৮ রানে গুটিয়ে গেছে।

ফলে ৩১ রানের পরাজয়ের সঙ্গে স্বাগতিকরা দুই ম্যাচের সিরিজও হারল ২-০ ব্যবধানে।

প্রথম ম্যাচে ৫২ রানের পরাজয় দ্বিতীয় ম্যাচে এসে কমিয়ে ৩১ রানে এনেছেন মাশরাফিরা। তবে এবারো পুরো ২০ ওভার ব্যাট করতে পারেনি বাংলাদেশ, চার বল আগে অলআউট হয়।

তবে উদ্বোধনী জুটিতে এদিন উড়ন্ত সূচনা এনে দেন তামিম ইকবাল ও সৌম্য সরকার। ৫.৫ ওভারে ৪৬ রানের এই জুটি ভাঙেন ওয়েন পারনেল। তার বলে ডেভিড ওয়াইজির তালুবন্দি হওয়ার আগে তামিম ১৮ বলে এক বাউন্ডারিতে করেন ১৩ রান।

তবে অন্যপ্রান্তে বিস্ফোরক সব স্ট্রোক উপহার দিয়ে সৌম্য সরকারও তার ইনিংস বড় করতে পারেননি। ২১ বলে ৬ বাউন্ডারি ও এক ছক্কায় ৩৭ রান করে স্ট্যাম্পিং হন ইডেল লির বলে। অভিষেকেই প্রথম উইকেট নিলেন লি।

এরপর সাকিব আল হাসান আর মুশফিকুর রহিম দলের হাল ধরেন। তবে দলকে বিপদে রেখে দলীয় ৬৯ রানে সাজঘরে ফিরে যান সাকিব। অ্যারন ফাঙ্গিসোর বলে বাউন্ডারি লাইনে রুশোর তালুবন্দি হওয়ার আগে তিনি করেন ১৪ বলে ৮ রান।

৮২ রানে সাব্বির রহমান ফিরে গেলে চাপে পড়ে বাংলাদেশ। একই রানে মুশফিক এবং নাসির ফিরে গিয়ে সেই চাপ আরো বাড়িয়ে তোলেন। সেখান থেকে লিটন কুমার দাস এবং অধিনায়ক মাশরাফি কয়েকটি স্ট্রোক খেলে দলের রানের চাকাটা সচল রাখেন।

শেষদিকে অভিষিক্ত রনি তালুকদার যা একটু পরাজয়ের ব্যবধান কমাতে সক্ষম হয়েছেন। তবে দলীয় ১৩৮ রানে মুস্তাফিজুর রহমানকে বোর্ড করে কাইল অ্যাবোট দলের সিরিজ জয় নিশ্চিত করেন।

বাংলাদেশের পক্ষে সর্বোচ্চ ৩৭ রান করেছেন সৌম্য সরকার। এছাড়া রনি তালুকদার ২১, মুশফিকুর রহিম ১৯ এবং মাশরাফি ১৭ রান করে করেন।

প্রোটিয়াদের পক্ষে অভিষিক্ত লি ছাড়াও অ্যাবোট এবং ফাঙ্গিয়াসো ৩টি করে উইকেট নিয়ে টাইগার ব্যাটিং লাইনআপ ধসিয়ে দেন।

এর আগে প্রোটিয়ারা ৪ উইকেটে ১৬৯ রান করে। দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৪৪ রান করেন কুইনটন ডি কক। এছাড়া এবি ডি ভিলিয়ার্স করেন ৪০ রান করেন। নাসির হোসেন নেন ২ উইকেট।

মতামত