টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

মিরসরাইয়ে স্কুল শিক্ষার্থী সাকিব হত্যা এক মাস হলেও ধরাছোঁয়ার বাইরে মূল হোতা সরোয়ার

এম মাঈন উদ্দিন
মিরসরাই প্রতিনিধি 

চট্টগ্রাম, ০৫ জুলাই (সিটিজি টাইমস): মিরসরাইয়ের জেবি উচ্চ বিদ্যালয়ের মেধাবী শিক্ষার্থী ফারহান সাকিব হত্যাকান্ডের এক মাস হলেও এখনো ধরাছোঁয়ার বাইরে রয়েছেন ঘটনার মূল হোতা সরোয়ার। পুলিশ রহস্যজনক কারণে তাকে গ্রেপ্তার করছেনা বলে সাকিবের পরিবারের অভিযোগ। দীর্ঘ একমাস পার হওয়ার পরও সরোয়ারকে গ্রেপ্তার করতে না পারায় সাকিবের পরিবারের পাশাপাশি এলাকাবাসীর মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।

জানা গেছে, গত ৬ জুন অপহরণের ১২ জুন দুপুরে উপজেলার করেরহাট ইউনিয়নের নয়টিলা মাজার পাহাড়ের গহিন জঙ্গল থেকে সাকিবের দ্বিখন্ডিত লাশ উদ্ধার করে জোরারগঞ্জ থানা পুলিশ। হত্যারপর তার লাশ পাহাড়ের প্রায় ৪০০ ফুট নীচে ফেলে দেয় অপকারীরা। সে উপজেলার ধুম ইউনিয়নের উত্তর মোবারকঘোনা গ্রামের নাছির আহম্মদের ৫ সন্তানের মধ্যে সাকিব ৩য়।

এদিকে সাকিব হত্যাকান্ডের এক মাসেও এখনো কান্না থামছেনা মা-বাবা এবং স্বজনহারাদের। এখনো হাউমাউ করে কেঁদে উঠেন সাকিবে মা বিবি রহিমা। মায়ের প্রশ্ন?, ‘কেন আমার বুকের ধনকে ওরা মেরে ফেললো? কি দোষ করেছিল আমার সাকিব? তোমরা আমার সাকিবকে এনে দাও।’

বাবা নাছির উদ্দিন বলেন, প্রয়োজনে সন্ত্রাসীরা টাকা নিয়ে যেতো। কিন্তু আমার ছেলেকে হত্যা করলো কেন? আমার নিষ্পাপ ছেলের কোন দোষ ছিলোনা। আমি খুনিদের উপযুক্ত বিচার চাই।

সাকিব হত্যাকান্ডের মামলার বাদি শহীদুল ইসলাম রুবেল বলেন, আমার ভাই খুন হওয়ার এক মাস হলেও এখনো মূল হোতা সরোয়ারকে রহস্যজনক কারণে গ্রেপ্তার করতে না পারায় আমরা হতাশ হয়েছি। এতবড় বর্বর-লোহমর্ষক ঘটনায় জড়িতরা যদি পার পেয়ে যায় তাহলে পুলিশ থেকে কি লাভ। কেন যে সরোয়ারকে পুলিশ গ্রেপ্তার করতে পারছেনা বুঝতেছিনা। তিনি আরো বলেন, খুনি সরোয়ারকে ধরিয়ে দিতে আমাদের পরিবারের পক্ষ থেকে তার ছবি দিয়ে পোষ্টার সাঁটানো হয়েছে। কেউ যদি তাকে ধরে দিতে পাারে তাহলে পুরস্কৃত করা হবে।

জোরারগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) লিয়াকত আলী বলেন, সাকিব হত্যাকান্ডের ঘটনায় অভিযুক্ত সরোয়ারকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে পুলিশ। তাকে গ্রেপ্তারের বিষয়ে পুলিশের কোন ধরনের গাফিলতি নেই। ইতমধ্যে এ ঘটনায় গ্রেপ্তার হয়ে শহীদ ও রুবেল নামে দুইজন জেল হাজতে রয়েছে।

মতামত